kalerkantho

বুধবার । ২০ নভেম্বর ২০১৯। ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২২ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

আইসিসির সিদ্ধান্তকে টাইটানিক জাহাজের সঙ্গে তুলনা নিউজিল্যান্ডের!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৫ অক্টোবর, ২০১৯ ১৫:৪৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আইসিসির সিদ্ধান্তকে টাইটানিক জাহাজের সঙ্গে তুলনা নিউজিল্যান্ডের!

সেদিন এভাবেই কেঁদেছিলেন কিউই ওপেনার মার্টিন গাপটিল। ছবি : ইন্টারনেট

যে বিষয়টি নিয়ে গত বিশ্বকাপের ১৪ জুলাইয়ের ফাইনালে তুমুল বিতর্ক হয়েছিল, সেটির এবার সমাধান করল আইসিসি। সুপার ওভারে যে দল বেশি বাউন্ডারি মারবে তারাই বিজয়ী- এমন হাস্যকর নিয়মে এবার পরিবর্তন এসেছে। এই নিয়মের কারণেই গত বিশ্বকাপে জয়ী দল হয়েও রানার্সআপ হতে হয়েছে কেন উইলিয়ামসনের নিউজিল্যান্ডকে। এতদিন পর আইসিসির আইন সংশোধনের পর 'ভদ্র জাতি' হিসেবে পরিচিত কিউইরাও সোশ্যাল সাইটে ক্ষোভ প্রকাশ করছেন। 

গত বিশ্বকাপে ইংল্যান্ড বনাম নিউজিল্যান্ডের ফাইনাল প্রথমে টাই হয়েছিল। অবশেষে ম্যাচ গড়ায় সুপার ওভারে। আশ্চর্যের বিষয় হলো, সুপার ওভারেও টাই হয় ম্যাচ। যদিও বিতর্কিত আম্পায়ারিংয়ের জন্য ইংলিশরা এক রান বেশি পেয়েছিল; নাহলে জিতে যেত নিউজিল্যান্ড। যাই হোক, ম্যাচ ও সুপার ওভার মিলিয়ে বেশি বাউন্ডারি মারায় চূড়ান্ত বিজয়ী ঘোষণা করা হয়েছিল ইংলিশদের। এ নিয়ে ক্ষোভে ফেটে পড়ে ক্রিকেবিশ্ব। খোদ ইংল্যান্ডের সাবেক তারকারাও এভাবে বিশ্বকাপ জয় মানতে পারেননি।

এতদিন পর আইনে সংশোধন আনায় নিউজিল্যান্ডের কোনো লাভ হচ্ছে না। যা হওয়ার সেটা তো হয়েই গেছে। ওই ম্যাচে সুপার ওভারে ব্যাট করা জিমি নিশাম তাই আইসিসিকে খোঁচা দিয়ে লিখেছেন, 'এরপরের গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত: টাইটানিকের জন্য ভালো দুরবিন দেওয়া যাতে আইসবার্গ ভালো করে দেখা যায়।' ক্রেইগ ম্যাকমিলান লিখেছেন, 'অনেক দেরি হয়ে গেল। এবার কি ব্যাটসম্যানের গায়ে বল লাগলে বা দিক পরিবর্তন করলে ডেড বল ঘোষণা করা যায়?'

উল্লেখ্য, বিশ্বকাপের ওই বিতর্কিত ফাইনালে মার্টিন গাপটিলের থ্রো বেন স্টোকসের ব্যাটে লেগে সীমানা পেরিয়ে গেলে বাড়তি চার রান পেয়েছিল ইংল্যান্ড। বাউন্ডারি আর রানিং বিটুইন দ্য উইকেট মিলিয়ে ইংল্যান্ডকে ওভার থ্রোতে ৬ রান দিয়েছিলেন কুমার ধর্মসেনা। কিন্তু আইসিসির নিয়মানুযায়ী ১ রান কম পাওয়ার কথা ছিল ইংলিশদের। এমন হলে কিউইরা বিশ্বকাপ জিতে যেত। সাবেক বিশ্বসেরা আম্পায়ার সাইমন টফেল এই আইন তুলে ধরলে নিজের ভুল স্বীকার করেন ধর্মসেনা। তবে ক্ষমা চাননি তিনি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা