kalerkantho

সোমবার। ১৯ আগস্ট ২০১৯। ৪ ভাদ্র ১৪২৬। ১৭ জিলহজ ১৪৪০

ইংল্যান্ডকে ৬ রান দেওয়া ধর্মসেনার 'পরিস্কার ভুল' ছিল : সাবেক আম্পায়ার টাফেল

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৫ জুলাই, ২০১৯ ১৬:৫৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ইংল্যান্ডকে ৬ রান দেওয়া ধর্মসেনার 'পরিস্কার ভুল' ছিল : সাবেক আম্পায়ার টাফেল

ইংল্যান্ড বিশ্বকাপ নিন্দিত হয়ে থাকবে বাজে আম্পায়ারিংয়ের জন্য। আলিম দার, কুমার ধর্মসেনার মতো তথাকথিত 'এলিট প্যানেলের' আম্পায়াররা নিন্দনীয় সব ভুল সিদ্ধান্ত দিয়েছেন। গতকাল রবিবার ফাইনালের মতো ম্যাচেও ভুল সিদ্ধান্ত দিয়ে গেছেন কুমার ধর্মসেনা। ইংল্যান্ডের জয়ের পর এই লঙ্কান আম্পায়ারের সমালোচনায় মেতেছে গোটা বিশ্ব। সাবেক খ্যাতিমান আম্পায়ার সাইমন টাফেলও সমালোচনা করেছেন ধর্মসেনার।

গতকাল নিউজিল্যান্ডের কপাল পুড়েছে ইংল্যান্ডের ইনিংসের শেষ ওভারের চতুর্থ বলে। ট্রেন্ট বোল্টের করা ওই ওভারে স্ট্রাইকিং প্রান্তে ছিলেন বেন স্টোকস। চার নম্বর বলটি ডিপ মিড উইকেটে পাঠিয়েই দৌঁড় শুরু করেন তিনি। মার্টিন গাপটিলের থ্রো দূর্ভাগ্যক্রমে স্টোকসের ব্যাটে আঘাত করে থার্ড ম্যান দিয়ে বাউন্ডারির বাইরে চলে যায়। এর আগেই দুই বার প্রান্ত বদলের চেষ্টা করেন স্টোকস এবং আদিল রশিদ। আম্পায়ার ধর্মসেনা ওই বলে ৬ রান ঘোষণা করেন! এই ৬ রান নিয়েই ক্রিকেটবিশ্বে তুমুল বিতর্ক।

আইসিসির পাঁচবারের বর্ষসেরা আম্পায়ার টাফেল মনে করছেন, ধর্মসেনার এমন সিদ্ধান্ত পরিস্কার ভুল এবং আইসিসির আইন পরিপন্থী। তার যুক্তি, আইসসিসির আইনের ১৯.৮ ধারা অনুযায়ী ওভার থ্রোতে বাউন্ডারি হয়ে গেলে আগের সম্পন্ন করা রানই শুধুমাত্র যোগ হবে। অর্থাৎ গাপটিল বল ছোড়ার আগে স্টোকস-রশিদ যে রান নিয়েছেন, সেই রানই যোগ হবে। প্রথম রান তারা সম্পন্ন করলেও দ্বিতীয় রান সম্পন্ন করেননি। তাই পরের সেই রানটি যোগ হওয়ার সুযোগ নেই।

টাফেল বলেন, 'এটা পরিস্কার ভুল সিদ্ধান্ত; ভুল বিশ্লেষণ। আইসিসির আইনের স্পষ্ট লংঘন। আইন অনুযায়ী ওই বলে ইংল্যান্ডের ৫ রান পাওয়া উচিত ছিল।' সত্যিকার অর্থে, ওই বলে ১ রান কম হলে হয়তোবা বিশ্বচ্যাম্পিয়নের মুকুট উঠত কিউইদের মাথায়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা