kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৪ অক্টোবর ২০১৯। ৮ কাতির্ক ১৪২৬। ২৪ সফর ১৪৪১       

হঠাৎ উল্টোপথে ঢাকা ডায়নামাইটস

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২২ জানুয়ারি, ২০১৯ ২২:২৭ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



হঠাৎ উল্টোপথে ঢাকা ডায়নামাইটস

ছবি : বিসিবি

বিপিএলের ৬ষ্ঠ আসরের শুরু থেকে জিতেই চলছিল বর্তমান রানার্সআপ ঢাকা ডায়নামাইটস। সিলেট পর্বে রাজশাহী কিংসের কাছে প্রথম হার। এরপর আবার জয়যাত্রা চলছিল। কিন্তু বিপিএল দ্বিতীয়াবারের মতো ঢাকা ফিরতেই উল্টো পথে হাঁটতে শুরু করেছে হট ফেবারিটরা। গতকাল চিটাগং ভাইকিংসের কাছে হারের পর আজ কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের কাছে ৭ রানে হেরেছে সাকিব আল হাসানের দল। বল হাতে আগুন ঝরানো থিসারা পেরেরা নিয়েছেন ৩ উইকেট।

কুমিল্লার দেওয়া ১৫৪ রানের টার্গেটে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরু থেকেই চাপে পড়ে যায় ঢাকা ডায়নামাইটস। দলীয় ২ রানেই হজরতুল্লাহ জাজাইকে (১) পেরেরার তালুবন্দি করেন সাইফউদ্দিন। অপর ওপেনার সুনিল নারাইন (২০) রান-আউট হয়ে যান। দলীয় ৩০ রানে রনি তালুকদার (৬) ওয়াহাব রিয়াজের শিকার হন। ডারিশ রাসুলিকে নিয়ে ইনিংস মেরামতে মনযোগ দেন অধিনায়ক সাকিব। ১৫ বলে ১৯ রান করা রাসুলিকে শহিদ আফ্রিদি ফিরিয়ে দিলে ভাঙে প্রতিরোধ।

সাইফউদ্দিনের করা ১৪তম ওভারের প্রথম দুই বলে ক্যাচ দিয়েও তৃতীয় আম্পায়ারের সাহায্যে বেঁচে যান আন্দ্রে রাসেল। তৃতীয় বলেই ছক্কা হাঁকিয়ে শোধ নেন। ওই ওভারে আরও একটি ছক্কা হাঁকিয়ে মোট ১৫ রান তুলে নেন রাসেল। ক্যারিবীয় এই হার্ডহিটারের ২৪ বলে ২ চার ৫ ছক্কায় ৪৬ রানের ইনিংস শেষ হয় থিসারার বলে মেহেদী হাসানের তালুবন্দি হয়ে। এরপর অধিনায়ক সাকিব আউট হলে বড় ধাক্কা খায় ঢাকা। শহিদ আফ্রিদির বলে ১৯ বলে ২০ করা সাকিব ক্যাচ দেন শামসুরের হাতে। পেরেরার বলে ইমরুল কায়েসের তালুবন্দি হন শুভাগত হোম (৩)।

এই লঙ্কান অল-রাউন্ডারের তৃতীয় শিকার উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান নুরুল হাসান (৪)। আর ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি ঢাকা। ১৯তম ওভারে মাত্র ১ রান দেন থিসারা পেরেরা। লঙ্কান এই অল-রাউন্ডার ৩ ওভার বল করে মাত্র ১৪ রানে তুলে নেন ৩ উইকেট। শেষ ওভারে দরকার ছিল ১৯ রান। মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের করা সেই ওভারে এই হিসাব মেলাতে পারেনি ঢাকার লোয়ার অর্ডার। নির্ধারিত ২০ ওভারে তারা ৯ উইকেটে ১৪৬ রান তুলতে পারে ঢাকা। কুমিল্লা জয় ছিনিয়ে নেয় ৭ রানে।

এর আগে মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে মঙ্গলবারের দ্বিতীয় ম্যাচে টসে জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেটে ১৫৩ রান তোলে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। দলীয় ১৭ রানে এনামুল হক বিজয় (১) আন্দ্রে রাসেলের শিকার হন। তিন নম্বরে নামা অধিনায়ক ইমরুল কায়েস ৭ রান করে বোল্ড হয়ে যান রুবেল হোসেনের বলে। এমতাবস্থায় তামিম ইকবালের সঙ্গে দারুণ জুটি গড়েন শামসুর রহমান। ৬১ রানের কার্যকর এই জুটি ভাঙে ৩০ বলে ১ চার ২ ছক্কায় ৩৪ রান করা তামিমের বিদায়ে। পাকিস্তানি হার্ডহিটার শহিদ আফ্রিদি ব্যাট হাতে আবারও ব্যর্থ। ১৫তম ওভারে সাকিব আল হাসানের ঘূর্ণিতে ফিরেন ১৬ রান করে।

এক বল পরেই ৩৫ বলে ৪৮ করা শামসুরকে হজরতুল্লাহ জাজাইয়ের তালুবন্দি করে বিপিএলে ১০০ উইকেটের মালিক হয়ে যান বিশ্বসেরা অল-রাউন্ডার। লিয়াম ডসনকে বোল্ড করেন আন্দ্রে রাসেল। শেষদিকে ঝড় তোলেন লঙ্কান হার্ডহিটার থিসারা পেরেরা। তার ১২ বলে ২৬ রানের ইনিংসটি শেষ হয় রান-আউটে। ৪ ওভারে মাত্র ২৪ রান দিয়ে ৩ উইকেট শিকার করেছেন সাকিব। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেটে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের সংগ্রহ দাঁড়ায় ১৫৩ রান।

উল্লেখ্য, দিনের প্রথম ম্যাচে ক্রিস গেইল, অ্যালেক্স হেলস, এবিডি ভিলিয়ার্সের দাপুটে ব্যাটিংয়ে খুলনা টাইটান্সের বিপক্ষে ৬ উইকেটের বড় জয় তুলে নিয়েছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন রংপুর রাইডার্স।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা