kalerkantho

সোমবার । ২২ জুলাই ২০১৯। ৭ শ্রাবণ ১৪২৬। ১৮ জিলকদ ১৪৪০

স্মিথ আমার বন্ধু, কিন্তু খেলার মাঠে নয় : আর্চার

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৪ জুন, ২০১৯ ১৯:৪৪ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



স্মিথ আমার বন্ধু, কিন্তু খেলার মাঠে নয় : আর্চার

বিশ্বকাপে মঙ্গলবার প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার সময় ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) ক্লাব সতীর্থ স্টিভ স্মিথের সঙ্গে কোন বন্ধুত্বপূর্ণ আচরণ করতে চান না বলে মন্তব্য করেছেন ইংল্যান্ড ফাস্ট বোলার জোফরা আর্চার। আইপিএলের ফ্যাঞ্চাইজি রাজস্থান রয়্যোলসে এ বছর আর্চারের সঙ্গে খেলেছেন ইংল্যান্ডের আরো দুই সতীর্থ জস বাটলার ও বেন স্টোকস। যে দলে ছিলেন স্মিথও। কিন্তু চলতি মৌসুমের বাকী সময় ইংলিশ ত্রিমুর্তির প্রতিপক্ষ হিসেবেই লড়বেন স্মিথ। বিশ্বকাপের পর অ্যাশেজ সিরিজে অংশ নেবে ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়া।

এদিকে টুর্নামেন্টের শুরুতে পাকিস্তানের কাছে হারের পর শ্রীলঙ্কার কাছে বিষ্ময়কর পরাজয়ে হুমকিতে পড়েছে ইংল্যান্ডের শেষ চারে অংশগ্রহণ। যে কারণে মঙ্গলবারের ম্যাচটি হবে তাদের জন্য বেশ গুরুত্বপূর্ণ। স্মিথকে বন্ধু মনে করেন কিনা জানতে চাইলে জবাবে আর্চার বলেন, 'হ্যাঁ, এবং আমি মনে করি সেও আমাকে একই ভাবে বন্ধু মনে করে। সে সত্যি ভালো মানুষ। তবে ক্রিকেট ক্রিকেটই। এখানে বন্ধুত্ব প্রকাশের কোনো সুযোগ নেই।'

বল টেম্পারিংয়ের অপরাধে বছরব্যাপী নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে দলে ফেরার পর স্মিথ ও তার অস্ট্রেলিয় সতীর্থ ডেভিড ওয়ার্নারকে দর্শকদের কাছ থেকে প্রচুর বিদ্রুপ সহ্য করতে হয়েছে। কিন্তু এসব বিদ্রুপ আমলে নেননি তারা। টুর্নামেন্টে এ পর্যন্ত দুটি সেঞ্চুরি হাকিয়ে ওয়ার্নার নিজের সেরাটা খুঁজে ফিরছেন। আর্চার আশা করছেন, তার গতিময় পেস বোলিং এবং নিজস্ব কিছু জ্ঞান লর্ডসে কার্যকর হবে। অবশ্য রাজস্থানে খেলার সময় তার বলের মোকাবেলা করতে হয়নি স্মিথকে। এমনকি নেট অনুশীলনেও খুব একটা বল করেননি।

আর্চার বলেন, 'সত্যিকার অর্থে আমি তাকে খুব একটা বল করিনি। অনেকেই সম্ভবত নেটে আমার ও ক্যারিবীয় পেসার ওশানে থমাসের বলের মোকাবেলা করতে চান না। কিন্তু যখন আপনি তাদের সঙ্গে খেলবেন, তখন অবশ্যই এমন কিছু কৌশল অবলম্বন করবেন, যা সাধারণ অবস্থায় করবেন না। তাই আশা করছি আমি ও বেন একতাবদ্ধ হয়ে কিছু করব। আমার মনে হয় আমরা কিছু কিছু ক্ষেত্রে একই। সম্ভবত আমরা জানি সে যখন আসবে তখন কি করতে হবে।'

বার্বাডোজে জন্ম নেয়া আর্চার গত মার্চে ইংল্যান্ড দলের অন্তর্ভুক্ত হয়েছেন। এর অর্থ হচ্ছে আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতামুলক ম্যাচে প্রথমবারের মত অস্ট্রেলিয়ার মুখোমুখি হতে যাচ্ছেন। তিনি বলেন, 'অ্যাশেজ দেখে আমি এইটুকু বুঝতে পারছি যে দুই দলের এই লড়াইয়ে কিছু গভীরতা রয়েছে। আমি নিশ্চত নই যে অতীত অভিজ্ঞতা না থাকায় আমাকে ভুগতে হবে কিনা। তবে আমার জন্য সুবিধা হচ্ছে অতীতে আমি দলে ছিলাম না।'

রবিবার দলীয় অনুশীলনে অনুপস্থিত ছিলেন ওপেনিং ব্যাটসম্যান জেসন রয়। এতে মনে হচ্ছে হ্যামস্ট্রিং ইনজুরি থেকে তিনি এখনো পুরোপুরি মুক্তি পাননি। হয়তো অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলার আগে তিনি ফিরতে পারবেননা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা