kalerkantho

ফিক্সিং : দুর্দান্ত প্রতিভার ক্যারিয়ার থেমেছিল এক ম্যাচেই!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৮ আগস্ট, ২০১৯ ১৭:৩৫ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ফিক্সিং : দুর্দান্ত প্রতিভার ক্যারিয়ার থেমেছিল এক ম্যাচেই!

ক্রিকেট অনেক সময় ভাগ্যের খেলা। দুর্দান্ত পারফর্মেন্স করেও অনেকে ঠাঁই পান না জাতীয় দলে। এছাড়া ক্রিকেটের অন্ধকার দিকটিতে নজর দিলে বেরিয়ে আসে অনেক অনাকাঙ্খিত ঘটনা। যেমন অজয় শর্মা। ভারতের এই তারকা ব্যাটসম্যান প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট খেলতে শুর করেন ১৯৮৪ সালে। ১৭ বছর ধরে খেলে ঘরোয়া ক্রিকেটে করেছেন ১০,১২০ রান, লিস্ট 'এ' তে ২৮১৪ রান। কিন্তু জাতীয় দলের হয়ে খেলেছেন মাত্র ১টি ম্যাচ! কিন্তু কেন?

ঘরোয়া ক্রিকেটের ইতিহাসে সারা বিশ্বে দশ হাজার পার করা ক্রিকেটারদের মধ্যে এখন পর্যন্ত গড়ের হিসেবে তৃতীয় (৬৭.৪৬) অজয় শর্মা। সামনে শুধুই ডন ব্র্যাডম্যান (৯৫.১৪) ও বিজয় মার্চেন্ট (৭১.২২)। করেছেন ৩৮টি সেঞ্চুরি। ২০০১ সালে শেষবারের জন্য তাকে ব্যাট হাতে দেখা যায়। রঞ্জিতে খেলেছেন ১২৯টি ম্যাচ। লিস্ট 'এ' ম্যাচ খেলেছেন ১১৩টি।

বল হাতেও কম যেতেন না অজয়। বাঁহাতি স্পিনে প্রথম শ্রেণিতে নিয়েছেন ৮৭টি উইকেট এবং লিস্ট 'এ' তে ১০৮টি উইকেট। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ইডেনে জাতীয় দলের হয়ে ওয়ানডে অভিষেক হয় তার। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে তাকে প্রথমবারের জন্য দেখা যায় ১৯৮৮ সালের ২ জানুয়ারি। যদিও সেই ম্যাচে ব্যাট করার সুযোগই পাননি তিনি। দুই ওভার বল করলেও উইকেট পাননি। ম্যাচটি ভারত জিতে নিয়েছিল ৫৬ রানে।

অধিনায়ক রবি শাস্ত্রীর ভারতের হয়ে সেই সফরেই একমাত্র টেস্ট খেলার সুযোগ পান তিনি। প্রথম ইনিংসে ৩০ ও পরের ইনিংসে ২৩ রান করেন। বল হাতে উইকেট পাননি। তবে সেই প্রথম সুযোগই তার শেষ সুযোগ হয়ে রয়ে যায়। একদিনের ক্রিকেটে ৩১টি ম্যাচ খেলার সুযোগ পেলেও টেস্ট ক্রিকেটে তিনি থেকে যান ব্রাত্য। একদিনের ক্রিকেটে করেন ৪২৪ রান, গড় ২০.১৯ এবং পান ১৫টি উইকেট। একদিনের ক্রিকেটে শেষ ম্যাচ খেলেন ১৯৯৩ সালে। সে বারেও প্রতিপক্ষ সেই ওয়েস্ট ইন্ডিজ। আজহারের ভারত সে বারের বৃষ্টি বিঘ্নিত ম্যাচে হেরে যায় ৬৯ রানে।

২০০০ সালে ম্যাচ ফিক্সিং কাণ্ডে নাম জড়ায় অজয়ের। থেমে যায় তার ক্রিকেট ক্যারিয়ার। সমস্ত ধরনের ক্রিকেট থেকে তাকে নির্বাসিত করে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। যদিও ২০১৪ সালে তাকে সেই সমস্ত অভিযোগ থেকে মুক্তি দেওয়া হয়। তখন তার বয়স ৫০। তখন আর নিজের নয়, তিনি তার ছেলে মনন শর্মার ক্রিকেট জীবন নিয়ে বেশি চিন্তিত। ২৮ বছরের মনন ভারতীয় দলে না খেললেও খেলেছেন দিল্লি, ভারত অনূর্ধ্ব-১৯ এবং কলকাতা নাইট রাইডার্সে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা