kalerkantho

মঙ্গলবার। ১৬ জুলাই ২০১৯। ১ শ্রাবণ ১৪২৬। ১২ জিলকদ ১৪৪০

অস্ট্রেলিয়াকে হারাতে আত্মবিশ্বাসী, ভারতকে নিয়ে 'পুরনো সন্দেহ' টাইগারভক্তদের

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৮ জুন, ২০১৯ ১৬:২৫ | পড়া যাবে ৬ মিনিটে



অস্ট্রেলিয়াকে হারাতে আত্মবিশ্বাসী, ভারতকে নিয়ে 'পুরনো সন্দেহ' টাইগারভক্তদের

বিশ্বকাপের সামনের ম্যাচগুলোতে বাংলাদেশের জন্যে তুলনামূলক সহজ প্রতিপক্ষ আফগানিস্তান ও পাকিস্তান। আর বেশ কঠিন প্রতিপক্ষ নিঃসন্দেহে ভারত ও অস্ট্রেলিয়া। প্রশ্নটা হলো, যদি প্রতিপক্ষ হিসেবে বাংলাদেশ সামনে ভারত কিংবা অস্ট্রেলিয়াকে পায়, তবে কোন দলকে হারাতে পারার সম্ভাবনা বেশি?

কালের কণ্ঠ'র অনলাইন জরিপে দেখা গেছে, ৫৩ শতাংশ মনে করছেন ভারতকে হারাতে সক্ষম বাংলাদেশ। আর ৪৭ শতাংশ অস্ট্রেলিয়াকে হারানোর পক্ষে মত দিয়েছেন। এবার দেখে নেয়া যাক, টাইগারভক্তদের কী বলছেন। তাদের বাছাইকৃত অভিমত ও কৌতুকপূর্ণ মন্তব্য তুলে দেয়া হলো।

এএইচএইচ ওয়াসিম বলছেন, আল্লাহ যদি সহায়ক থাকে ইনশাআল্লাহ দুই দলের সাথে আমরা জিতব।

আল-আমিন হোসেনের ভাষ্য, আশা রাখি দুইটাকেই হারাবে ইনশাআল্লাহ।

শাহরিয়ান চৌধুরীর মন্তব্য, ভারতকে হারানো সম্ভব না। কারণ, ভারত বাংলাদেশের ম্যাচ শেষে। ভারত যদি সেমিতে ওঠা নিয়ে সন্দেহে থাকে তাহলে বাংলাদেশকে চুরি করে হলেও হারাবে। আর তার জন্যই ম্যাচটা শেষে রাখছে।

ফারুক মজুমদার লিখেছেন, যারা ভারতকে ভোট দিচ্ছে তারা আসলে ভারত বিরোধিতা থেকে বলছে...। এবারের বিশ্বকাপে ভারত কি টিম তা অস্ট্রেলিয়া ও পাকিস্তান ম্যাচেই দেখেছি...যেমন বোলিং ফিল্ডিং তেমন ব্যাটিং...আর অস্ট্রেলিয়া এবার দুর্বল আগের থেকে....আর আজকে জয় আমাদের বুস্টআপ করবে দারুণভাবে। 

মঞ্জুরিল লিমন বলছেন, মোটামুটি কষ্টসাধ্য। তবে অসম্ভব কিছু নয়। 

নিরূপম দে এর মতে, ভারত আর অস্ট্রেলিয়াকে যদি বাংলাদেশ হারাতে পারে তাইলে মনে করবেন বাংলাদেশ কাপ নিবে এবার। এটা গ্যারান্টি। কিন্তু অতীতের ইতিহাস বলছে বাংলাদেশ একটি ম্যাচ ভালো করলে এতই পাম পাই যে, পরের ম্যাচগুলো আর ভালো করে না।

সাজেদুল সোহানের মতে, ভারত অনেক বড় টিম নিঃসন্দেহে। বাংলাদেশকে নিয়ে তারা প্রচণ্ড আতঙ্কে থাকবে। আজকের পর তো সেই আতঙ্ক কয়েক গুন বেড়ে যাবে। এই সুযোগটাই আমাদের কাজে লাগাতে হবে।

শাহরুখ মুন্নার মন্তব্য,  ক্রিকেটে মনে করে কোনো কথা নাই। দিন এর পর দিন ভালো খেলতে পারলেই ইনশাআল্লাহ আমরা যেকোনো দলকে হারাই দেওয়ার যোগ্যতা রাখি।

উত্তম কুমার দাস বলছেন, আজকে খেলোয়াড়েরা যে মনোবল নিয়ে খেলেছে যদি এটি ধরে রাখতে পারে তাহলে দু'দলকেই গ্যাস বেলুনের সাথে বেঁধে উড়িয়ে দেব। একদল গিয়ে পড়বে ভারত মহাসাগরে আরেক দল আটলান্টিক মহাসাগরে। সারা বিশ্ববাসী তোমরা দেখার অপেক্ষায় থাকো।

আদিল আহনাফ খান বলছেন, ভারতকে হারাতে পারবে বলে আমার মনে হয় না। তবে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে জয়ের ন্যূনতম আশা আছে। বেস্ট অব লাক। 

মনি চৌধুরী আত্মবিশ্বাসী, টাইগার্সরা কাউকে ভয় পায় না। ভাগ্য সহায় হলে দুটোকেই হারানোর সামর্থ টাইগার্সদের আছে।

ফয়সার আহমেদ লিখেছেন, অনেক প্রাপ্তি হয়েছে এবার। বড় বড় দলকে হারাচ্ছে। সেমিফাইনালে যাওয়ার দরকার নেই। আর গিয়েই কি লাভ ভারতের সাথেই পড়বে আবার। আর ভারত হেসে খেলে জিতবে। তার চেয়ে ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড যাক। এরা ভারতকে হারালেও হারাতে পারে।

মো. মোস্তফার কথা হলো, আমাদের চেষ্টা থাকবে ভালো খেলে জেতার। ভারত অস্টেলিয়া বুঝি না। ভারত তো অনেক বড় চোর। গত বিশ্বকাপে মাহমুদুল্লাহকে নিয়ে যে চুরি করেছে। এবার সাকিবকে নিয়ে যে কি করে ভেবে পাচ্ছি না, চিন্তায় আছি। খেললে এক দল জিতবে এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু চুরি করে জেতা আর জুতার বাড়ি খাওয়া একেই কথা বলে আমি মনে করি।

সাইফুল ইসলাম লিখেছেন, অবশ্যই অস্ট্রেলিয়া। কারণ ভারত আম্পায়ারসহ ১১ জনের অধিক প্লেয়ার নিয়ে খেলবে। তাই ভারতের বিপক্ষে জয় পাওয়া বেশি কঠিন হবে

অনিক সোহান মজা করে বলেন, কোনো দলই বলার সাহস পাচ্ছি না। আল্লাহর দিকে তাকায়ে থাকবো।

সুনয়ন মিত্রের রসিকতা হচ্ছে, দুটোই অপদার্থ দল, দুটোই হারবে।

মোহাম্মদ ইমন মনে করেন, বাস্তবতা হলো অস্ট্রেলিয়াকে হারানো ভারত থেকে সহজ। তবে আমরা চাই ভারতের সাথেই জিতুক।

আসহাব উদ্দিন অনিকের মন্তব্য, যে যাই বলুক বাংলাদেশ ভারতের সামনে গেলে কেমন যেন খেই হারিয়ে ফেলে...তাছাড়া ওরা এবার খেলছেও ভালো...।

মো. সাইফল ইসলাম বলছেন, ভারতের বিপক্ষে জিততে পারবে না। কারণ আইসিসি ওদের পক্ষে কাজ করবে, তাই আমি মনে করি বাংলাদেশ অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে জিততে পারার সম্ভাবনা বেশি।

কে জেড মোহিম একটু হতাশ, বাংলাদেশ আফগানিস্তান ছাড়া আর কারো সাথে জিতবে না। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দলের সাথে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল সব সময়ই ভালো খেলে। 

জাওয়াদ বিন আরিয়ানের মতে, সত্য তিতে হলেও ভারত অনেক স্ট্যাবল একটা টিম। ওরা অস্ট্রেলিয়াকেও হারাইছে, হারানোর দিক দিয়ে ভারতকে হারানো অনেক কঠিন,অস্ট্রেলিয়ার চেয়ে।

রত্ন দ্বীপ বিরক্তি ঝেরে বলছেন, আগে বড় দলের সাথে খেলার যোগ্যতা অর্জন কর, তারপর না হয় জেতার কল্পনা করিস...যতসব।

আনিসুর রহমানের আশঙ্কা, অস্ট্রেলিয়া। ভারত একা খেলে না, আইসিসি'কে সঙ্গে নিয়া খেলে অলওয়েজ। তাই টাইগার্স ক্যান নট ডিফিট দেম।

মোহসিন হোসেনের মতে, যদি বুমরাহ, রোহিত, কোহলি আর কুলদ্বীপকে সামলাতে পারে তাহলে বাংলাদেশের জেতার সম্ভাবনা ৫০%। 

নাপা এক্সট্রার মন্তব্য, অস্ট্রেলিয়ার বোলিং তেমন ভালো না, জেতা পসিবল বাট ইন্ডিয়ার সাথে জেতা হার্ড হবে...।

তায়ফুর চৌধুরীর আত্মবিশ্বাস, বাংলাদেশ ভারতকে হারাতে পারবে ১০০%। তবে মাঠে মানব আম্পায়ার নয় রোবট আম্পায়ার দিতে হবে।

শঙ্কা রয়েছে আব্দুর রিহমের, আমার মনে হয়, খেলায় যদি ভারত-অস্ট্রেলিয়া কোনো ধরনের চুরি না করে, তাহলে বাংলাদেশ দুইটাকেই হারাতে পারবে।

নূর মোহাম্মদ বলছেন, ভারত তো চুরি করবে ফাইনাল... শত শত কোটি টাকার খেলা। 

আকাশ কুমার ঘোষের আশা, দুইটা ম্যাচ বৃষ্টিতে বাদ যাক। বাংলাদেশ দুই পয়েন্ট পেয়ে সেমিতে যাক। তাদের সাথে খেলা হবে নক আউট পর্যায়ে। 

এডি শাকিলের কথা হলো, ভারত চুরি করে হলেও বাংলাদেশের সাথে জিতবে। তাই ভারতের ভোট প্রদানকারীদের জন্য সমবেদনা। আপনারা ভুলে গেছেন যে ভারত চোর। 

রাজু শাহ এর মন্তব্যে একই সুর, অস্ট্রেলিয়ার সাথে জেতার সম্ভবনা। আর ইন্ডিয়ার সাথে জেতা ম্যাচে একটা কল আসবে আর হেরে যাবে।

সৌরভ আহমেদ চৌধুরী বলছেন, অস্ট্রেলিয়াকে হারানো বেশ সহজ মনে হচ্ছে ।তবে এর জন্য এরেঞ্জ ফিঞ্জ, ম্মিথ ও ওয়ারনারকে আটকে ফেলার ছক কষতে হবে। আর মিশেল স্টার্ক ও কমিন্সের বল ভালোভাবে খেলে মোকাবেলা করতে হবে।

এ এন এফ নওশের ভারতকে নিয়ে 'সন্দিহান'। লিখেছেন, ইন্ডিয়ান চোরগুলোকে হারালেই হবে। কিন্তু ওদের ১৩ জনের সাথে পেরে উঠবে কিনা সেটাই এখন দেখার বিষয়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা