kalerkantho

মঙ্গলবার । ২২ অক্টোবর ২০১৯। ৬ কাতির্ক ১৪২৬। ২২ সফর ১৪৪১              

সাউদির কাছে যে টিপস নিতে চান রাহি

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৪ মার্চ, ২০১৯ ১৮:২১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সাউদির কাছে যে টিপস নিতে চান রাহি

ছবি : এএফপি

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ইতোমধ্যে শেষ হওয়া দুই টেস্টে বাংলাদেশ বোলারদের পারফরমেন্স ছিল যাচ্ছেতাই। দুই ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের মাত্র ১২ উইকেট শিকার করতে পারে টাইগার বোলাররা। এজন্য খরচ হয়ে ১১৪৭ রান! অথচ নিউজিল্যান্ডের পেসাররা নিজেদের উইকেটে ছিলেন উজ্জল। তাহলে বাংলাদেশের পেসাররা কেন ব্যর্থ! এর কারণ হিসেবে অভিজ্ঞতাকে দুষছেন দলের ডান-হাতি বোলার আবু জায়েদ রাহি। তার ইচ্ছা দুধর্ষ পেসার টিম সাউদির কাছ থেকে টিপস নেওয়া।

রাহি বলেন, 'আমার কাছে মনে হয়, আমাদের আরও বেশি টেস্ট খেলানো উচিত। অন্যান্য দেশের বোলারদের দিকে লক্ষ্য করলে দেখবেন, তারা অনেকেই অনেকগুলো টেস্ট খেলেছে। কিন্তু সেখানে আমাদের পেসাররা খুব বেশি টেস্ট খেলিনি। আমি মনে করি আমাদেরও অনেক টেস্ট খেলা উচিত।'

হ্যামিল্টনে সিরিজে প্রথম টেস্টে ১০৩ রান দিয়েও উইকেটশূন্য ছিলেন রাহি। তবে ওয়েলিংটনে দ্বিতীয় টেস্টে বল হাতে নজর কাড়েন তিনি। ৯৪ রানে তুলে নেন ৩ উইকেট। নিউজিল্যান্ডের ইনিংসের শুরুতেই জোড়া আঘাত হেনে ৮ রানের মধ্যে হ্যামিল্টন টেস্টের দুই সেঞ্চুরিয়ান জিত রাভাল ও টম লাথামকে বিদায় করেন তিনি। তারপরেও আড়াই দিনের কম সময়ে হারতে হয়েছে বাংলাদেশকে; সেটাও আবার ইনিংস ব্যবধানে।

বল হাতে পারফরমেন্সে উজ্জল থাকলেও, হতাশ রাহি। দলের সাফল্যকেই প্রাধান্য দিচ্ছেন তিনি, 'ব্যক্তিগত পারফরমেন্সে চেয়ে দলের সাফল্যই বেশি গুরুত্বপূর্ণ। দল জিতলে তা আমাদের জন্য ভালো হয়।'

আগের চেয়ে নিজের বোলিং-এ উন্নতি লক্ষ্য করেছেন রাহি। এজন্য বোলিং কোচ ওয়েস্ট ইন্ডিজে কোর্টনি ওয়ালশকে কৃতিত্ব দিলেন তিনি, 'আগের চাইতে এখন অনেক বেশি সুইং করাতে পারছি আমি। যদি বলে সুইং করানো যায়, তবে ব্যাটসম্যানদের পক্ষে খেলাটা কঠিন হয়ে পড়ে। আমি ওয়ালশের সাথে কথা বলেছি। আরও কাজ করতে হবে। তবে দেশের থেকে এখানে সুইং বেশি পাচ্ছি। এটাও একটা ভালো দিক।'

নিউজিল্যান্ডের বিধ্বংসী পেসার টিম সাউদির বোলিং থেকেও শেখার চেষ্টা করছেন বলে জানিয়েছেন এই তরুণ পেসার। সাউদির বিশেষ একটি ডেলিভারি মনে ধরেছে তার, 'সাউদির বাবল ডেলিভারিটি দুর্দান্ত। এটি অনেকটা ক্রস সিম বোলিং এর মতো। এটি গ্রিপ হয়ে থাকে আউটসুইংয়ের অনুরূপ। বল যখন পিচে পড়ে, অনেক বেশি সুইং করে। তার কাছ থেকে ওই ডেলিভারিটি শেখার চেষ্টা করছি। তৃতীয় টেস্টের পর সাউদির সঙ্গে এই ডেলিভারি নিয়ে কথা বলব।'

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা