kalerkantho

রবিবার । ২১ জুলাই ২০১৯। ৬ শ্রাবণ ১৪২৬। ১৭ জিলকদ ১৪৪০

সমালোচনায় বিচলিত নন মাশরাফি

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৫ জুন, ২০১৯ ০০:৫১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সমালোচনায় বিচলিত নন মাশরাফি

মাশরাফি বিন মুর্তজা

এবারের বিশ্বকাপে প্রথম তিন ম্যাচে মাশরাফি বিন মুর্তজা বোলিংয়ে দলের প্রয়োজন মেটাতে পারেননি বলে মনে করছেন অনেকেই। এ কারণে অধিনায়ক মাশরাফির দলে থাকা নিয়েও নানা প্রশ্ন তুলছেন অনেকে! বিশেষ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মাশরাফিকে নিয়ে হচ্ছে সমালোচনা। 

তাতে মাশরাফি মোটেও বিচলিত নন। ‘এরকম কত কিছুই তো জীবনে দেখলাম। আমার মতো হোঁচট খেয়ে কয়টা পেসার এখনো খেলা চালিয়ে যাচ্ছেন সেটা দেখান’ – গত পরশু এভাবেই নিজের মনের কথা বলছিলেন নড়াইল এক্সপ্রেস।

অমিত সম্ভাবনা নিয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেটে আসার পর সাধ্যের সবকুটু উজার করে দিয়েছেন মাশরাফি। চোট জর্জরিত ক্যারিয়ারে অনেক হোঁচট খেয়েছেন। কিন্তু কোমড় সোজা করে দাঁড়িয়েছেন ঠিকই। ২০১৫ বিশ্বকাপের ঠিক আগে দায়িত্ব নেওয়ার পর জাতীয় দলকে পাল্টে দিয়েছেন। দলকে ধারাবাহিক করেছেন, সিনিয়রদের দিয়েছেন ফ্রি লাইসেন্স, তরুণদের আগলে রেখেছেন দীর্ঘদিন।

এর মাঝে মাশরাফি নিজের বোলিংয়ে কেমন করেছেন? দুই বিশ্বকাপের মাঝে বাংলাদেশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ উইকেট পেয়েছেন মাশরাফি। ৬৩ ম্যাচে তার শিকার ৭৬ উইকেট। ৪৯ ম্যাচে মুস্তাফিজের শিকার ৮৭ উইকেট। মুস্তাফিজের গড় ২৩.৪৩, মাশরাফির ৩৫.৬৮। মুস্তাফিজের ইকোনমি ৫.০৩, মাশরাফির ৫.১৯। এ সময়ে বাংলাদেশ যে ম্যাচগুলো জিতেছে তাতে সিংহভাগ অবদান মাশরাফির। 

এ তো শুধুই পরিসংখ্যান। ভালো বোলিংয়ের পাশাপাশি মাঠে তার নিবেদনগুলো এখন ভুলেছে নিন্দুকেরা। তাই মেতেছে সমালোচনায়। এমন সমালোচনা কি ঠিক? দলের পেস বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশ হতাশ এমন সমালোচনায়।

‘আমরা সবাই জানি মাশরাফি ফাইটার। তার সামান্য চোট আছে। অধিনায়ক হিসেবে সে সব সময় চায় দলকে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিতে। সব সময় চায় ভালো বোলিং স্পেল করতে। আমরা তাকে যত্ন সহকারেই ব্যবহার করছি। দেশকে বড় কিছু দেওয়ার ক্ষুধায় সে মগ্ন। তাই যে সমালোচনা হচ্ছে সেটা খুব দ্রুত হয়ে যাচ্ছে। ’

‘আমি এটাও বিশ্বাস করি প্রত্যেক সমর্থক জয়ের প্রত্যাশা করে। আমরা হেরেছি ঠিক আছে। কিন্তু মাত্র দুটি ম্যাচেই তো হেরেছি। একটা বৃষ্টিতে পণ্ড হয়েছে। আমরা যখন গোটা কয়েক ম্যাচ জিতব তখন দেখবেন আমাদের দলের গভীরতা কেমন। 

ওয়ালশ বলেছেন, ম্যাশ কয়েকটা দিন বিশ্রামে ছিল। এটা তার কাজে দেবে। আশা করছি সে তার পুরোনো জায়গায় দ্রুত ফিরে আসবে’।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা