kalerkantho

বুধবার । ২১ আগস্ট ২০১৯। ৬ ভাদ্র ১৪২৬। ১৯ জিলহজ ১৪৪০

দুই সতীর্থের নারী বিদ্বেষী মন্তব্যে যা বললেন কোহলি

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১১ জানুয়ারি, ২০১৯ ১৪:৫৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দুই সতীর্থের নারী বিদ্বেষী মন্তব্যে যা বললেন কোহলি

সিডনিতে সংবাদ সম্মেলনে কথা বলছেন বিরাট কোহলি। ছবি : এএফপি

ভারতের টিভি রিয়েলিটি শো 'কফি উইথ করণ’ এ নারীদের নিয়ে হার্দিক পাণ্ডিয়া ও লোকেশ রাহুলের মন্তব্য নিয়ে মুখ খুলেছেন অধিনায়ক বিরাট কোহলি। তিনি স্পষ্ট করেই বলেছেন, এ ধরণের নারী বিদ্বেষী মন্তব্য ভারতীয় দল সমর্থন করে না। একইসঙ্গে এই বিষয়টি কঠোরভাবে দুই ক্রিকেটারকে বুঝিয়েও দেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি। 

গত রবিবার টেলিভিশনে ওই টক শো প্রচারিত হওয়ার পর থেকেই সোশ্যাল মিডিয়ার তোপের মুখে আছেন হার্দিক-রাহুল। নারীবিদ্বেষী বলে চিহ্নিত হয়েছে দুজনের মন্তব্য। মারাত্মক সমালোচনা শুরু হওয়ায় ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড শোকজ করে দুজনকে। একদিনের মধ্যে উত্তর দিতে বলা হয়। হার্দিক ক্ষমা চান সোশ্যাল মিডিয়ায়। তিনি ক্ষমা চেয়েছেন সাবেক অধিনায়ক মহেন্দ্র সিংহ ধোনি ও প্রধান কোচ রবি শাস্ত্রীর কাছে।

এই অল-রাউন্ডার বলেন, ওই অনুষ্ঠানে কথা বলতে গিয়ে নিজেকে আর সামলাতে পারেননি। তবে তাতে বিতর্ক থামছে না। প্রশাসকদের কমিটির প্রধান বিনোদ রাই দুই ক্রিকেটারকে ২ ম্যাচ নিষিদ্ধ করার সুপারিশ করেছেন। হার্দিক-রাহুলের মন্তব্যে ভারতীয় ক্রিকেট দলের সংস্কৃতি নিয়ে উঠে পড়েছে প্রশ্ন।

সমালোচনা এড়াতে আজ শুক্রবার সিডনিতে কোহালি বলেছেন, 'এই ধরনের যে কোনো মন্তব্য আমরা সমর্থন করি না। কোথায় ভুল হয়েছে, তা ওই দুই ক্রিকেটার বুঝতে পেরেছে। যা হয়েছে তা কত গুরুতর বিষয়, সেটাও উপলব্ধি করেছে ওরা। এই ধরনের মন্তব্য যে মানুষের খারাপ লাগবে, তা নিশ্চিত ভাবেই বুঝেছে ওরা।'

এশিয়ার প্রথম অধিনায়ক হিসেবে সদ্য অস্ট্রেলিয়ায় টেস্ট সিরিজ জয়ী অধিনায়ক আরও বলেছেন, “ভারতীয় ক্রিকেট দলের দায়িত্বশীল ক্রিকেটার হিসেবে আমরা এই ধরনের মন্তব্যের সঙ্গে মোটেই সহমত পোষণ করছি না। এগুলো ব্যক্তিগত মতামত। আমরা এখনও এই ব্যাপারে সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় রয়েছি। আর এই ঘটনায় আমাদের ড্রেসিংরুমের বিশ্বাস বা মতাদর্শে কোনও পরিবর্তন ঘটছে না। আমরা যে স্পিরিট নিয়ে খেলছি, সেটাও অব্যাহত রয়েছে।'

এই ঘটনায় অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে প্রথম ওয়ানডে ম্যাচের আগে সমস্যা পড়েছে ভারত। কারণ, হার্দিককে একাদশে রাখা যাবে কিনা, তা স্পষ্ট নয়। কোহালি বলেছেন, এই বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানা না যাওয়া পর্যন্ত কম্বিনেশন নিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে  না। এই কারণেই ভারত  ১২ জনের দল ঘোষণা স্থগিত রেখেছে। টেস্ট সিরিজে প্রত্যেক ম্যাচের আগের দিনই ১২ জন জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল। তবে শোনা যাচ্ছে, হার্দিকের নির্বাসন নিশ্চিত। কিছুটা ছাড় পেলেও পেতে পারেন রাহুল।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা