kalerkantho

মঙ্গলবার । ১২ নভেম্বর ২০১৯। ২৭ কার্তিক ১৪২৬। ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

'আশা করছি বিশ্বকাপে সাকিব যা করেছে তা সে ভুলে যাবে'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০৯:৫৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



'আশা করছি বিশ্বকাপে সাকিব যা করেছে তা সে ভুলে যাবে'

এমনিতেই আফগানদের ভয়ডর কম। সাদা বলের ক্রিকেটে পাওয়া সাফল্যের ভরসাতেই লাল বলের দীর্ঘ পরিসরের ক্রিকেটে বাংলাদেশের চেয়ে অভিজ্ঞতায় কয়েক যোজন পিছিয়ে থাকার পরও রশিদ খান বলতে পারলেন, ‘আমরা বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের ও বোলারদের খুব ভালোভাবেই জানি। তাই জোর লড়াই হবে।’ যদিও সরল অঙ্ক বলে, ১১৪ টেস্ট খেলা দলের সঙ্গে দুই টেস্ট খেলা দলের লড়াইটা একপেশেই হওয়ার কথা।

পাঁচ বছর পর আফগানিস্তান টেস্ট খেলতে এসেছে বাংলাদেশে। কাবুলিওয়ালাদের ক্রিকেট ইতিহাসের মাত্র তৃতীয় টেস্ট, বাংলাদেশের সঙ্গে প্রথম। পাঁচ বছরে ঢাকার বাতাসে সিসার পরিমাণ আরো বেড়েছে, আফগানিস্তানেও ঢের বোমা ফুটেছে। তবে এরই সঙ্গে সীমিত ওভারের ক্রিকেটে বাংলাদেশকে বেশ কয়েকবারই হারিয়েছে আফগানিস্তান, ওয়ানডে এবং টি-টোয়েন্টিতে। 

বয়স বিতর্ক ঘিরে আছে রশিদ খানকে। রশিদের বয়স নিয়ে বানানো চুটকি পড়ে হাসি এলেও মাঠে তাঁকে খেলতে গিয়ে অনেকেরই সেই হাসি পালিয়েছে। প্রস্তুতি ম্যাচেও রশিদের ঘূর্ণির সামনে নাকাল বিসিবি একাদশের ব্যাটসম্যানরা। চট্টগ্রাম টেস্টে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদেরও সেভাবেই নাকাল করার প্রত্যয় রশিদের, ‘আমরা পরস্পরকে খুব ভালো করে জানি। আমরা অনেকগুলো ওয়ানডে আর টি-টোয়েন্টি খেলেছি। আমরা তাদের বোলারদের জানি, ব্যাটসম্যানদেরও জানি। তারাও আমাদের সম্পর্কে জানে। তাই দারুণ একটা লড়াই হবে।’

রশিদ জানেন চট্টগ্রাম থেকে সুখকর কোনো স্মৃতি নিয়ে ফেরার পথে মূল বাধার নাম সাকিব আল হাসান। হায়দরাবাদ সানরাইজার্সে দুই মৌসুম একসঙ্গে খেলেছেন। সেই সূত্রেই জানেন, বাংলাদেশের সবচেয়ে মূল্যবান উইকেটটার নাম সাকিব, ‘আশা করছি বিশ্বকাপে সাকিব যা করেছে তা সে ভুলে যাবে। আমরা চেষ্টা করব তাকে দ্রুত আউট করতে। এটা বেশ মজা হবে। আমরা দুই মৌসুম একসঙ্গে খেলেছি, মজা করেছি। মাঠে ও মাঠের বাইরে। আমাদের মধ্যে ভালো বন্ধুত্ব আছে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা