kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৩ আষাঢ় ১৪২৭। ৭ জুলাই ২০২০। ১৫ জিলকদ  ১৪৪১

সাকিবের সেঞ্চুরি, জয়ের দ্বারপ্রান্তে বাংলাদেশ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৭ জুন, ২০১৯ ২২:৫০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



সাকিবের সেঞ্চুরি, জয়ের দ্বারপ্রান্তে বাংলাদেশ

বিশ্বকাপে ফর্মের তুঙ্গে আছেন বিশ্বসেরা অল-রাউন্ডার। টানা চার ম্যাচে তার ইনিংস পঞ্চাশ ছাড়িয়েছে। এর মধ্যে দুটি সেঞ্চুরি। আজ উইন্ডিজের বিপক্ষে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে নিজের ক্যারিয়ারের অষ্টম শতক তুলে নিলেন সাকিব। ৮৩ বলে ১৩টি বাউন্ডারিতে। ব্যাটিংয়ে নামার কিছুক্ষণ পরেই বাংলাদেশের দ্বিতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে ৬ হাজার রান পূরণ করেছেন। চলতি আসরে আগের চার ইনিংসে তিনি করেছিলেন যথাক্রমে- ৭৫, ৬৪ এবং ১২১ রান।

নিজে সেঞ্চুরির পাশাপাশি দলকে রেখেছেন জয়ের কক্ষপথেই। লিটনকে নিয়ে বাংলাদেশের বিশ্বকাপ স্বপ্ন বাঁচিয়ে রাখতে লড়ে যাচ্ছেন তিনি। ৩৪ ওভার ২ বলে তিন উইকেটে ২৫০ রান সংগ্রহ করেছে বাংলাদেশ। জয়ের জন্য ১৫ ওভার চার বলে দরকার ৭২ রান। 

টনটনে বড় টার্গেট তাড়ায় নেমে দলকে ভালো শুরু এনে দেন তামিম ইকবাল এবং সৌম্য সরকার। রানের জন্য লড়ছিলেন তামিম, অন্যপ্রান্তে সৌম্য সাবলীল ব্যাটিং করে যাচ্ছিলেন। নবম ওভারের প্রথম বলে আন্দ্রে রাসেলকে পয়েন্টের ওপর দিয়ে দারুণ এক ছক্কা মারলেন সৌম্য। পরের বলেই ক্যাচ তুলে দিলেন স্লিপে। ২৩ বলে ২ চার ২ ছক্কায় ২৯ রান করা সৌম্যর বিদায়ে ভাঙে ৫২ রানের ওপেনিং জুটি। সৌম্যর আউটের পর হাত খুলতে থাকেন তামিম। সাকিবকে সঙ্গী করে এগিয়ে নিতে থাকেন দলের স্কোর।

দ্বিতীয় উইকেটে তখন এসে গেছে ৬৯ রান। জমে উঠেছে জুটি। এমন সময় ছন্দপতন। শেলডন কটরেলকে এগিয়ে এসে মারতে গিয়ে আউট হয়ে যান ৪৭তম হাফ সেঞ্চুরি থেকে ৩ রান দূরে থাকা তামিম। কটরেল নিজেই সরাসরি থ্রোতে তামিমের স্ট্যাম্প ভেঙে দেন। থমাসের করা স্ট্যাম্পের অনেক বাইরের বলে খোঁচা মেরে শাই হোপের গ্লাভসবন্দি হন মুশফিক (১)। চাপে পড়ে যায় বাংলাদেশ।

এর আগে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৮ উইকেটে ৩২১ রান তোলে উইন্ডিজ। ভয়ংকর ক্রিস গেইল ১৩ বল খেলে একটি রানও করতে পারেননি! শেষ পর্যন্ত দলীয় ৬ রানে সাইফউদ্দিনের বলে ক্রিস গেইলের ক্যাচ দুর্দান্তভাবে লুফে নেন মুশফিকুর রহিম। এমন অবস্থায় দলের হাল ধরেন অপর ওপেনার এভিন লুইস এবং শাই হোপ। ৫৯ বলে ফিফটি করেন এভিন লুইস। দুজনের জুটিতে তখন ১১৬ রান এসে গেছে। অবশেষে এই জুটি ভাঙেন সাকিব। তার ঘূর্ণিতে বদলি ফিল্ডার সাব্বিরের তালুবন্দি হন ৬৭ বলে ৭০ করা এভিন লুইস।

এরপর ৭৫ বলে বাংলাদেশের বিপক্ষে টানা ৬ষ্ঠ ফিফটি করেন শাই হোপ। উইকেটে এসে রানের জন্য ছটফট করছিলেন নিকোলাস পুরান (২৫)। তাকে নিজের দ্বিতীয় শিকারে পরিণত করেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। লং অন থেকে দারুন ক্যাচ নেন সৌম্য সরকার। বিধ্বংসী শিমরন হেটমায়ার উইকেটে এসেই তাণ্ডব শুরু করেন। হাফ সেঞ্চুরি তুলে নেন মাত্র ২৫ বলে। শেষ পর্যন্ত এই মারকাটারি ব্যাটসম্যানকে তামিম ইকবালের তালুবন্দি করেন মুস্তাফিজ। ক্রিস গেইলের মতো আরেক ভয়ংকর হার্ডহিটার আন্দ্রে রাসেলও 'ডাক' মারেন আজ। মুস্তাফিজুর রহমানের বলে মুশফিকের গ্লাভসে ধরা পড়েন এই দানবীয় ব্যাটসম্যান।

এরপর উইকেটে এসে ঝড় তোলেন ক্যারিবীয় অধিনায়ক জেসন হোল্ডার। ১৫ বলে ৩৩ রান করে বিপজ্জনক এই অল-রাউন্ডার সাইফউদ্দিনের শিকার হন। শাই হোপকে সেঞ্চুরি বঞ্চিত করেন মুস্তাফিজ। ১২১ বলে ৯৬ রান করা হোপকে লিটন দাসের তালুবন্দি করে নিজের তৃতীয় শিকার ধরেন কাটার মাস্টার। শেষদিকে ব্র্যাভোর ১৫ বলে ১৬ রানের ইনিংসে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৮ উইকেটে উইন্ডিজের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৩২১ রান। শেষ বলে ব্র্যাভোকে বোল্ড করে দেন সাইফ। ৩টি করে উইকেট নেন মুস্তাফিজ আর সাইফউদ্দিন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা