kalerkantho

সোমবার । ২২ জুলাই ২০১৯। ৭ শ্রাবণ ১৪২৬। ১৮ জিলকদ ১৪৪০

আইসিসি নিরপেক্ষ উইকেট তৈরি করেনি : সাঙ্গাকারা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৬ জুন, ২০১৯ ২০:৫৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আইসিসি নিরপেক্ষ উইকেট তৈরি করেনি : সাঙ্গাকারা

মাঠের খেলা এবার জমাতে পারছেনা জয়সুরিয়াদের উত্তরসূরীরা। শুরুতে নিউজিল্যান্ডের সাথে এরপর অষ্ট্রেলিয়া সাথে হারে তারা। মাঝের ম্যাচগুলোতে বৃষ্টির কল্যাণে ৫ ম্যাচে ৪ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট তালিকায় পিছিয়ে শ্রীলঙ্কা। এমন অবস্থায় গত শুক্রবার সুযোগ সুবিধা না পাওয়া, শ্রীলঙ্কার উইকেট, অনুশীলনে ক্ষেত্রে বৈশম্যের অভিযোগ তোলেন শ্রীলঙ্কান টিম ম্যানেজমেন্ট।

অভিযোগ জানিয়ে আইসিসিকে আনুষ্ঠানিকভাবে বার্তা প্রেরণ করা হলেও শ্রীলঙ্কার এমন অভিযোগ উড়িয়ে দেয় ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থা আইসিসি। এবার শ্রীলঙ্কান টিম ম্যানেজমেন্টের করা অভিযোগের সমর্থন জানালেন শ্রীলঙ্কান সাবেক ক্রিকেটার সাঙ্গাকারা। টাইমস অফ ইন্ডিয়ায় প্রকাশিত এক কলামে তিনি সমর্থন জানিয়ে এই বিষয়ে হতাশা প্রকাশ করেন।

উইকেট নিয়ে সাঙ্গাকারা বলেন, 'বিশ্বকাপের মতো বৈশ্বিক টুর্নামেন্টে সবাই নিরপেক্ষ উইকেটই চায় কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত এই টুর্নামেন্টে তা নিয়মিত হচ্ছে না। দলগুলোকে এর সঙ্গে খাপ খাইয়ে নিতে হয়। কিন্তু লক্ষ্য করা যাচ্ছে কয়েকটি দল এসব নিয়ে নিজেদের বিরক্তি প্রকাশ করেছে। এটাও দুঃখজনক যে, শ্রীলঙ্কার পক্ষে কোনোভাবেই সম্ভব নয়, পুরো প্লেইং এরিয়া কভার করা।'

উইকেট ছাড়াও এবারের বিশ্বকাপে মাঠগুলোর ড্রেনেজ সিস্টেম নিয়ে সমালোচনা করেন সাঙ্গা। ব্রিস্টলের মাঠে রোদের মধ্যেও পাকিস্তান-শ্রী'লঙ্কা খেলা পরিত্যক্ত হওয়ায় হতাশা প্রকাশ করেন এই কিংবদন্তি ব্যাটসম্যান।

তিনি বলেন, এটা স্পষ্ট যে ইংল্যান্ডের মাঠে ড্রেনেজ সিস্টেমগুলো দারুণ। কিন্তু ব্রিস্টলে পাকিস্তান-শ্রীলঙ্কার মধ্যকার ম্যাচে আমরা দেখেছি সূর্যের মধ্যেও আউটফিল্ড ভেজা থাকার কারণে ম্যাচ পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হয়েছে। আবার সাউদাম্পটনে প্রচুর বৃষ্টি থাকার পরেও ইংল্যান্ড-ওয়েস্ট ইন্ডিজের মধ্যকার ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হয়।'

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার লঙ্কান টিম ম্যানেজার আশান্থা ডি মেলে অভিযোগ করেন, শ্রীলঙ্কা উইকেট, হোটেল এবং অনুশীলনের ক্ষেত্রে অবিচারের শিকার হচ্ছে। অন্যান্য দলগুলো যেসব সুবিধা পাচ্ছে সেগুলো পাচ্ছে না শ্রীলঙ্কা। পরে আইসিসি এক বিবৃতিতে জানায় বিশ্বকাপের প্রস্তুতি শুরু হয়েছে আরও ৪ বছর আগে থেকে। ফলে সব দলের কথা মাথায় রেখে সমান সুযোগ সুবিধার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা