kalerkantho

শুক্রবার । ১৯ জুলাই ২০১৯। ৪ শ্রাবণ ১৪২৬। ১৫ জিলকদ ১৪৪০

বিশ্বকাপ সেমিফাইনালের প্রভাব পড়বে অ্যাশেজে

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১২ জুলাই, ২০১৯ ১৯:২৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বিশ্বকাপ সেমিফাইনালের প্রভাব পড়বে অ্যাশেজে

ছবি : এএফপি

বিশ্বকাপ ক্রিকেটের সেমি-ফাইনালে ইংল্যন্ডের কাছে অস্ট্রেলিয়া পরাজিত হওয়ায় আসন্ন অ্যাশেজ সিরিজেও এর প্রভাব পড়বে বলে শুক্রবার অজি গণমাধ্যমে প্রকাশিত রিপোর্টে দাবী করা হয়েছে। এজবাস্টনে বৃহস্পতিবার অস্ট্রেলিয়াকে ৮ উইকেটে হারিয়ে আগামী রবিবারের ফাইনালে জায়গা করে নিয়েছে স্বাগতিক ইংল্যান্ড। লর্ডসে ফাইনালে নিউজিল্যান্ডের মোকাবেলা করবে তারা। 

দ্য এজ পত্রিকায় জন পিয়েকে বলেছেন, পাঁচ বারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা একপেশে ওই পরাজয়ের পর 'খোলসবন্দী' হয়ে যেতে পারে। সামান্য একটি ইনজুরি অস্ট্রেলিয়ার প্রেরনাকে বাঁধাগ্রস্ত করেছে। তিনি লিখেছেন, 'ম্যানচেস্টারে নেটে অনুশীলনের সময় সামান্য চোট পেয়েছিলেন শন মার্স ও গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। এরই প্রভাব পড়েছিল খেলায়। দুইদিন পর উসমান খাজার হ্যামস্ট্রিংয় চোট পেলে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে দ্বিতীয় হারের স্বাদ পায় অস্ট্রেলিয়া।'

এবিসি ক্রিকেট করেসপন্ডেন্ট জিওফ লেমন বলেন, ইংল্যান্ডের বোলিং আক্রমণের কোনো জবাবই দিতে পারেনি অস্ট্রেলিয়ার দুর্বল হয়ে যাওয়া লাইনআপ। পরে দারুন ব্যাটিংয়ের সাহায্যে সাফল্য লাভ করে ইংল্যান্ড। অস্টম সেমি-ফাইনালে এসে প্রথমবারের অস্ট্রেলিয়ার এই পরাজয়ের ঘটনায় তিনি বলেন, 'ইংলিশ বোলাররা যথা সময়ে জ্বলে উঠেছিল। সঠিক নিশানায় বোলিং দিয়ে ইংলিশরা উত্তাপ ছড়িয়ে দেয়।'

গত মাসেই সাবেক অজি অধিনায়ক মার্ক টেইলর সতর্ক করে দিয়ে বলেছিলেন বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের কাছে ব্যর্থ হলে তার প্রভাব পড়বে অ্যাশেজ সিরিজে। কারণ এতে তাদের আত্মবিশ্বাসে চিড় ধরবে।' বিশ্বকাপ শেষে শুরু হচ্ছে অ্যাশেজ সিরিজ। তবে এজবাস্টনে ইংল্যান্ড দলের দাপট দেখে দ্য অস্ট্রেলিয়ান এর জ্যাকুয়েলিন ম্যাগনি সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, তারা তলানী থেকে উঠে আসছে, যা ভয়ের কারন। তিনি লিখেছেন, 'অস্ট্রেলিয়ার এই পরাজয় আসন্ন অ্যাশেজ সিরিজের জন্য সতর্ক সংকেত। যদিও এক বছরের আগের তুলনায় প্রত্যাশার চেয়ে বেশি উন্নতি লাভ করেছে অস্ট্রেলিয় দল।'

সিরিষ কাগজ বল টেম্পারিং কেলেঙ্কারির পর গত বছর দলের মধ্যে যে বিশৃঙ্খল পরিবেশের সৃষ্টি হয়েছিল সেখান থেকে এই আসরে দল ইতিবাচক অনেক কিছুই দেখিয়েছে বলে মনে করেন ম্যাগনি। তিনি লিখেছেন,' অ্যারন ফিঞ্চের নেতৃত্ব, স্টিভ স্মিথের দৃঢ়তা এবং মিডল অর্ডার অভিজাত ব্যাটসম্যান হিসেবে অ্যালেক্স ক্যারির অগ্রাভিযান, সবকিছুই এই টুর্নামেন্ট থেকে অস্ট্রেলিয়ার বড় প্রাপ্তি।
তবে চাপের মধ্যে ব্যাটিং অর্ডারের ভঙ্গুরতা ভয়ের কারণ হয়ে উঠেছে।'

মন্তব্য