kalerkantho

শনিবার । ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৬ রবিউস সানি               

ইনিংসের শেষ মুহূর্তে নেমে এল বৃষ্টি

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২০ জুন, ২০১৯ ১৯:১৮ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ইনিংসের শেষ মুহূর্তে নেমে এল বৃষ্টি

আগে থেকেই পূর্বাভাস ছিল, আজ বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া ম্যাচে বৃষ্টির সম্ভাবনা আছে। শেষ পর্যন্ত তা অক্ষরে অক্ষরে মিলে গেল। অজিদের ইনিংসের ৪৯তম ওভারে নেমে এল বৃষ্টি। যে কারণে খেলা আপাতত বন্ধ রয়েছে। গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে বাংলাদেশের বিপক্ষে বড় স্কোর গড়েছে টুর্নামেন্টের অন্যতম ফেবারিট অস্ট্রেলিয়া। একটা সময় মনে হয়েছিল, চারশ ছাড়িয়ে যাবে অজিদের স্কোর। তবে সেটা হয়নি। বল হাতে বাংলাদেশের যিনি সফল হয়েছেন তিনি কোনো বোলার নন; ওপেনিং ব্যাটসম্যান। হ্যাঁ, সৌম্য সরকারই তুলে নিয়েছেন ৩ উইকেট; আরেকটি রান-আউটও হয়েছে তার ওভারে। বৃষ্টির আগে ৪৯ ওভারে অজিদের সংগ্রহ ৫ উইকেটে ৩৬৮ রান

ট্রেন্ট ব্রিজে টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে উড়ন্ত সূচনা করে অস্ট্রেলিয়ার দুই ওপেনার অ্যারন ফিঞ্চ এবং ডেভিড ওয়ার্নার। ব্যক্তিগত ১০ রানে সাব্বিরের হাতে ক্যাচ দিয়েও ওয়ার্নার বেঁচে যান। ফলে ওপেনিং জুটি লম্বা হতে হতে একশ ছাড়িয়ে যায়। ৪৭ বলে হাফ সেঞ্চুরি তুলে নেন ফিঞ্চ এবং ৫৫ বলে হাফ সেঞ্চুরি পূরণ করেন ওয়ার্নার। শেষ পর্যন্ত ফিঞ্চকে (৫৩) রুবেল হোসেনের তালুবন্দি করে ১২১ রানের এই জুটি ভাঙেন পার্টটাইম বোলার সৌম্য সরকার।

জীবন পেয়ে সেটাকে তিন অংকে নিয়ে যান ওয়ার্নার। ক্যারিয়ারের ১৬তম এবং চলতি বিশ্বকাপে দ্বিতীয় সেঞ্চুরি তুলে নিতে ভয়ংকর এই হার্ডহিটার খেলেন ১১০ বল; হাঁকিয়েছেন ৭ চার এবং ২ ছক্কা। এর পরে আরও ভয়ংকর হয়ে ওঠেন ওয়ার্নার। মাত্র ২৯ বলে পরবর্তী ফিফটি করে নিজের ইনিংসকে দেড়শ ছাড়িয়ে নেন। অ্যারন ফিঞ্চের পর দেড়শ ছাড়ানো রান কর ডেভিড ওয়ার্নারকেও ফেরত পাঠিয়েছেন সৌম্য। ১৪৭ বলে ১৪ চার ৫ ছক্কায় ১৬৬ রানের বিধ্বংসী ইনিংস খেলা ওয়ার্নার সৌম্যর বলে ক্যাচ তুলে দেন রুবেল হোসেনের হাতে।

স্লগ ওভারে বেদম প্রহার শুরু করেন গ্লেন ম্যাক্সওয়েল আর উসমান খাজা। ইতিমধ্যেই খাজা হাফ সেঞ্চুরি পূরণ করেছেন। ভয়ংকর ম্যাক্সওয়েল তখন ৯ বলে ২ চার ৩ ছক্কায় ৩২ করে ফেলেছেন। তখন আবারও মঞ্চে আবির্ভাব সৌম্য-রুবেল জুটির। সৌম্যর করা ৪৭তম ওভারের দ্বিতীয় বলে রান নেওয়া নিয়ে ভুল বোঝাবুঝিতে রুবেলের সরাসরি থ্রোতে রান-আউট হয়ে যান ম্যাক্সওয়েল। ৭২ বলে ৮৯ করা উসমান খাজাকে সেঞ্চুরি বঞ্চিত করে নিজের তৃতীয় শিকার ধরেন সৌম্য। ৪৮তম ওভারে এসে স্টিভেন স্মিথকে (১) এলবিডাব্লিউ করেন মুস্তাফিজ। রিভিউ নিয়েও বাঁচতে পারেননি স্মিথ। ৪৯তম ওভার শেষে শুরু হয় বৃষ্টি।

এই মুহূর্তে পয়েন্ট টেবিলের ৩ নম্বরে আছে অস্ট্রেলিয়া; ৫ নম্বরে আছে বাংলাদেশ। অজিদের বিপক্ষে ২০ ওয়ানডেতে বাংলাদেশের জয় মাত্র ১টিতে। কার্ডিফে ২০০৫ সালে সেই দুনিয়া কাঁপানো জয়ের দেখা পেয়েছিল টাইগাররা। অস্ট্রেলিয়া জিতেছে ১৮টিতে। ২০১৭ সালে সবশেষ ম্যাচটি ভেসে গেছে বৃষ্টিতে। বিশ্বকাপে খেলা দুই ম্যাচেই বাংলাদেশ হেরেছে বড় ব্যবধানে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা