kalerkantho

বুধবার । ১৬ অক্টোবর ২০১৯। ১ কাতির্ক ১৪২৬। ১৬ সফর ১৪৪১       

চট্টগ্রামেও বিদ্যুৎ বিভ্রাট ; বন্ধ হলো খেলা!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ২১:৪০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চট্টগ্রামেও বিদ্যুৎ বিভ্রাট ; বন্ধ হলো খেলা!

ত্রিদেশীয় সিরিজে বিদ্যুৎ বিভ্রাট বাংলাদেশের ক্রিকেটের জন্য কলঙ্ক হয়েই থাকবে। মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বাংলাদেম-জিম্বাবুয়ে ম্যাচে বিদ্যুৎ চলে গিয়েছিল। এবার একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি হলো চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে। ত্রয়োদশ ওভারে আফগানিস্তান রিভিউ নেওয়ার পর থেকে ফ্লাড লাই বিভ্রাটের জন্য খেলা বন্ধ রয়েছে। স্টেডিয়ামের একটি টাওয়ারের সব বাতি নিভে যাওয়ায় এই বিভ্রাটের সৃষ্টি। এর আগ পর্যন্ত বাংলাদেশের সংগ্রহ ছিল ৩ উইকেটে ৮৪ রান। ৭ মিনিট বন্ধ থাকার পর খেলা শুরু হয়।

১৩৯ রানের টার্গেটে ব্যাটিংয়ে নেমে দলীয় ১২ রানেই প্যাভিলিয়নে ফিরেন দুই ওপেনার। মুজিব উর রহমানের ঘূর্ণিতে ১০ বলে ৪ করা লিটন দাসের বিদায় দিয়ে শুরু। পরের ওভারেই নাভিন উল হকের শিকার হন নাজমুল হোসেন শান্ত (৫)। এরপর লড়াই শুরু করেন অধিনায়ক সাকিব আল হাসান আর মুশফিকুর রহিম। তৃতীয় উইকেটে ৫৮ রানের জুটি গড়ে বিপদ সামাল দেন তারা। করিমের বলে মুশফিক (২৬) ফিরলে ভাঙে এই জুটি। ৭০ রানে তৃতীয় উইকেট হারায় বাংলাদেশ।

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেটে ১৩৮ রান করে আফগানিস্তান। শুরু থেকে নিয়ন্ত্রিত বোলিং করছিলেন বাংলাদেশি বোলাররা। তবে দ্বিতীয় ওভারে রহমতউল্লাহর দেওয়া একটি সহজ ক্যাচ ছাড়েন মাহমুদউল্লাহ। সুযোগ পেয়ে ৭৫ রানের বিশাল জুটি গড়েন দুই ওপেনার। অবশেষে দশম ওভারে বল করতে এসেই ৩৫ বলে ৪৭ রান করা হজরতুল্লাহ জাজাইকে ফিরিয়ে এই জুটি ভাঙেন আফিফ। এক বল পরেই এই তরুণ ফিরিয়ে দেন আসগর আসগর আফগানকে (০)।

এরপর উইকেট শিকারে যোগ দেন মুস্তাফিজুর রহমান। বেদম পিটুনি খাওয়া 'কাটার মাস্টার' তুলে নেন অপর ওপেনার ২৭ বলে ২৯ করা হজরতুল্লাহ জাজাইকে। অল-রাউন্ডার মোহাম্মদ নবি (৪) এলবিডাব্লিউ হয়ে যান সাকিব আল হাসানের ঘূর্ণিতে। ভায়রা-ভাই জুটি মুশফিক-মাহমুদউল্লাহর দারুণ কৃতিত্বে রান-আউট হন গুলবাদিন নাইব। দুর্দান্ত ফর্মে থাকা নজিবুল্লাহ জারদানকে (১৪) আজ থামিয়ে দেন সাইফউদ্দিন। আরেক পেসার শফিউল তুলে নেন করিম জানাতকে (৩)। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেটে ১৩৮ রান তুলতে সক্ষম হয় আফগানিস্তান।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা