kalerkantho

মঙ্গলবার । ২২ অক্টোবর ২০১৯। ৬ কাতির্ক ১৪২৬। ২২ সফর ১৪৪১              

বিশ্বকাপে পাকিস্তান ম্যাচ বয়কটের আহবান হরভজনের

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ১১:৩১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বিশ্বকাপে পাকিস্তান ম্যাচ বয়কটের আহবান হরভজনের

কাশ্মীর হামলায় আধাসামরিক বাহিনীর ৪০ সদস্য নিহত হওয়ার প্রতিবাদে আসন্ন ওয়ানডে বিশ্বকাপে পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচ বয়কট করতে ভারতের প্রতি আহবান জানিয়েছেন তারকা স্পিনার হরভজন সিং। ভারত এই হামলার মদদাতা হিসেবে পার্শবর্তী চিরপ্রতিদ্বন্দি পাকিস্তানকে দায়ী করছে এবং দেশব্যাপী প্রতিশোধের আহবান জানিয়েছে। হরভজন বলেছেন, কেবলমাত্র ক্রিকেটে পাকিস্তানের সঙ্গে সম্পর্ক রাখার কোনো প্রয়োজন নেই।

২০১৫ সালে সর্বশেষ টেস্ট ম্যাচ খেললেও এখনো ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ( আইপিএল) চালিয়ে যাওয়া ৩৮ বছর বয়সী এই স্পিনার বলেন, 'বিশ্বকাপে ১৬ জুন পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচ খেলার দরকার নেই। আমাদের সবার কাছে আগে দেশ এবং আমরা সকলে আমাদের বাহিনীগুলোর পাশে আছি।'

একজন অফ স্পিনার হিসেবে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৪১৭ টেস্ট উইকেট শিকারী হরভজন বলেন, 'পাকিস্তান সীমান্তে সন্ত্রাস ছড়াচ্ছে এবং এই হামলা অবিশ্বাস্য হতাশাজনক।'

তবে হামলায় কোনো প্রকার ভুমিকার কথা অস্বীকার করেছে পাকিস্তান। আসন্ন বিশ্বকাপের অন্যতম ফেবারিট দল ভারত। ম্যানচেস্টারে পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচটি বয়কট করলে তাদের পয়েন্ট হারাতে হবে। তবে টক হিন্দি নিউজ চ্যানেলকে হরভজন বলেন, 'পয়েন্ট খোয়ানোর বিষয়টি আমি পরোয়া করিনা। কেননা, পাকিস্তানের বিপক্ষে না খেললেও বিশ্বকাপ জয়ের জন্য ভারত এমনিতেই যথেষ্ট শক্তিশালী দল।

ক্রিকেট ক্লাব অব ইন্ডিয়ার(সিসিআই) সাধারণ সম্পাদকও পাকিস্তান ম্যাচ বয়কটের আহবান জানিয়েছেন। গত বৃহস্পতিবার কাশ্মিরে বিস্ফোরক বোঝাই গাড়ী নিয়ে সামারিক বাহিনীর কনভয়ে আত্মঘাতী হামলার নিন্দা জনিয়ে সুরেশ বাফানা বলেন, 'সিসিআই একটি ক্রীড়া সংস্থা। তবে দেশ সবার আগে।'

এই হামলার কারণে রিয়াল কশ্মীরের বিপক্ষে ম্যাচ খেলতে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন মিনার্ভা পাঞ্জাব এফসি গতকাল শ্রীনগর সফরে অস্বীকৃতি জানানোয় ভারতের শীর্ষ ফুটবল লিগেও বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি হয়েছে। রিয়াল কাশ্মীরের বিপক্ষে আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারির ম্যাচ নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন ইস্ট বেঙ্গল ক্লাব।

এ ব্যাপারে বার্তা সংস্থা এএফপিকে রিয়াল কাশ্মিরের অন্যতম মালিক সন্দীপ ছোট্ট বলেছেন, 'ম্যাচ না খেলার জন্য তারা একটি অনাকাঙ্খিত ঘটনা অজুহাত হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে। আমাদের দলের বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িক ঘৃণা ছড়ানোর চেষ্টা ক্ষমার অযোগ্য। শান্তি এবং কাশ্মীরের জনগণের জন্য আমরা সবাই খেলতে চাই।'

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা