kalerkantho

সোমবার । ২৪ জুন ২০১৯। ১০ আষাঢ় ১৪২৬। ২০ শাওয়াল ১৪৪০

যাত্রা হলো শুরু : মাশরাফি বিন মুর্তজা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৮ মে, ২০১৯ ১৫:২৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



যাত্রা হলো শুরু : মাশরাফি বিন মুর্তজা

পুরো দাপটের সাথেই আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় ওয়ানডে সিরিজে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয়েছে বাংলাদেশ। স্বাগতিক আয়ারল্যান্ড ও সফরকারী ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলকে পাত্তা না দিয়ে এবারের টুর্নামেন্টে যা করল টাইগাররা, তাতে প্রশংসার দাবিদার মাশরাফি বাহিনী। লিগ পর্বে দুর্দান্ত পারফরমেন্সের পর প্রথমবারের মত আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে কোনো টুর্নামেন্টের শিরোপা এসেছে ঘরে। তাই এই জয়কে 'সবেমাত্র শুরু' বলে অ্যাখায়িত করলেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা।

গতরাতে ফাইনাল শেষে পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠানে মাশরাফি বলেন, 'আমাদের মাত্র যাত্রা শুরু হলো এবং আশা করি ভবিষ্যতে এটি ধরে রাখতে পারবো আমরা। বিশ্বকাপ আমাদের জন্য অনেক বড় চ্যালেঞ্জ। এই জয় আসন্ন বিশ্বকাপে ভালো পারফরমেন্স করতে অনুপ্রেরণা দেবে আমাদের। বড় টার্গেট তাড়া করে ম্যাচ জয়ের জন্য আমরা এখন অনেক বেশি আত্মবিশ্বাসী।'

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি মিলিয়ে গতকালের আগে মোট ৬টি টুর্নামেন্টের ফাইনালে খেলেছিল বাংলাদেশ। শিরোপার দোরগোঁড়ায় পৌঁছেও হতাশাকেই সঙ্গী করতে হয়েছে তাদের। অবশেষে সপ্তম ফাইনালে এসে শিরোপা খড়া ঘুচলো বাংলাদেশের। প্রথমবারের মত জিতলো কোন ট্রফি। আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে বৃষ্টি আইনে ৫ উইকেটে হারায় বাংলাদেশ।

৬ বার ব্যর্থ হবার পর অবশেষে জয়ের তৃপ্তিতে উচ্ছসিত বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। তিনি বলেন, 'আমরা আগের ছয়বার ফাইনাল খেলেও পারিনি। অবশেষে সপ্তম বারে এসে শিরোপা জিততে পারলাম। অবশ্যই দারুন অনুভূতি, খুবই ভালো লাগছে। দলের সবাই অনেক খুশি।'

বৃষ্টির কারণে ২৪ ওভারে নামিয়ে আনা ম্যাচে ১ উইকেটে ১৫২ রান করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ফলে বৃষ্টি আইনে ম্যাচ জয়ের জন্য ২১০ রানের বড় টার্গেট পায় বাংলাদেশ। জবাবে ওপেনার সৌম্য সরকারের ৪১ বলে ৬৬ ও মিডল-অর্ডার ব্যাটসম্যান মোসাদ্দেক হোসেনের ২৪ বলে অপরাজিত ৫২ রানের সুবাদে ২২ দশমিক ৫ ওভারে ২১৩ রান তুলে ফাইনাল ম্যাচ জিতে নেয় টাইগাররা। সৌম্য ৯টি চার ও ৩টি ছক্কা ও মোসাদ্দেক ২টি চার ও ৫টি ছক্কা মারেন। মাত্র ২০ বলে হাফ-সেঞ্চুরি পূর্ণ করে ওয়ানডে ক্রিকেটে বাংলাদেশের হয়ে দ্রুততম হাফ-সেঞ্চুরির রেকর্ড গড়েন মোসাদ্দেক।

মন্তব্য