kalerkantho

শনিবার । ২০ জুলাই ২০১৯। ৫ শ্রাবণ ১৪২৬। ১৬ জিলকদ ১৪৪০

সাকিবকে 'বিশ্বকাপের সেরা ক্রিকেটার' ঘোষণা ইংলিশ মিডিয়ার

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২০ জুন, ২০১৯ ১৭:৪৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সাকিবকে 'বিশ্বকাপের সেরা ক্রিকেটার' ঘোষণা ইংলিশ মিডিয়ার

ছবি : এএফপি

ক্রীড়া সাংবাদিকতা মানেই সমালোচক হতেই হবে। এদিক দিয়ে ব্রিটিশ মিডিয়া যেন সবাইকে ছাড়িয়ে। সহজে তারা কারও প্রশংসা করে না। ভিনদেশিদের তো নয়ই। আর খুঁত খুঁজে পেলে তো কথাই নেই; বিরামহীনভাবে পেছনে লেগে থাকবে। সেই ব্রিটিশ মিডিয়ায় এখন সাকিবের প্রশংসা! বাংলাদেশের বিশ্বসেরা অল-রাউন্ডারকে চলতি বিশ্বকাপের সেরা ক্রিকেটার হিসেবে ঘোষণা করে দিয়েছে প্রভাবশালী ব্রিটিশ দৈনিক দ্য টেলিগ্রাফ। 

চলতি বিশ্বকাপে দুর্দান্ত ফর্মে আছেন সাকিব আল হাসান। টানা চার ম্যাচে দুটি ফিফটি এবং দুটি সেঞ্চুরি করেছেন। বলা হচ্ছে, ক্যারিয়ারের সেরা ফর্মে থেকে বিশ্বকাপ খেলছেন সাকিব। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম থেকে শুরু করে প্রায় সর্বত্রই চলছে সাকিব-বন্দনা। সাবেক ক্রিকেটাররাও সাকিবকে সর্বকালের শ্রেষ্ঠ অল-রাউন্ডার হিসেবে স্বীকৃতিও দিচ্ছেন। এবার ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম টেলিগ্রাফ সাকিবকে নিয়ে বিশাল এক প্রতিবেদন করেছে। প্রতিবেদনের শিরোনাম হলো, 'কেন অবিসংবাদিতভাবে ২০১৯ বিশ্বকাপের সেরা খেলোয়াড় সাকিব?'

টানা ৪৭ ওয়ানডেতে বাংলাদেশের হারের সেই অন্ধকার সময়ের ২ বছর পর জাতীয় দলে অভিষেক হয় সাকিবের। জাতীয় দলে ঢুকেই সহজাত ব্যাটিং আর বুদ্ধিদীপ্ত বোলিং দিয়ে অপরিহার্য হয়ে ওঠেন তিনি। প্রতিবেদনে লেখা হয়েছে, 'গত বছর (২০১৮) থেকে তিনে ব্যাটিং শুরুর পর তার গড় ৫৯.৬৮। এর মধ্যে টানা সেঞ্চুরি রয়েছে ইংল্যান্ড ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে।  তার এসব ইনিংসকেও ছাপিয়ে গেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ৩২২ রান তাড়া করে জয়ের মুহূর্তটা। এ জন্যই এ বছর বিশ্বকাপে অংশ নেওয়া ১৫০ জন খেলোয়াড়ের মধ্যে শুধু একজনই অবিসংবাদিত সেরা খেলোয়াড়।'

বিশ্ব ক্রিকেটে সাকিবের যতটা মর্যাদা পাওয়ার কথা ছিল ততটা তাকে দেওয়া হয় না- এমন উল্লেখ করে কারণ বিশ্লেষণ করেছে টেলিগ্রাফ। প্রতিবেদনে লেখা হয়েছে, 'অনেকেই সাকিবকে খাটো করে দেখতে পছন্দ করে। সে যাদের সঙ্গে কিংবা বিপক্ষে খেলছে, সে জন্য তাকে খাটো করে দেখা হয় না। তার দুর্দান্ত আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের উত্থান দেখা ভক্তদের জন্যও নয়। আইপিএলে অসাধারণ প্রত্যাবর্তন অথবা ২০১৫ সালে আইসিসি র‌্যাংকিংয়ে একমাত্র খেলোয়াড় হিসেবে একই সময়ে তিন সংস্করণে শীর্ষে থাকার জন্য নয়। আসলে সাকিবকে খাটো করে দেখা হয় তিনি কোনো বড় দলের খেলোয়াড় নন বলে! এতে অনেকেই সাকিবের বৈচিত্র্যময় প্রতিভার সন্ধান পায় না।'

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা