kalerkantho

বুধবার । ২১ আগস্ট ২০১৯। ৬ ভাদ্র ১৪২৬। ১৯ জিলহজ ১৪৪০

পুলিশ ও সংসার সামলে রাগবিতে ছন্দ তোলেন সঙ্গীতা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৬ জুন, ২০১৯ ১৭:৪৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পুলিশ ও সংসার সামলে রাগবিতে ছন্দ তোলেন সঙ্গীতা

তিনি সঙ্গীতা বেরা

৩২ বছর বয়সী সঙ্গীতা ভারতীয় মহিলা রাগবি দলের সবচেয়ে বর্ষীয়ান এবং অভিজ্ঞ খেলোয়াড়। ১০ বছর আগে যখন বাংলায় (কলকাতা) প্রথম রাগবি খেলা শুরু হয়, তখন থেকেই এই খেলার সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছেন সঙ্গীতা। এক সময় অ্যাথলেটিক্স করতেন নিয়মিত। নতুন খেলা রাগবির চ্যালেঞ্জও তাঁকে হাতছানি দিয়েছিল। শারীরিক সক্ষমতা এবং প্রতিভার জোরে রাগবি দলের সদস্য হয়ে উঠতে কোনো অসুবিধেই হয়নি তাঁর। এরপর থেকে গত ৮ বছর ধরে ভারতীয় দলের নিয়মিত সদস্যা সঙ্গীতা।

গত শনিবার, ফিলিপিন্সের রাজধানী ম্যানিলায় ইতিহাস গড়লেন ভারতের জাতীয় মহিলা রাগবি দলের খেলোয়াড়েরা। এশিয়ান উইমেন্স ডিভিশন ওয়ান রাগবি চ্যাম্পিয়নশিপের ফিফটিন এ সাইড টুর্নামেন্টে সিঙ্গাপুরকে ২১-১৯ ফলাফলে হারিয়ে তাঁরা দখল করে নেন তৃতীয় স্থান। ফিলিপিন্স এশিয়ার এক নম্বর দল। তাঁদেরকে হারিয়ে পদক জেতা নিঃসন্দেহে বিরাট কৃতিত্বের। ভারতীয় মহিলা রাগবি দলের এটাই প্রথম আন্তর্জাতিক পদক। এর ফলে, ২০২১ সালে বিশ্ব রাগবি প্রতিযোগিতায় খেলার ক্ষেত্রেও বাড়তি সুযোগ পাবে তাঁরা। শুধু এশীয় পর্যায়ে নয়, গোটা বিশ্বের রাগবি মহলেই হইচই পড়ে গেছে ভারতীয় মহিলা দলের এই সাফল্যে।

ভারতীয় দলের এই সাফল্যের অন্যতম অংশীদার কলকাতা পুলিশের গোয়েন্দা দপ্তরের একজন অ্যাসিস্ট্যান্ট সাব ইনস্পেকটরও। সঙ্গীতা বেরা। গোয়েন্দা দপ্তরের রিজার্ভ অফিসে কর্মরতা এই অফিসার ভারতীয় মহিলা রাগবি দলের অন্যতম প্রধান মুখ।

যদিও সঙ্গীতার চলার পথটি মোটেই সহজ ছিল না। একদিকে কলকাতা পুলিশের দায়িত্বভার, অন্যদিকে বিবাহিত জীবন। সাড়ে তিন বছরের একটি সন্তানও রয়েছে তাঁর। রাগবির মতো একটি চূড়ান্ত শারীরিক সক্ষমতার খেলার জন্য এর মধ্যেই নিজেকে তিলে তিলে প্রস্তুত করেছেন সঙ্গীতা। মা হওয়ার পরেও বিরতি নেননি রাগবি থেকে। বরং ভারতীয় দলে জায়গা ধরে রেখেছেন কঠোর পরিশ্রমে। অংশ নিয়েছেন প্রতিটা বড় টুর্নামেন্টেই। আর সাম্প্রতিক এশিয়ান উইমেন্স ডিভিশন ওয়ান রাগবি চ্যাম্পিয়নশিপে তো তাঁর পারফরমেন্স রীতিমতো চমকে দেওয়ার মতো।

সঙ্গীতার এই লড়াইতে যথাসম্ভব পাশে থাকার চেষ্টা করেছি আমরাও। তাঁর ট্রেনিং এর জন্য প্রয়োজনীয় ছুটির ব্যবস্থা করা হয়েছে। রাগবির প্রতি সঙ্গীতার দায়বদ্ধতাকে আমরা সম্মান জানিয়েছি। উৎসাহও দিয়েছি সাধ্যমতো। বিনিময়ে এশিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপের মঞ্চে নিজেকে উজাড় করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন সঙ্গীতা। কথা রেখেছেন। 

(কলকাতা পুলিশের ফেসবুক পেজ থেকে সংগৃহিত)

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা