kalerkantho

শনিবার । ১৮ জানুয়ারি ২০২০। ৪ মাঘ ১৪২৬। ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

স্মিথ-ওয়ার্নারের প্রত্যাবর্তনে প্রতিপক্ষের অমঙ্গল : স্টিভ ওয়াহ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২০ মে, ২০১৯ ১৯:৪৮ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



স্মিথ-ওয়ার্নারের প্রত্যাবর্তনে প্রতিপক্ষের অমঙ্গল : স্টিভ ওয়াহ

স্টিভ স্মিথ ও ডেভিড ওয়ার্নারের দলে ফেরাটা আসন্ন বিশ্বকাপে প্রতিপক্ষের দলগুলোর জন্য একটা 'অমঙ্গলের লক্ষণ' বলে বিশ্বাস করেন অস্ট্রেলিয়ার সাবেক অধিনায়ক স্টিভ ওয়াহ। গত বছর দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে কেপ টাউন টেস্টে বল টেম্পারিং কেলেঙ্কারীর দায়ে এক বছর নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে পুনরায় অস্ট্রেলিয়া দলে ফিরেছেন স্মিথ ও ওয়ার্নার। পুনরায় দলের ফেরার পর ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠেয় আসন্ন বিশ্বকাপে প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলতে যাচ্ছেন এই জুটি।

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট টুর্নামেন্টে খেলার সময় দুজনই কনুইর ইনজুরিতে পড়লে তাদেরকে অস্ত্রোপচার করতে হয়। তবে সুস্থ হয়ে ফিরেই তারা মাত্র শেষ হওয়া ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএল) দুর্দান্ত ফর্ম প্রদর্শন করেছেন। এক সেঞ্চুরি এবং আটটি হাফ সেঞ্চুরিতে ১২ ইনিংসে টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ ৬৯২ রান করেছেন ওয়ার্নার।

ব্রিজবেনে নিউজিল্যান্ড একাদশের বিপক্ষে অনুশীলন ম্যাচেও ৮৯* ও ৯১* রানের দু’টি ইনিংস খেলে নৈপুন্য দেখিয়েছেন স্মিথ। আইসিসিকে ওয়াহ বলেন, 'অস্ট্রেলিয়া সম্পর্কে সব দলকে সতর্ক থাকতে হবে। অস্ট্রেলিয়ার শক্তি সম্পর্কে তারা জানে। গত এক বছরে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেটর ওপড় দিয়ে ঝড় বয়ে গেছে। কিন্তু এখন এসব কেটে গেছে। স্মিথ এবং ওয়ার্নার ফেরায় আমরা আমাদের সেরা দল পেয়েছি।'

পাঁচ বারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া বিশ্বকাপের আগে যথা সময়ে নিজেদের ছন্দ ফিরে পেয়েছে। ২০১৮ সালে ১৮ ওয়ানডে ম্যাচের মধ্যে মাত্র তি ন ম্যাচে জয় পেয়েছিল দলটি। তবে বছরের মাঝামাঝি সময়ে ভারতের মাটিতে ২-০ ব্যবধানে পিছিয়ে থাকার পরও ৫ ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজ জয় করে অ্যারন ফিঞ্চের দল। এরপর সংযুক্ত আরব আমিরাতের মাটিতে স্বাগতিক পাকিস্তানকে ৫-০ ব্যবধানে হোয়াইটওয়াশ করে। যার মাধ্যমে তারা বিশ্বকাপের আগে ক্রিকেট বিশ্বকে সতর্ক করে দিয়েছে।

ওয়াহ বলেন, 'তাদের ফর্ম খুই দুর্বল ছিল । তবে হঠাৎ করেই তারা টানা আটটি ম্যাচ জিতেছে এবং এখন দলে স্মিথ, ওয়ার্নারকে পেয়েছে। এটাই প্রতিপক্ষ দলগুলোর জন্য অশুভ লক্ষণ। তারা জানে এ দলটি কত ভালো। অস্ট্রেলিয়া হবে এমন একটা দল..যারা হয়তোবা টুর্নামেন্টের ফেবারিট হবে না। তবে সবচেয়ে ভীতিকর হবে।'

তিনি আরও বলেন, 'আমার মতে ইংল্যান্ড ফেবারিট। গত দুই বছরে তারা অসাধারণ ফর্মে আছে। তারা নিজ মাঠে খেলবে। কখনো কখনো এটা অনেক বেশি চাপ সৃষ্টি করতে পারে। তবে খেলোয়াড়দের মাটিতে রাখতে তারা সত্যিই একজন ভালো কোচ ট্রেভর বেলিসকে পেয়েছে। সুতরাং আমি মনে করি ইংল্যান্ডই ফেবারিট এবং সম্ভবত অস্ট্রেলিয়া ও ভারত ফেবারিটের তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে আছে।'

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা