kalerkantho

রবিবার। ১৮ আগস্ট ২০১৯। ৩ ভাদ্র ১৪২৬। ১৬ জিলহজ ১৪৪০

ভাগ্যিস ড্রেসিংরুমে ক্রিকেটারদের জন্য বিয়ার ছিল : ম্যাককালাম

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২০ জুলাই, ২০১৯ ১৯:০৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ভাগ্যিস ড্রেসিংরুমে ক্রিকেটারদের জন্য বিয়ার ছিল : ম্যাককালাম

বিশ্বকাপের ফাইনালে পরাজয়ের বেদনা কেমন তা বেশ ভালোভাবেই জানে সাবেক বিধ্বংসী কিউই ব্যাটসম্যান ব্রেন্ডন ম্যাককালাম। কারণ ২০১৫ সালে ম্যাককালামের নেতৃত্বেই দুর্দান্ত পারফর্মেন্স দেখিয়ে ফাইনালে উঠেছিল কিউইরা। কিন্তু মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে (এমসিজি) অস্ট্রেলিয়ার কাছে ৭ উইকেটে হেরে শিরোপা বঞ্চিত হয় তার দল। ২০১৫ সালে ম্যাককালামের দলটি রাগবি পাগল দেশটিকে আকষ্মিকভাবেই ক্রিকেটের দিকে ঘুরিয়ে দেয়। এবার কেন উইলিয়ামসনের দলটিও একই কাজ করতে সক্ষম হয়েছে। 

চার বছর পর ফের বিশ্বকাপের ফাইনালে উঠেছিল নিউজিল্যান্ড। লর্ডসে অনুষ্ঠিত এবারের ম্যাচটি টাই হয়। প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপের ফাইনালে শিরোপা নিষ্পত্তি হয় সুপার ওভারে। সেখানেও কেউ কাউকে হারাতে পারেনি। শেষ পর্যন্ত বিতর্কিত আইনে বাউন্ডারির দৌঁড়ে পিছিয়ে পড়ে স্বাগতিক ইংল্যান্ডের কাছে শিরোপা হারায় ব্ল্যাক ক্যাপসরা। ম্যাককালাম মনে করেন লর্ডসের ওই স্মৃতি ভুলে ফের এগিয়ে যাবে নিউজিল্যান্ডের ক্রিকেট। 

তিনি স্থানীয় গণমাধ্যমকে বলেন, 'এবারের ঘটনাটি (ফাইনাল ম্যাচ) ছেলেদের কঠিন পরিস্থিতিতে ফেলে দিয়েছে। ভাগ্য ভালো যে ড্রেসিংরুমে তাদের জন্য বিয়ার ছিল। অন্যথায় তারা মানসিকভাবে আরো ভেঙ্গে পড়ত। অথচ তারা যেভাবে খেলেছে এবং যা করে দেখিয়েছে তা গর্ব করার মতে। এখনো ব্যর্থতার দগদগে ক্ষত তাদের তাড়িয়ে বেড়াচ্ছে। কিন্ত সময় যখন গড়াবে, মাস বা বছর পর তারা অনুধাবন করতে পারবে কি অসাধারণ খেলাই না তারা খেলেছে। তাও আবার সর্ববৃহৎ মঞ্চে। তারা যা খেলেছে তা এক কথায় দুর্দান্ত।'

২০১৫ সালের এমসিজির ফাইনাল ম্যাচটিকে 'সুযোগ হারানো' বলে উল্লেখ করেছেন ম্যাককালাম। তবে ওই ফলাফলের পরও তৃপ্ত ছিলেন তারা। ম্যাককালাম বলেন, 'হ্যাঁ বিশ্বকাপের শিরোপা অর্জন করতে পারাটা দারুণ ব্যাপার। তবে আমি সব সময় বলে থাকি খেলাকে আপনি নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন না। তবে আপনি হচ্ছেন ওই ম্যাচের একজন মানুষ এবং একটি চরিত্র। দলটি পরাজয়কে যেভাবে সামাল দিয়েছে এবং গোটা টুর্নামেন্ট জুড়ে যেভাবে সফলতা দেখিয়েছে, তাতে আমি সন্তুষ্ট।'

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা