kalerkantho

শনিবার  । ১৯ অক্টোবর ২০১৯। ৩ কাতির্ক ১৪২৬। ১৯ সফর ১৪৪১                     

বাংলাদেশকে ম্যাচে ফেরালেন সাকিব

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৯:৩৪ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



বাংলাদেশকে ম্যাচে ফেরালেন সাকিব

দারুণ এক ঘূর্ণিতে আফগানিস্তান অধিনায়ক আসগর আফগানকে ফেরালেন সাকিব আল হাসান। ৮ রান করা এই ব্যাটসম্যানকে সরাসরি বোল্ড করেন তিনি। মোহাম্মদ শাহজাদ ও আসগরকে বিদায় করে বিশ্ব সেরা এই অলরাউন্ডার বাংলাদেশকে ম্যাচে ফেরান।

৩০ ওভার শেষে আফগানিস্তানের সংগ্রহ এখন ৪ উইকেটে ১২৮।

দারুণ খেলতে থাকা আফগানিস্তান ওপেনার মোহাম্মদ শাহজাদকে বিদায় করলেন সাকিব আল হাসান। দলীয় ২০তম ওভারে নিজের প্রথম ওভার করতে এসে তৃতীয় বলেই তাকে তুলে নেন বিশ্ব সেরা অলরাউন্ডার। তবে বাউন্ডারি অঞ্চলে অসাধারণ ক্যাচ নিয়ে আলো কেড়ে নেন আবু হায়দার রনি। ৪৭ বলে ৪টি চারে ৩৭ করেন শাহজাদ।

ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই আফগানিস্তানের ওপেনার ইহসানুল্লাহকে ফিরিয়ে দিয়ে দারুণ এক ব্রেক থ্রু এনে দিয়েছিলেন অভিষিক্ত পেসার আবু হায়দার রনি। ইনিংসের ৬ষ্ঠ ওভারে হেনেছিলেন দ্বিতীয় আঘাত। ফিরিয়ে দিয়েছিলেন আফগানদের আরেক ভয়ঙ্কর ব্যাটসম্যান রহমত শাহকে। এ সময় তাদের রান ছিল ২৮।

এরপরই তৃতীয় উইকেট জুটিতে ওপেনার মোহাম্মদ শাহজাদ এবং চার নম্বরে ব্যাট করতে নামা হাশমতউল্লাহ শহিদি। দু’জন মিলে ৫১ রানের দারুণ একটি জুটি গড়ে তোলেন। বাংলাদেশের কোনো বোলারকেই যেন পাত্তা দিচ্ছিলেন না তারা দু’জন। ধীরে ধীরে ভয়ঙ্কর হয়ে উঠছিলেন শাহজাদ এবং শহিদি।

ইনিংসের ২০তম ওভারে বাধ্য হয়ে সাকিব আল হাসানকে বোলিংয়ে নিয়ে আসলেন মাশরাফি বিন মর্তুজা। বোলিংয়ে এসে প্রথম বল থেকে সমীহ আদায় করতে পারলেও দ্বিতীয় বলে খেলেন বাউন্ডারি। তৃতীয় বলেও মোহাম্মদ শাহজাদ উড়িয়ে মারেন সাকিবকে। কিন্তু দুর্ভাগ্য আফগান ওপেনারের। বাউন্ডারি লাইনে লাফ দিয়ে উঠে ক্যাচটি তালুবন্দী করে নেন আবু হায়দার রনি।

নিজের অভিষেকটাকে সব ধরনের রঙে রাঙিয়ে দেয়ার জন্যই যেন নেমেছেন রনি। শুরুতে দুই উইকেট নেয়ার পর গুরুত্বপূর্ণ সময়ে ধরলেন দুর্দান্ত এক ক্যাচ। বাউন্ডারি লাইনের ওপর লাফ দিয়ে অনেক ওপরে ওঠে বলটি তিনি তালুবন্দী না করলে আফগানদের ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠা জুটিটিরও হয়তো সমাপ্তি ঘটতো না। ৪৭ বলে ৩৭ রান করে ফিরে যান মোহাম্মদ শাহজাদ।

আজ ফিল্ডিংয়ে নেমে শুরুটা দুর্দান্ত করে টাইগাররা। নিজের ওয়ানডে অভিষেকের প্রথম ওভারেই উইকেট তুলে নেয়ার পর তৃতীয় ওভারে রহমত শাহকে সরাসরি বোল্ড করে জোড়া উইকেটের আনন্দ উদযাপন করেন পেসার আবু হায়দার রনি।

এশিয়া কাপে গ্রপ পর্বের শেষ ম্যাচে আফগানিস্তানের বিপক্ষে খেলতে নেমে ওপেনার ইহসানুল্লাহ জানাতকে মোহাম্মদ মিঠুনের ক্যাচ বানিয়ে মাঠ ছাড়া করেন এই বাঁহাতি। পরে দলীয় ষষ্ঠ ও নিজের তৃতীয় ওভারের পঞ্চম বলে রহমত শাহ-র স্ট্যাম্প ভেঙে দেন তিনি।

আফগানিস্তানের বিপক্ষে টসে হেরে ফিল্ডিংয়ে নামে বাংলাদেশ। টাইগারদের একাদশে আজ নেই মুশফিক আর মোস্তাফিজ। আজকের ম্যাচ দিয়ে অভিষেক হলো আবু হায়দার রনি ও নাজমুল হোসেন শান্ত।

এশিয়া কাপের গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে বাংলাদেশ সময় বিকেল সাড়ে ৫টায় আবুধাবিতে মুখোমুখি হয় বাংলাদেশ-আফগানিস্তান।

এক ম্যাচ হাতে রেখেই দুই দলই সুপার ফোরে স্থান নিশ্চিত করেছে। এবার এশিয়া কাপের গ্রুপ পর্বে নিজেদের শেষ ম্যাচে একে অন্যের মুখোমুখি হচ্ছে বাংলাদেশ-আফগানিস্তান। দুই দলই গ্রুপ পর্বে শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে সুপার ফোরে পা রেখেছে। তাই বলে এই ম্যাচের গুরুত্ব মোটেই কমে যাচ্ছে না। দুই দলই গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন হয়ে নিজেদের ঝালিয়ে নিতে চাইবে।

আফগানিস্তানের বিপক্ষে এখন পর্যন্ত ৫ ওয়ানডেতে মুখোমুখি হয়ে তিন জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে বাংলাদেশ। সর্বশেষ ওয়ানডেতে আফগানদের বিপক্ষে ১৪১ রানে বিজয়ী হয়েছিল টাইগাররা। ২০১৬ সালে ত্রিদেশীয় সিরিজের ম্যাচটি বাংলাদেশকে নিশ্চিতভাবে অনুপ্রেরণা জোগাবে।

বাংলাদেশ দলে ফিরেছেন ব্যাটসম্যান মুমিনুল হক। প্রায় তিন বছর পর ওয়ানডে দলে ফিরলেন তিনি। সর্বশেষ ২০১৫ সালের বিশ্বকাপে শ্রীলঙ্কার বিপক্কখে মাঠে নেমেছিলেন এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান।

বাংলাদেশ একাদশ: মাশরাফি বিন মর্তুজা (অধিয়ানায়ক), আবু হায়দার রনি, নাজমুল হোসেন শান্ত, সাকিব আল হাসান, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, লিটন দাস (উইকেটরক্ষক), রুবেল হোসেন, মোসাদ্দেক হোসেন, মেহেদি হাসান মিরাজ, মুমিনুল হক, মোহাম্মদ মিঠুন।

আফগানিস্তান একাদশ: মোহাম্মদ শাহজাদ (উইকেটরক্ষক), ইহসানুল্লাহ জানাত, রহমত শাহ, আসগার আফগান (অধিনায়ক), হাসমাতুল্লাহ শাহিদী, সামিউল্লাহ শেনওয়ারি, মোহাম্মদ নবী, গুলবদিন নায়িব, রশিদ খান, আফতাব আলম, মুজিব উর রহমান।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা