kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৭ জুন ২০১৯। ১৩ আষাঢ় ১৪২৬। ২৩ শাওয়াল ১৪৪০

'না, আজ আমার মৃত্যুর দিন হতে পারে না!'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৩ জুন, ২০১৯ ১৮:১৮ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



'না, আজ আমার মৃত্যুর দিন হতে পারে না!'

সময়ের সঙ্গে সঙ্গে সারা বিশ্বে যেন বেড়ে যাচ্ছে ক্যান্সার নামক প্রাণঘাতী রোগটির প্রাদুর্ভাব। এবার মাত্র ৩২ বছর বয়সে মারা গেলেন আমেরিকার জাতীয় পদকজয়ী নারী দৌঁড়বিদ গ্যাব্রিয়েল গ্রুনওয়াল্ড। তিনি বিরল এক ধরণের ক্যান্সারে ভুগছিলেন। মারণ রোগে আক্রান্ত হয়েও ২০২০ সালের টোকিও অলিম্পিকের জন্য তিনি নিজেকে প্রস্তুত করছিলেন। তবে তার শেষ ইচ্ছাটা পূরণ হলো না। গত মঙ্গলবার বিকেলে ইনস্টাগ্রামে তার মৃত্যুসংবাদ প্রকাশ করেছেন স্বামী জাস্টিন গ্রুনওয়াল্ড।

এর আগে এই অ্যাকাউন্টেই গ্যাব্রিয়েলের জীবনের শেষ কয়েকটি দিন ক্যান্সারের সঙ্গে যুদ্ধের বিবরণ দিয়েছিলেন তিনি। জাস্টিন জানিয়েছেন, গত ২ জুন চিকিৎসকরা গ্যাব্রিয়েলের আসন্ন মৃত্যুর পূর্বাভাস করলে সাহসী অ্যাথলেট চিৎকার করে উঠেছিলেন, 'অসম্ভব! কোনো ভাবেই আজ আমার মৃত্যুর দিন হতে পারে না!' ওই ঘটনার ঠিক ৯ দিন পরে গ্যাব্রিয়েল পরলোকে গমন করেন। 

২০০৯ সালে মিনেসোটা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময় যখন অনেকেই গ্যাব্রিয়েলকে চ্যাম্পিয়ন অ্যাথলেট হিসেবে মনে করছিলেন, ঠিক সেই সময় গ্যাব্রিয়েলের লালাগ্রন্থিতে ক্যান্সার (অ্যাডিনয়েড সিস্টিক কার্সিনোমা) ধরা পড়ে। এক বছর পরে পরীক্ষায় তার থাইরয়েড ক্যান্সারও ধরা পড়ে।  তবে কোনো কিছুই গ্যাব্রিয়েলের অদম্য প্রাণশক্তিকে কাবু করতে পারেনি। অস্ত্রোপচার, কেমোথেরাপি-সহ বিভিন্ন চিকিৎসা পদ্ধতি চলা সত্ত্বেও তিনি দৌঁড় থামাননি।

ক্যান্সারের সঙ্গে নিজের লড়াইয়ের কথা এবং প্রতি পদক্ষেপে নিজের ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে তিনি মারণরোগে আক্রান্তদের নিরন্তর সাহস জুগিয়ে গিয়েছেন। এই কারণে সোশ্যাল মিডিয়ায় চালু হয়ে যায় 'ব্রেভ লাইক গ্যাব' উক্তিটি। প্রথমবার ক্যান্সার ধরা পড়ার পরের দিনই মাত্র ৪ মিনিট ১৩.৪৫ সেকেন্ড সময়ে ১,৫০০ মিটার দৌড়ে মিনেসোটা বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন রেকর্ড তৈরি করেন। ২০১০ সালে তিনি এনসিএএ প্রতিযোগিতায় ১,৫০০ মিটার দৌড়ে দ্বিতীয় স্থান অধিকার করেন।

২০১২ সালের অলিম্পিক ট্রায়ালে মাত্র এক পয়েন্টের জন্য চতুর্থ হয়ে হাতছাড়া হয় সুযোগ। এতেই থেমে না থেকে ২০১৩ সালে মোনাকোতে আইএএএফ ডায়মন্ড লিগে ১,৫০০ মিটারে ব্যক্তিগত সেরা ৪ মিনিট ১.৪৮ সেকেন্ড সময় করেন গ্যাব্রিয়েল। ওই বছরেই তিনি কলেজের সহপাঠী, সহ-দৌড়বীর জাস্টিন গ্রুনওয়াল্ডকে বিয়ে করেন। ২০১৬ সালে তার শরীরে ফের ক্যান্সার থাবা বসালে অস্ত্রোপচারে লিভারের বড় অংশ বাদ পড়ে। পেট জুড়ে গভীর সেলাইয়ের দাগ নিয়েও ট্র্যাক ছাড়েননি এই সাহসী কন্যা। ২০২০ সালের টোকিও অলিম্পিকের জন্য প্রস্তুতি নেওয়ার মাঝে গুরুতর অসুস্থ হয়ে তিনি শয্যাশায়ী হন। সেখানেই চিরনিদ্রায় ডুব দিয়েছেন ক্যান্সারের বিরুদ্ধে লড়াই করে যাওয়া এই সাহসী যোদ্ধা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা