kalerkantho

বুধবার। ১৯ জুন ২০১৯। ৫ আষাঢ় ১৪২৬। ১৫ শাওয়াল ১৪৪০

মেলার প্রথম সপ্তাহের নির্বাচিত ৫ বই
স্মৃতিকাহন

হাসান আজিজুল হকের অখণ্ড আত্মজীবনী

স্বকৃত নোমান

৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



হাসান আজিজুল হকের অখণ্ড আত্মজীবনী

স্মৃতিকাহন—হাসান আজিজুল হক। প্রকাশক : ইত্যাদি গ্রন্থ প্রকাশ। প্রচ্ছদ : সমর মজুমদার। মূল্য : ৮০০ টাকা।

প্রতিবছর অমর একুশে গ্রন্থমেলায় হাজার হাজার বই প্রকাশিত হয়। আমরা যারা পাঠক, তারা কি সব বইয়ের জন্য অপেক্ষায় থাকি? না, থাকি না। অপেক্ষায় থাকি বিশেষ কয়জন লেখকের বিশেষ কিছু বইয়ের জন্য। সেই বিশেষ লেখকদের মধ্যে কথাসাহিত্যিক হাসান আজিজুল হক একজন। 

আমরা যখন কোনো লেখকের বই পড়ি, তখন সেই বইয়ে লেখককেও খুঁজে বেড়াই। মাঝেমধ্যে মনে হয়, এই চরিত্রটি বুঝি স্বয়ং লেখক। লেখকই যেন অন্য একটা চরিত্রের মধ্য দিয়ে নিজেকে উপস্থাপন করেছেন। আসলে তা নয়। গল্প-উপন্যাসের চরিত্ররা লেখকের বানানো চরিত্র। কিন্তু লেখক যখন আত্মজীবনী লেখেন, তখন সেখানে স্বয়ং লেখকই উপস্থিত থাকেন। আত্মজীবনীতে লেখক নিজেই নিজের কথা লেখেন। নিজেই কাহিনিকার, নিজেই চরিত্র এবং নিজেই ওই চরিত্রের সমালোচক। আত্মজীবনী হতে পারে বহু বৈচিত্র্যপূর্ণ। আত্মজীবনী কখনো কখনো ইতিহাসেরও অংশ হয়ে ওঠে।

‘স্মৃতিকাহন’ বইটি সমকালীন বাংলা সাহিত্যের শক্তিমান কথাশিল্পী হাসান আজিজুল হকের আত্মজীবনী। এটি তাঁর আত্মজীবনীর অখণ্ড সংস্করণ বলা যায়। এর আগের ‘ফিরে যাই ফিরে আসি’, ‘উঁকি দিয়ে দিগন্ত’, ‘এই পুরাতন আখরগুলি’ ও ‘দুয়ার হতে দূরে’ নামে আলাদা আলাদাভাবে আত্মজীবনীর বই প্রকাশিত হয়েছে। প্রথম তিনটি বইয়ে তিনি লিখেছেন তাঁর শৈশবের দিনগুলোর কথা। সর্বশেষ বইয়ে লিখেছেন তাঁর ফেলে আসা কৈশোরের কথা। এই চার খণ্ড আত্মজীবনীর সংকলন হচ্ছে ‘স্মৃতিকাহন’।  ‘স্মৃতিকাহন’ বইটিতে তিনি মেলে ধরেছেন নিজেকে। আশি বছর বয়সী এই কথাশিল্পী যেভাবে নিজের কৈশোরকালের বর্ণনা দিয়েছেন বইটিতে, পড়তে গিয়ে আমাদের মনে হয় সেসব দিনের একটি ঘটনাও তিনি ভোলেননি। সব যেন এখনো সজীব। স্মৃতি তাঁর সঙ্গে প্রতারণা করেনি। সবই তাঁর মনে আছে। স্মৃতির ডায়েরিতে টুকে রাখা ঘটনাগুলোর পুঙ্খানুপুঙ্খ বর্ণনা তিনি দিচ্ছেন স্বতঃস্ফূর্তভাবে।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা