kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৩ জুলাই ২০১৯। ৮ শ্রাবণ ১৪২৬। ১৯ জিলকদ ১৪৪০

ভোর হলেই কোপায় মুখোমুখি আর্জেন্টিনা-প্যারাগুয়ে

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৯ জুন, ২০১৯ ১৭:৪৬ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ভোর হলেই কোপায় মুখোমুখি আর্জেন্টিনা-প্যারাগুয়ে

কোপায় আগামীকাল ভোরে প্যারাগুয়ের বিপক্ষে মাঠে নামবে আর্জেন্টিনা। প্রথম ম্যাচে কলম্বিয়ার কাছে ২-০ গোলে হারার পর কিছুটা সমালোচনার মুখে আর্জেন্টিনা। কোপা আমেরিকার ইতিহাসে প্রথম ম্যাচে এটি তাদের তৃতীয় হার। 

এর আগে ‌১৯১৯, ১৯৭৯ এর পর ২০১৯ এ এসে ঘটল এমন ঘটনা। তবে এটা নিয়ে ভাবতে রাজি নয় দলের সেরা খেলোয়াড় লিওনেল মেসি। তাইতো প্রথম ম্যাচে হারার পরই জানিয়ে দিয়েছিলেন একটি হার নিয়ে বেশি ভাবার সুযোগ নেই। আমরা সামনের ম্যাচ নিয়ে ভাবতে চাই। বাংলাদেশ সময় আগামীকাল ভোর ৬ টা ৩০ মিনিটে শুরু হবে দু'দলের খেলা।

শনিবার সালভাদরে বাংলাদেশ সময় ভোর ৪টায় (স্থানীয় সময় রাত ১১টা) মুখোমুখি হয় আর্জেন্টিনা-কলম্বিয়া। টুর্নামেন্টে প্রথম ম্যাচে জয়ের ব্যাপারে আর্জেন্টাইন কোচ লিওনেল স্কলানি আশাবাদী হলেও হারতে হয় তার শিষ্যদের। তাই প্যারাগুয়েকে নিয়ে বাড়তি ভাবনা যোগ হয়েছে আর্জেন্টিনা দলে। খেলার সম্ভাবনা আছে ৪-৪-২ ফরমেশনেই।

দুই দলের শক্তিমত্তায় এগিয়ে আর্জেন্টিনা। ফিফা র‍্যাংকিং এ ১১ নাম্বারে থাকা আর্জেন্টিনা দলে হোর্হে সাম্পাওলির বিদায়ের পর লিওনেল স্কালোনিকে অনেকটা উপায় না দেখেই দায়িত্ব বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছিল। দায়িত্ব নেওয়ার এক বছর পর দলকে নিয়ে কোপা আমেরিকাতে। এই এক বছরে আর্জেন্টিনার পরিবর্তন একটাই। নতুন এক দল এসেছে। কিন্তু অভিজ্ঞতা নেই, ২৩ জনের স্কোয়াডে ১৫ জনই জাতীয় দলের হয়ে খেলেছেন ১৫ ম্যাচেরও কম।

আর্জেন্টিনার একমাত্র আশা লিওনেল মেসিকে ঘিরেই। আরেকবার আজন্ম লালন করা স্বপ্নের পেছনে ছুটতে ব্রাজিল গেছেন তিনি। তবে লিওনেল মেসি, সার্জিও আগুয়েরো, পাউলো দিবালা, অ্যানহেল ডি মারিয়া জেগে উঠলে যে কোন প্রতিপক্ষের রক্ষণের জন্যই ভয়ানক হয়ে উঠতে পারেন।

গ্রুপ বি দল প্যারাগুয়ের  ফিফা র‍্যাংকিং ৩৬। ২০১০ বিশ্বকাপে কোয়ার্টার ফাইনালে যাওয়া প্যারাগুয়ে দলটা এখন ইতিহাস। এরপর টানা দুই বিশ্বকাপে খেলা হয়নি তাদের। তবে গত ৮ বছরে চড়াই উতরাইয়ের প্রায় পুরোটাই দেখা হয়ে গিয়েছে প্যারাগুয়ের। গত বছর কোনো ম্যাচই জেতা হয়নি তাদের। 

এখনো চলছে দল পুনর্গঠনের কাজ। ২০১০ বিশ্বকাপ ও ২০১১ কোপার রানার আপ দলের খেলোয়াড়দের ফেলে যাওয়া জায়গা পূরণ করার কাজ সহজ ছিল না প্যারাগুয়ের। এখনও সেই কাজটাই করে যাচ্ছে তারা। তবে গত ৮ বছরের মধ্যে এবারের স্কোয়াডকে প্যারাগুয়ের সেরা বলা যায়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা