kalerkantho

শনিবার । ২০ জুলাই ২০১৯। ৫ শ্রাবণ ১৪২৬। ১৬ জিলকদ ১৪৪০

আবার সৌম্য; আবার সাফল্য

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২০ জুন, ২০১৯ ১৮:৪২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আবার সৌম্য; আবার সাফল্য

ছবি : এএফপি

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ব্যাট হাতে নেওয়ার আগেই বল হাতে ঝলসে উঠেছেন বিধ্বংসী ওপেনার সৌম্য সরকার। দুই অজি ওপেনারই তার শিকার হয়েছেন। অ্যারন ফিঞ্চের পর দেড়শ ছাড়ানো রান কর ডেভিড ওয়ার্নারকেও ফেরত পাঠিয়েছেন সৌম্য। ১৪৭ বলে ১৪ চার ৫ ছক্কায় ১৬৬ রানের বিধ্বংসী ইনিংস খেলা ওয়ার্নার সৌম্যর বলে ক্যাচ তুলে দেন রুবেল হোসেনের হাতে। তবে অজিদের স্কোর তিনশ ছাড়িয়ে গেছে। ৪৪.৪ ওভারে তাদের সংগ্রহ ২ উইকেটে ৩১৭ রান।

ট্রেন্ট ব্রিজে টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে উড়ন্ত সূচনা করে অস্ট্রেলিয়ার দুই ওপেনার অ্যারন ফিঞ্চ এবং ডেভিড ওয়ার্নার। ব্যক্তিগত ১০ রানে সাব্বিরের হাতে ক্যাচ দিয়েও ওয়ার্নার বেঁচে যান। ফলে ওপেনিং জুটি লম্বা হতে হতে একশ ছাড়িয়ে যায়। ৪৭ বলে হাফ সেঞ্চুরি তুলে নেন ফিঞ্চ এবং ৫৫ বলে হাফ সেঞ্চুরি পূরণ করেন ওয়ার্নার। শেষ পর্যন্ত ফিঞ্চকে (৫৩) রুবেল হোসেনের তালুবন্দি করে ১২১ রানের এই জুটি ভাঙেন পার্টটাইম বোলার সৌম্য সরকার।

জীবন পেয়ে সেটাকে তিন অংকে নিয়ে যান ওয়ার্নার। ক্যারিয়ারের ১৬তম এবং চলতি বিশ্বকাপে দ্বিতীয় সেঞ্চুরি তুলে নিতে ভয়ংকর এই হার্ডহিটার খেলেন ১১০ বল; হাঁকিয়েছেন ৭ চার এবং ২ ছক্কা। এর পরে আরও ভয়ংকর হয়ে ওঠেন ওয়ার্নার। মাত্র ২৯ বলে পরবর্তী ফিফটি করে নিজের ইনিংসকে দেড়শ ছাড়িয়ে নেন। অ্যারন ফিঞ্চের পর দেড়শ ছাড়ানো রান কর ডেভিড ওয়ার্নারকেও ফেরত পাঠিয়েছেন সৌম্য। ১৪৭ বলে ১৪ চার ৫ ছক্কায় ১৬৬ রানের বিধ্বংসী ইনিংস খেলা ওয়ার্নার সৌম্যর বলে ক্যাচ তুলে দেন রুবেল হোসেনের হাতে।

এই মুহূর্তে পয়েন্ট টেবিলের ৩ নম্বরে আছে অস্ট্রেলিয়া; ৫ নম্বরে আছে বাংলাদেশ। অজিদের বিপক্ষে ২০ ওয়ানডেতে বাংলাদেশের জয় মাত্র ১টিতে। কার্ডিফে ২০০৫ সালে সেই দুনিয়া কাঁপানো জয়ের দেখা পেয়েছিল টাইগাররা। অস্ট্রেলিয়া জিতেছে ১৮টিতে। ২০১৭ সালে সবশেষ ম্যাচটি ভেসে গেছে বৃষ্টিতে। বিশ্বকাপে খেলা দুই ম্যাচেই বাংলাদেশ হেরেছে বড় ব্যবধানে।

বাংলাদেশ একাদশ: তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, লিটন দাস, মাহমুদউল্লাহ, সাব্বির রহমান, রুবেল হোসেন, মেহেদী হাসান মিরাজ, মাশরাফি বিন মুর্তজা, মুস্তাফিজুর রহমান।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা