kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৫ অক্টোবর ২০১৯। ৩০ আশ্বিন ১৪২৬। ১৫ সফর ১৪৪১       

'অনেক হয়েছে; এবার ওদের মাঠে ফেরানো হোক'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২০ জানুয়ারি, ২০১৯ ১৬:১৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



'অনেক হয়েছে; এবার ওদের মাঠে ফেরানো হোক'

ভারতের দুই তারকা ক্রিকেটার হার্দিক পাণ্ডিয়া ও কে এল রাহুল বিতর্কে নতুন মোড়। টিভির অনুষ্ঠানে বিতর্কিত মন্তব্য করে অভিযুক্ত দুই তারকা ক্রিকেটারের শাস্তির বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে বিশেষ সাধারণ সভা ডাকতে রাজি নন ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের ভারপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্ট সি কে খান্না। তিনি বলেছেন, যেহেতু বিষয়টি আদালতের বিচারাধীন, তাই ওম্বাডসমান নিয়োগের জন্য এই বিশেষ সভা তিনি ডাকবেন না। 

হার্দিক ও রাহুল এই মুহূর্তে সাময়িক নির্বাসনে আছেন। সুপ্রিম কোর্ট নিযুক্ত কমিটি অফ অ্যাডমিনিস্ট্রেটর্স (সিওএ) চেয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট নিযুক্ত ওম্বাডসমান এই দুই ক্রিকেটারের ভাগ্য নির্ধারণ করুক। কিন্তু বোর্ড অনুমোদিত ১৪টি রাজ্য সংস্থা খান্নাকে ১০ দিনের মধ্যে বিশেষ সভা ডাকার অনুরোধ করে। যাতে ওই সভায় একজন ওম্বাডসমান বেছে নিয়ে তাকে এই বিযয়টি বিচারের দায়িত্ব দেওয়া হয়।

জবাবে সি কে খান্না এক চিঠিতে লিখেছেন, 'ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী ওম্বাডসমান নিয়োগ করা যায় শুধুমাত্র বার্ষিক সাধারণ সভায়। তা ছাড়া ওম্বাডসমান নিয়োগের ব্যাপারটা আদালতে বিচারাধীন। তাই এখনই এই সভা ডাকার সিদ্ধান্ত নিতে পারছি না।'

তবে এরই মাঝে বোর্ডের একটা অংশ চাইছে, হার্দিক ও রাহুলের শাস্তি ঘোষণা হওয়া পর্যন্ত তাদের খেলতে দেওয়া হোক। বোর্ডের ভারপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্ট নিজেই সিওএর কাছে এই আবেদন করেছেন। তিনি লিখেছেন, 'হার্দিক বা রাহুল যা করেছে, সেটা ভুল। তাই বলে ওদের অপরাধী হিসেবে বিবেচনা করা ঠিক নয়। ওরা এমন মন্তব্যের জন্য সাময়িক নিষিদ্ধ হয়েছে। অস্ট্রেলিয়া সফরের মাঝপথ থেকেও ফিরিয়ে আনা হয়েছে। নিঃশর্ত ক্ষমাও চেয়েছে ওরা। এই দুই ক্রিকেটারকে সংশোধনের সুযোগ দেওয়া হোক। ওদের শাস্তি দিতে গিয়ে যেন ওদের ক্যারিয়ার নষ্ট না করা হয়।'

উল্লেখ্য, কয়েকদিন আগে সিওএ প্রধান বিনোদ রাইও একই বক্তব্য দিয়েছিলেন। অর্থাৎ এই ব্যাপারে একই মত প্রকাশ করছেন সিওএ এবং বোর্ডের ভারপ্রাপ্ত শীর্ষ ব্যক্তিত্ব। সি কে খান্না সিওএকে পাঠানো চিঠিতে লিখেছেন, 'বিশ্বকাপের ৪ মাস আগে ওদের ম্যাচ অনুশীলন দরকার। তাই হার্দিকদের বরং নিউজিল্যান্ড সফরে মাঠে ফিরতে দেওয়া হোক।'

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা