kalerkantho

শুক্রবার । ২৪ মে ২০১৯। ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৮ রমজান ১৪৪০

সন্ধ্যায় ভারতের মিনার্ভার মুখোমুখি আবাহনী

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৭ এপ্রিল, ২০১৯ ১৬:২০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



সন্ধ্যায় ভারতের মিনার্ভার মুখোমুখি আবাহনী

এএফসি কাপে আজ বুধবার নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে মাঠে নামছে আবাহনী লিমিটেড। টুর্নামেন্টের প্রথম পর্বে 'ই' গ্রুপে খেলছে ঢাকা আবাহনী। তাদের সঙ্গে আছে অন্য ৩ দল ভারতের মিনারভা পাঞ্জাব ও চেন্নাই এফসি এবং নেপালের মানাং মার্সিয়াংদি ক্লাব। গ্রুপের চার দলই ইতোমধ্যে খেলেছে একটি করে ম্যাচ। এক ম্যাচ খেলেই সর্বোচ্চ ৩ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষে আছে ঢাকা আবাহনী। সন্ধ্যা পৌনে ৬টায় বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে শুরু হবে ম্যাচটি।

নেপালের ক্লাব মানাং মার্সিয়াংদিকে আবাহনী তাদের মাঠে হারিয়েছিল ১-০ গোলের ব্যবধানে। এরপর ঘরে ফিরে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে দুই ম্যাচ খেলেছে তারা। দুটিতেই জয়। প্রথমটি চট্টগ্রাম আবাহনীর বিপক্ষে ২-০ গোলে। পরেরটি শেখ জামালের বিপক্ষে পিছিয়ে পড়েও ৪-৩ গোলে। সব ম্যাচেই স্কোর করেছে তারা। আর তাই এএফসি কাপের গ্রুপে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে নামার আগে আত্মবিশ্বাসী বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী ক্লাবটি।

ঘরের মাঠ-ধারাবাহিক জয়-অভিজ্ঞতা আর নিজেদের দর্শক। সব মিলে আত্মবিশ্বাসটা ঢাকা আবাহনীরই বেশি হবার কথা। কিন্তু মাচের আগের দিন সফরকারী মিনারভা পাঞ্জাবের কোচের আত্মবিশ্বাস দেখে মনে হচ্ছে ৩ পয়েন্ট নিয়ে তবেই ঘরে ফিরবে তারা। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে এএফসি কাপের গ্রুপ পর্বে আগামীকাল সন্ধ্যা ৫ টা ৪৫ মিনিটে ঢাকা আবাহনী ৩ পয়েন্টের লক্ষ্য নিয়ে খেলতে নামবে ভারতের ক্লাবটির বিপক্ষে। জম-জমাট এক লড়াইয়েরই আভাস মিলছে।

আবাহনীর হেড কোচ মারিও লিচিনো লেমোসের কথাতেই তা স্পষ্ট, 'আমরা ৩ পয়েন্টের জন্যই বুধবার মাঠে নামব। কারণ এটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ এবং সেটা অবশ্যই সম্ভব। দলের সবাই আত্মবিশ্বাসী। প্রতিপক্ষ অবশ্যই ভালো দল। তবে আবাহনীও কোনো অংশে খারাপ দল নয়। ৩ পয়েন্ট পেলে পরবর্তী রাউন্ডে ওঠার পথে অনেকটা এগিয়ে থাকা যাবে। পাঞ্জাবের টিমটিকে আবাহনীর কোচ বিশ্লেষণ করেছেন এভাবে, তাদের প্রতিটি পজিশনই ভালো মনে হয়েছে। তবে সব থেকে শক্ত তাদের রক্ষণ। তবে আমাদেরও অনেক ভালো মানের অ্যাটাকিং ফুটবলার আছে। সানডে-জীবন-ব্যালফোর্ট তো খুবই দুর্দান্ত।'

প্রিমিয়ার লিগে সম্প্রতি দুই ম্যাচেই জয় পেলেও শেখ জামালের বিপক্ষে জেতা ম্যাচটি ড্র করতে করতে কোনো রকমে বেঁচে গেছে আকাশী-হলুদরা। অথচ প্রায় পুরো ম্যাচোই আধিপত্য বিস্তার করেছে তারা। ম্যাচের শেষের দিকে এসে ছন্দপতন হয়। লেমোস জানালেন মূলত এএফসি কাপের ম্যাচ নিয়ে চিন্তিত থাকায় শেষ দিকে এসে কিছুটা অমনযোগী হয়ে পড়েছিলেন আবাহনীর ফুটবলাররা। আর সে কারণেই গোলগুলো হজম করতে হয়েছে। পাঞ্জাবের বিপক্ষে নামার আগে তাদের রিকভারি সেশন ছিল খুবই গুরুত্বপূর্ণ। যেটি সঠিক ভাবে সম্পন্ন করে তবেই খেলতে নামছেন ফুটবলাররা।

দলের অধিনায়ক শহীদুল আলম সোহেলও জানালেন সেটাই, 'আমাদের এখন ৩ পয়েন্ট পাওয়া জরুরী। আর আমরা সে জন্যই খেলতে নামাব। দলের সব ফুটবলার ফিট আছে। রিকভারির জন্য যত রকম পদক্ষেপ নেয়া দরকার সেটি ক্লাবের পক্ষ থেকে করা হয়েছে। পর পর ৩ ম্যাচ জিতেছি। দলের সবাই মানসিকভাবে উজ্জীবিত আছে।'

গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হবার দৌড়ে এগিয়ে থাকতে আবাহনীকে পয়েন্ট খোয়ালে চলবে না। সেই সঙ্গে ব্যবধানটা একটু বড় স্কোরের হলে আরো ভালো হয়। তবে দলীয় অধিনায়ক জানালেন এখন তারা ৩ পয়েন্ট নিয়েই বেশি ভাবছেন। স্কোরটা কত ব্যবধানে হবে সেটির দিকে বেশি গুরুত্ব না দিয়ে গোল হজম না করা এবং জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ার পরিকল্পনাই তারা করছেন।

ঢাকা আবাহনীর বেশ কিছু ফুটবলারের অভিজ্ঞতা আছে আগেও এএফসি কাপের গ্রুপ পর্বে খেলার। কিন্তু প্রতিপক্ষ মিনেরভা পাঞ্জাবের কোন ফুটবলারেরই পূর্বে এএফসি কাপে খেলার অভিজ্ঞতা নেই। এমনটাই জানিয়েছেন ভারতীয় এই ক্লাব কোচ শচীন। কিন্তু তারপরও আত্ববিশ্বাসে টগবগ করছেন সফরকারী দলটির কোচ। আবাহনীকে একরকম অবজ্ঞা করে যেনো রীতিমতো চ্যালেঞ্জই ছুঁড়ে দিলেন,'আমরা খুবই আত্মবিশ্বাসী। আমরা খুব ভালো প্রস্তুতি নিয়ে এসেছি। অবশ্যই ৩ পয়েন্টের জন্যই খেলব। আবাহনী-মানাংয়ের ম্যাচটি দেখেছি। সত্যি বলতে আমার মনে হয়েছে নেপালই বেশি ভালো খেলেছে। কিন্তু আবাহনী তাদের গোলরক্ষকের জন্য গোল হজম করেনি। আমরা জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ব আশা করি।'

দলের অধিনায়ক সৌভিক রায় জানালেন,'আমাদের প্রস্তুতি খুব ভালো হয়েছে। আমরা ৩ পয়েন্টের জন্যই খেলব।'

মন্তব্য