kalerkantho

শুক্রবার । ১৫ নভেম্বর ২০১৯। ৩০ কার্তিক ১৪২৬। ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

তাজিক ক্লাবের কাছে বাংলাদেশের হার

ক্রীড়া প্রতিবেদক   

৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০২:৩২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



তাজিক ক্লাবের কাছে বাংলাদেশের হার

তাজিকিস্তানের এফসি কুকতোশের বিপক্ষেই কুঁকড়ে গেছে বাংলাদেশ দল। তাজিকিস্তানের এই ক্লাব দলের কাছে গতকাল ২-০ গোলে হেরেছে তারা।

দুশানবেতে আগামী ১০ তারিখ বাংলাদেশের বিশ্বকাপ বাছাই পর্ব শুরু হচ্ছে আফগানিস্তানের বিপক্ষে। এই ম্যাচকে সামনে রেখে জেমি ডে তাঁর দল নিয়ে পরীক্ষায় নামেন তাজিক লিগের তিন নম্বর দলের বিপক্ষে। মাঠে নেমে দেখা যায়, এই ক্লাব প্রতিপক্ষও অনেক কঠিন বাংলাদেশের জন্য।

আফগানিস্তান ম্যাচে মূলত তাদের রক্ষণাত্মক কৌশলে কাউন্টার অ্যাটাকে যাওয়ার পরিকল্পনা। এ কৌশলের প্রথম পরীক্ষায় ফেল মেরেছে জেমি ডের দল। ১২ মিনিটে প্রতিপক্ষ এগিয়ে যায় মহিউদ্দিনের গোলে। এরপর দ্বিতীয়ার্ধে হজম করে আরেক গোল, ৬৩ মিনিটে গোল করেন সবির। 
প্রথমার্ধে খেলেছে রহমত, ইয়াসিন, বিশ্বনাথ, রাফিদের গড়া ব্যাকলাইন। সেটা দ্বিতীয়ার্ধে বদলে যাওয়ারই কথা। ম্যাচের আগেই বাংলাদেশের ইংলিশ কোচ স্কোয়াডের সবাইকে খেলানোর কথা বলেছিলেন। বিরতির পর অনেক অদলবদল করেও ভাগ্য ফেরাতে পারেননি কোচ।

তবে একটা ধারণা তিনি পেয়েছেন খেলোয়াড়দের পারফরম্যান্সের। সদ্য লিগ শেষ করে তাঁরা জাতীয় দলের ক্যাম্পে যোগ দিয়েছেন, আবার তাজিকিস্তানে পৌঁছনোর এক দিন বাদেই তাঁরা ম্যাচ খেলতে নামেন। স্বাভাবিকভাবে ক্লান্ত ছিলেন সবাই। বাংলাদেশ কোচ নিশ্চয়ই পরের ম্যাচে খেলোয়াড়দের কাছ থেকে সেরাটা প্রত্যাশা করেন।

আগামীকাল আরেকটি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ সিএসকেএ মিনারের বিপক্ষে। লিগ স্ট্যান্ডিং অনুযায়ী এটি কুকতোশের চেয়ে কমজোরি, এই ম্যাচে হবে তাদের শেষ পরীক্ষা। আফগানিস্তানের বিপক্ষে বড় পরীক্ষায় নামার আগে কোচ চাইছেন তাঁর ব্যাকলাইনে আত্মবিশ্বাস জোগাতে। কারণ গত ৪০ বছরে আফগানদের বিপক্ষে কোনো জয় নেই বাংলাদেশের। 

তা ছাড়া র‍্যাংকিংয়েও তারা এগিয়ে। সুতরাং এমন কঠিন প্রতিপক্ষের সঙ্গে খেলতে নামলে প্রথম কাজ হবে ঠিকঠাক রক্ষণ সামলানো। সঙ্গে টার্ফের মাঠে খেলাও বড় চ্যালেঞ্জ বৈকি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা