kalerkantho

বুধবার । ২৬ জুন ২০১৯। ১২ আষাঢ় ১৪২৬। ২৩ শাওয়াল ১৪৪০

বিশ্বসাহিত্য

রিয়াজ মিলটন   

৩ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



 ইদা ভিতালের পদক গ্রহণ

সারভান্তেস গ্রহণ ইদার

২০১৮ সালের সারভান্তেস পুরস্কার গ্রহণ করলেন ইদা ভিতালে। সম্প্রতি স্পেনের রাজধানী মাদ্রিদের কাছে আলকালা ইউনিভার্সিটিতে এক জাঁকজমকপূর্ণ অনুষ্ঠানে স্প্যানিশ সাহিত্যের সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ এ পুরস্কারটি উরুগুয়ের ৯৫ বছর বয়সী এ লেখকের হাতে তুলে দেন স্পেনের রাজা ফেলিপে ও রানি লেতিজিয়া। ইদা সারভান্তেসজয়ী পঞ্চম নারী লেখক। ১৯২৩ সালে জন্ম নেওয়া ইদা হচ্ছেন উরুগুয়ের ‘জেনারেশন অব ৪৫’ নামে পরিচিত শিল্প আন্দোলনে অংশ নেওয়া সর্বশেষ জীবিত ব্যক্তি। বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসকারী ইদা রোমানস ভাষার সাহিত্যে অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে গত বছর মেক্সিকোর এফআইএল সাহিত্য পুরস্কার পান। দোন কিহোতে গ্রন্থের লেখক মিগুয়েল দে সারভান্তেসের নামে ১৯৭৫ সালে প্রবর্তিত সারভান্তেস পুরস্কার দেওয়া হচ্ছে ১৯৭৬ সাল থেকে। এক লাখ ২৫ হাজার ইউরো অর্থমূল্যের এ পুরস্কার স্প্যানিশ ভাষাভাষী বিশ্বের সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ ও দামি পুরস্কার। সারভান্তেস পুরস্কারের জুরি বোর্ড ইদা সম্পর্কে বলেন, তিনি সাহিত্যে একটি কাব্যিক ও বুদ্ধিবৃত্তিক পথের দিশা দিয়েছেন। ‘তিনি যে কাব্যভাষার প্রচলন করেছেন তা বর্তমান সময়ের স্প্যানিশ কবিতায় সবচেয়ে বেশি চোখে পড়ে। তাঁর কবিতা একই সময়ে বুদ্ধিবৃত্তিক ও সুবোধ্য, সার্বজনীন ও ব্যক্তিগত, স্বচ্ছ ও গভীর।’

ম্যাটস মালম

মালম সুইডিশ একাডেমির সেক্রেটারি

ইউনিভার্সিটি অব গোটেনবার্গের সাহিত্য তত্ত্বের অধ্যাপক ম্যাটস মালমকে সুইডিশ একাডেমির স্থায়ী সেক্রেটারি নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। সুইডিশ অ্যাকাডেমিই সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার দিয়ে থাকে। ৫৪ বছর বয়সী ম্যাটস মালম চার মাস আগে অ্যাকাডেমির সদস্য নির্বাচিত হন। গত বছরের নভেম্বর থেকে ভাবমূর্তির সংকটে ভুগছে সুইডিশ অ্যাকাডেমি। সে সময় একাডেমির সদস্য কবি ক্যাটারিনা ফ্রস্টেনসনের স্বামী জ্যঁ-ক্লদ আহনুর বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ তুলে বেশ কয়েকজন সদস্য একযোগে পদত্যাগ করেন। এর ফলে একাডেমির কোরাম ভেঙে যায়। কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য ন্যূনতম যতজন সদস্য থাকা প্রয়োজন, তা অ্যাকাডেমির ছিল না। একাডেমির স্থায়ী সেক্রেটারির পদ ছাড়তে বাধ্য হন সারা দানিয়ুস। ওই বছরের সাহিত্যের নোবেল পুরস্কারও স্থগিত ঘোষণা করে সুইডিশ অ্যাকাডেমি। কর্তৃপক্ষ তাদের ভাবমূর্তি উদ্ধারের নানা চেষ্টার পাশাপাশি ঘোষণা দেয় যে ২০১৯ সালে একসঙ্গে ২০১৮ ও ২০১৯ সালের সাহিত্যের নোবেল পুরস্কার দেওয়া হবে। এর আগে সুইডিশ অ্যাকাডেমি এক ঘোষণায় জানায়, এ বছর সাহিত্যের নোবেল পুরস্কার জুরি বোর্ডে একাডেমির বাইরে থেকে আরো পাঁচজনকে অন্তর্ভুক্ত করা হবে।

 হোদা বারাকাত

আরবের বুকার পেলেন

হোদা বারাকাত

লেবাননের লেখক হোদা বারাকাত জিতে নিয়েছেন এ বছরের আরবের বুকার বলে পরিচিত ইন্টারন্যাশনাল প্রাইজ ফর অ্যারাবিক ফিকশন। তাঁর পুরস্কারজয়ী উপন্যাসটির নাম ‘দ্য নাইট মেইল’। দেশ থেকে নির্বাসিত কিছু মানুষের চিঠিতে উঠে আসা জীবন কাহিনি নিয়ে সাজিয়েছেন এ উপন্যাস। বৈরুতে জন্ম নেওয়া হোদা বর্তমানে প্যারিসে বসবাস করছেন। ‘দ্য নাইট মেইল’ তাঁর ষষ্ঠ উপন্যাস। পুরস্কারের সম্মানী হিসেবে হোদা ৫০ হাজার ডলার পাবেন। পাশাপাশি তাঁর বইটি ইংরেজিতে প্রকাশের ব্যবস্থা করা হবে। বইটি ইতিমধ্যেই ফরাসি ভাষায় অনূদিত হয়েছে। তাঁর অন্যান্য উপন্যাসের মধ্যে ‘দ্য স্টোন অব লাফটার’ এবং ‘মাই মাস্টার অ্যান্ড মাই লাভার’ উল্লেখযোগ্য। এ বছর ইন্টারন্যাশনাল প্রাইজ ফর অ্যারাবিক ফিকশনের জন্য মনোনীত বইয়ের সংক্ষিপ্ত তালিকার অন্য বইগুলো ছিল—মিসরের আদেল এসমাতের ‘দ্য কমান্ডমেন্টস’, ইরাকের ইনাম কাচাচির ‘দ্য আউটকাস্ট’, মরক্কোর মোহাম্মেদ আল-মাজুজের ‘হোয়াট সিন কজড হার টু ডাই?’, সিরিয়ার সাহলা উজায়লির ‘সামার উইথ দ্য এনেমি’ এবং জর্ডানের কাফা আল-জৌবির ‘কোল্ড হোয়াইট সান’। সংক্ষিপ্ত তালিকার লেখকরা প্রত্যেকে ১০ হাজার ডলার করে পাবেন।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা