kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৮ জুলাই ২০১৯। ৩ শ্রাবণ ১৪২৬। ১৪ জিলকদ ১৪৪০

বিবিসি বাংলার প্রতিবেদন

ম্যাঞ্চেস্টারে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ ঘিরে নজিরবিহীন কর্মযজ্ঞ!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৫ জুন, ২০১৯ ১৬:১০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ম্যাঞ্চেস্টারে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ ঘিরে নজিরবিহীন কর্মযজ্ঞ!

বিশ্বকাপে ভারত আর পাকিস্তানের খেলা মানেই এক অন্যরকমের উত্তেজনা। রবিবার ম্যানচেষ্টারে এই দুই দলের খেলা নিয়ে এরই মধ্যে উন্মাদনা তৈরি হয়েছে। ৭ লাখ মানুষ মাঠে গিয়ে খেলার দেখার জন্য টিকেটের আবেদন করেছিলেন। কিন্তু তাদের মধ্যে সৌভাগ্যবান ২৫ হাজার মানুষের ভাগ্যেই কেবল টিকেট জুটেছে।

দুই দলের হাজার হাজার সমর্থক এবং ক্রিকেট ভক্ত খেলা দেখতে ম্যানচেষ্টারে যাচ্ছেন। আর তার জন্য সেখানকার কর্তৃপক্ষকেও ব্যাপক প্রস্তুতি নিতে হচ্ছে। ওল্ড ট্যাফোর্ডে যখন দুই দল মুখোমুখি হবে তখন সেখানে পাহারা দেবে সশস্ত্র পুলিশ। বিশ্বকাপের ম্যাচ গুলোর মধ্যে এটি হচ্ছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ একটি খেলা। দুই বৈরী প্রতিদ্বন্দ্বীর এই খেলা টেলিভিশনে দেখবেন প্রায় একশো কোটি মানুষ।

ভারত আর পাকিস্তানের মধ্যে যে ধরণের রাজনৈতিক উত্তেজনা, তার কারণে বড় বড় টুর্ণামেন্ট ছাড়া দুই দলের মধ্যে এরকম খেলা বেশ বিরল। ম্যানচেষ্টার বিমানবন্দর জানিয়েছে, কেবল এসপ্তান্তেই সেখানে দশটি প্রাইভেট জেট এসে নামবে। এরা সবাই ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ দেখতেই বিশ্বের নানা প্রান্ত থেকে সেখানে যাচ্ছে।

ল্যাংকাশায়ার ক্রিকেট ক্লাবের বিজনেস ম্যানেজার ওয়ারেন হেগ বলেন, 'এটি সম্ভবত ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় ম্যাচগুলোর একটি। ভারত-পাকিস্তানে ক্রিকেটই জীবন। দুই দলের সমর্থকরা তাদের খেলা নিয়ে পাগল.... কাজেই এখানে মাঠের পরিবেশ হবে খুবই উত্তেজনাপূর্ণ।'

ম্যানচেষ্টারের ক্যাথেড্রাল গার্ডেনে একটি বিশাল 'ফ্যান জোন' তৈরি করা হয়েছে খেলা দেখানোর জন্য। সেখানে বিশাল পর্দায় ক্রিকেট ভক্তরা খেলা দেখতে পারবেন। ওল্ড ট্রাফোর্ডের ধারণ ক্ষমতা হচ্ছে ২৫ হাজার। টিকেট বিক্রি শুরু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই তা বিক্রি হয়ে গেছে। ব্রিটেনে ভারত এবং পাকিস্তান- উভয় দলেরই বিপুল পরিমাণ সমর্থক রয়েছে।

ভারত সমর্থকদের একটি গোষ্ঠী 'দ্য ভারত আর্মি'র প্রতিষ্ঠাতা রাকেশ প্যাটেল জানান, গত চার বছর ধরে তারা এই ম্যাচের জন্য অপেক্ষা করছেন। কিন্তু আবহাওয়া বাধ সাধতে পারে এই ম্যাচে। রোববার ম্যানচেষ্টারে বৃষ্টির আশংকা আছে। মিস্টার প্যাটেল অবশ্য আশা করছেন বৃষ্টি আসবে না এবং তারা এই খেলার একটা ফল পাবেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা