kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ নভেম্বর ২০১৯। ২৯ কার্তিক ১৪২৬। ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

আবারও মালিঙ্গা ম্যাজিক, চার বলে চার উইকেট

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ২৩:২৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আবারও মালিঙ্গা ম্যাজিক, চার বলে চার উইকেট

আগের মতোই যেন রয়ে গেছে লাসিথ মালিঙ্গার ফর্ম। ক্যারিয়ারের সায়াহ্নে দাঁড়িয়ে আরো একবার ‘ডাবল হ্যাটট্রিক’ উপহার দিলেন লঙ্কান এই পেস কিংবদন্তি। টানা চার বলে চার উইকেট। যাকে বলা হয় ‘ডাবল হ্যাটট্রিক’। 

মালিঙ্গার অবশ্য এমন কীর্তি আগে ছিল ওয়ানডেতে। ২০০৭ সালের বিশ্বকাপে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে এই রেকর্ড গড়েছিলেন মালিঙ্গা। তবে সেটা ছিল দুই ওভারে।

এবার সেই একইরকম কীর্তি দেখালেন ক্রিকেটের সবচেয়ে ছোট ফরমেট টি-টোয়েন্টিতে। আজ (শুক্রবার) পাল্লেকেলেতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের তৃতীয় টি-টোয়েন্টিতে টানা চার বলে চার উইকেট নিয়েছেন মালিঙ্গা এবং সেটা একই ওভারে।

প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ৮ উইকেটে ১২৫ রান তুলেছে শ্রীলঙ্কা। জবাবে নামা কিউইদের ইনিংসে শুরুতেই ধ্বংসযজ্ঞ চালিয়েছেন মালিঙ্গা। ইনিংসের মাত্র তখন তৃতীয় ওভার।

ওভারের তৃতীয় বলে কলিন মুনরোকে করেন বোল্ড, পরের বলে এলবিডব্লিউ রাদারফোর্ড, পঞ্চম ডেলিভারিতে কলিন ডি গ্র্যান্ডহোমকে বোল্ড করে হ্যাটট্রিক পূরণ করেন মালিঙ্গা। আর ওভারের শেষ বলে এলবিডব্লিউ করেন রস টেলরকে।

মালিঙ্গার এই তাণ্ডবে ১৫ রানেই ৪ উইকেট হারিয়েছে নিউজিল্যান্ড। 

এদিকে এটি মালিঙ্গার দ্বিতীয় হ্যাটট্রিক। এর আগে কলম্বোতে ২০১৭ সালের ৬ এপ্রিল বাংলাদেশের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক করেছিলেন তিনি। টি-টোয়েন্টিতে দুটি হ্যাটট্রিকের কীর্তি নেই আর কারো। এটি টি-টোয়েন্টির ইতিহাসে পঞ্চম হ্যাটট্রিকের ঘটনা। প্রথম হ্যাটট্রিকের মালিক সাবেক অজি ফাস্ট বোলার ব্রেট লি। এই কীর্তি তিনি গড়েছিলেন বাংলাদেশের বিপক্ষে, ২০০৭ সালে।

টি-টোয়েন্টিতে চার বলে চার উইকেট পাওয়ার প্রথম কীর্তিটি অবশ্য রশিদ খানের দখলে। চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে এই রেকর্ড গড়েছিলেন আফগান লেগ স্পিনার। তবে তার কীর্তিটি অবশ্য দুই ওভার মিলিয়ে। এক ওভারের শেষ বলে একটি আর পরের ওভারের প্রথম তিন বলে বাকি তিনটি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা