kalerkantho

বিশ্বকাপ থেকে বাদ পড়া নিকৃষ্টতম স্মৃতি : শাস্ত্রী

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৮ আগস্ট, ২০১৯ ১৫:৪৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বিশ্বকাপ থেকে বাদ পড়া নিকৃষ্টতম স্মৃতি : শাস্ত্রী

বিশ্বকাপ সেমিফাইনালের সেই ম্যাচটির দৃশ্য। ছবি : এএফপি

গত ওয়ানডে বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল থেকে বিদায় নিতে হয়েছে ভারতকে। এই বিদায়টাই সবচেয়ে হতাশাজনক মনে হয়েছে কোচ রবি শাস্ত্রীর কারছে। ভারতের জাতীয় দলে দ্বিতীয়বারের মতো প্রধান কোচ হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন তিনি। গত শুক্রবার আনুষ্ঠানিকভাবে এই ঘোষণা দেওয়া হয়। তারপরেই রবি শাস্ত্রী এক সাক্ষাৎকারে জানিয়ে দিলেন, বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে নিউজিল্যান্ডের কাছে হার তার কোচিং ক্যারিয়ারের সবথেকে নিকৃষ্টতম স্মৃতি।

বিশ্বকাপের ট্র্যাজিক রানারআপ নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সেমিফাইনালের ওই ম্যাচ নিয়ে শাস্ত্রী বলেন, 'বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল হারটা শেষ দুই বছরে সবচেয়ে খারাপ পারফরম্যান্স। নিকৃষ্টতম। সেই ৩০ মিনিটই যেন আমার পুরো জীবনটাই পরিবর্তন করে দিয়েছিল। আমরা ম্যাচে একসময় ভালোভাবেই ছিলাম। তবে হটাৎ করেই ম্যাচটা বেরিয়ে গিয়েছিল।'

বিশ্বকাপের শেষ চারে ছিটকে যাওয়ার স্মৃতি এখনও দগদগে ঘা হয়ে রয়েছে রবি শাস্ত্রীর মনে। তিনি আরও বলেন, 'পুরো টুর্নামেন্ট জুড়েই আমরা ভালো ক্রিকেট খেলেছি। অন্য দলের তুলনায় আমরা বেশি ম্যাচ জিতেছিলাম। গ্রুপ পর্বে শীর্ষ স্থানে থেকে সেমিফাইনালে উঠেছিলাম। এই পারফরম্যান্সই আমাদের দাপট বুঝিয়ে দেওয়ার পক্ষে যথেষ্ট। তারপরেই অঘটন। এটাই অবশ্য খেলা। একটা খারাপ দিন, একটা খারাপ সেশন। এতেই আমরা ছিটকে গেলাম।'

বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে যাওয়ার পরেই রবি শাস্ত্রীর কোচিং ক্যারিয়ার নিয়ে প্রশ্ন উঠে গিয়েছিল। বিশ্বকাপ পর্যন্তই চুক্তি ছিল শাস্ত্রীর সঙ্গে। প্রাথমিকভাবে ধরে নেওয়া হয়েছিল, শাস্ত্রীর চুক্তি হয়তো আর বাড়ানো হবে না। তবে বিশ্বকাপের পরেই ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফর পর্যন্ত ৪৫ দিনের চুক্তি বাড়ানো হয়েছিল। এর মাঝেই নতুন কোচ বাছাইয়ের কাজ চলছিল। ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের পক্ষ থেকে কপিল দেব, শান্তা রঙ্গনাথন এবং অংশুমান গায়কোয়াড়দের ক্রিকেট উপদেষ্টা কমিটি গঠন করা হয়েছিল।

ভারতের কোচ হওয়ার জন্য ২-হাজারেরও বেশি আবেদনপত্র জমা পড়েছিল। সেখান থেকে ঝাড়াই বাছাই করে ৬ জনকে বেছে নেওয়া হয়েছিল চূড়ান্ত বাছাইয়ের জন্য। মাইক হেসন, ফিল সিমন্স, টম মুডি, রবিন সিং এবং লালচাঁদ রাজপুতকে ফেলে অবশ্য শেষ পর্যন্ত বেছে নেওয়া হয় রবি শাস্ত্রীকে। রবি শাস্ত্রীর কোচ হিসেবে সাফল্যের ধারাবাহিকতাই তাকে পুনরায় কোচের পদে বসতে সাহায্য করেছে, এমনটাই জানিয়েছেন বাছাই কমিটির প্রধান কপিল দেব।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা