kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ । ১৪ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ২ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

গাইবান্ধায় শুভসংঘের আবর্জনা ঝুড়ি উপহার

গাইবান্ধা প্রতিনিধি    

১৬ আগস্ট, ২০২২ ২১:২৯ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



গাইবান্ধায় শুভসংঘের আবর্জনা ঝুড়ি উপহার

গাইবান্ধায় কালের কণ্ঠ শুভসংঘের 'পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা অভিযান' কর্মসূচির উদ্বোধনী পর্বের বক্তব্যে প্রবীণ কবি, শুভসংঘের প্রধান উপদেষ্টা ও  লিটলম্যাগ সম্পাদক সরোজ দেব বললেন, 'নাগরিক সুবিধা লাভের বিপরীতে আমাদের নাগরিক দায়িত্বও পালণ করতে হবে। পৌর কর্তৃপক্ষের একার পক্ষে এই শহর পরিচ্ছন্ন রাখা সম্ভব নয় । সে ক্ষেত্রে সকলকে এগিয়ে আসতে হবে। শুভসংঘের তরুণ বন্ধুরা যে উদ্যোগ নিয়েছে তার সাথে আপনারা সকলে থাকবেন তো?'  তার বক্তব্যে করতালি দিয়ে সমর্থণ জানান পৌর মেয়র মো. মতলুবর রহমানসহ উপস্থিত সকলে।

বিজ্ঞাপন

এই দৃশ্য মঙ্গলবার (১৬ আগস্ট) গাইবান্ধা পৌর পার্কের শহীদ মিনার সংলগ্ন কড়ই তলার।

অতিথিরা ছাড়াও বিপুলসংখ্যক মানুষ স্বতঃস্ফূর্তভাবে ভীড় করেছেন এ আয়োজনে। বোঝা গেল শহর পরিস্কারের এই ব্যাতিক্রমী উদ্যোগটি সকলের ভাল লাগার বিষয়ে পরিণত হয়েছে।

কালের কন্ঠ শুভসংঘের সুন্দর ও দূষণমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে ব্যতিক্রমী 'পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা অভিযান' কর্মসূচির উদ্বোধন করেন পৌর মেয়র মো. মতলুবর রহমান। তার সাথে ছিলেন প্যানেল মেয়র আবদুস সামাদ রোকন।

শুভসংঘের জেলা সভাপতি হুমায়ুন আহমেদ বিপ্লবের সভাপতিত্বে আলোচনায় আরো অংশ নেয় র‌্যাব-১৩ গাইবান্ধা ক্যাম্পের স্কট কমান্ডার এস এম আলমগীর হোসেন, সহ সভাপতি শিমুল হাউলিদার, সাধারণ সম্পাদক আতিকুর রহমান আতিক ও কালের কণ্ঠের জেলা প্রতিনিধি অমিতাভ দাশ হিমুন। এরপর শুভসংঘের বন্ধুদের সাথে মেয়র ও অতিথিরা র‌্যালিতে অংশ নেন।

এ সময় মেয়র, অতিথি ও শুভসংঘ কর্মীরা ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালিক কর্মচারীদের 'আবর্জনা ঝুড়ি' উপহার দেন। গাইবান্ধা পৌরসভা ও র‌্যাব এই কর্মসূচিতে সহায়তা দিচ্ছে।

শুভসংঘের জেলা সভাপতি হুমায়ুন আহমেদ বিপ্লব বলেন, গাইবান্ধা পৌর এলাকার স্টেশন রোড ও ডিবি রোডসহ বিভিন্ন এলাকায় ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের নোংরা আবর্জনা ও পরিত্যক্ত জিনিসপত্র রাস্তার ধারে যত্রতত্র ফেলে রাখা হয়। যার ফলে শহরটি সৌন্দর্য হারাচ্ছে। এর ফলে পথচারী চলাচল বিঘ্নিত হওয়ার পাশাপাশি ক্রেতাদেরও নানা সমস্যায় পড়তে হয়। তাই শুভসংঘ সচেতনতামূলক কর্মসূচির অংশ হিসেবে এই দুটি সড়কের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালিকদের 'আবর্জনা রাখার ঝুড়ি' উপহার দিচ্ছে। এই কর্মসূচি অব্যাহত রেখে আগামীতে জেলার অন্য উপজেলা সদরেও শুভসংঘের বন্ধুরা কাজ করবে।

শুভসংঘের প্রধান উপদেষ্টা কবি সরোজ দেব বললেন, প্রিয় এই শহরটি আমাদের অবহেলায় ধীরে ধীরে তার অতীত রূপটি হারাচ্ছে। মানুষ সচেতন না হলে শহর পরিস্কার রাখা অসম্ভব।   আমরা শুধু অন্যের মুখাপেক্ষী হয়ে থাকি। কিন্তু নিজেরা নিজের অঙ্গনটিও একবেলা পরিস্কার করি না।

র‌্যাব কমান্ডার সিনিয়র এ এসপি এস এম আলমগীর হোসেন বলেন, পরিচ্ছন্ন শহর কিংবা নগরের স্বপ্ন দেখতে হলে প্রথমত নাগরিকদেরই এগিয়ে আসতে হবে। তিনি উন্নত বিশ্বের উদাহরণ টেনে বলেন, সেখানকার মানুষ সামান্য চকলেটের খোসা কিংবা অন্যান্য ছোটখাটো জিনিস ফেলতেও প্রয়োজনে কয়েক কিলোমিটার হাঁটতে প্রস্তুত। তিনি বলেন, সব কিছু আইনি প্রক্রিয়ায় সম্ভব নয় । এ ক্ষেত্রে সামাজিক সচেতনতা সৃষ্টির বিকল্প নেই । র‌্যাব সদস্যরাও এই কাজে শুভসংঘের পাশে থাকবে।

গাইবান্ধা পৌর মেয়র মো. মতলুবর রহমান বলেন, সকাল সাড়ে আটটার ভেতরে পৌর পরিচ্ছন্নতা কর্মীরা সড়ক ও আশেপাশের এলাকার বর্জ্য সরিয়ে ফেলেন। এরপর যারা আবর্জনা ফেলেন,তারা একটু সতর্ক হলেই এ শহর ঝকঝকে হয়ে উঠবে । তিনি প্রতিশ্রুতি দেন কালের কণ্ঠ শুভসংঘের এই কর্মসূচিতে তার পৌরসভাও সর্বাত্ত্বক সহযোগিতা করবে।

স্টেশন রোডের ব্যবসায়ী মোস্তফা মিয়া বলেন, একদল তরুণ-তরুণী এসে চমৎকার করে বুঝিয়ে ঝুড়ি উপহার দিচ্ছে, বিষয়টি সকলকে ভাবাবে। আমিও কথা দিয়েছি, আমার প্রতিষ্ঠান ও সংলগ্ন এলাকা পরিচ্ছন্ন রাখব।

শুভসংঘের সাধারণ সম্পাদক আতিকুর রহমান আতিক জানান, প্রথমদিন শতাধিক ঝুড়ি বিতরণ করা হয়েছে। আগামী সপ্তাহে আরও করা হবে।

কালের কণ্ঠ শুভসংঘের গাইবান্ধা জেলা, ফুলছড়ি, সুন্দরগঞ্জ, সাদুল্যাপুর, সাঘাটা উপজেলার কর্মীরা এই আয়োজনে উপস্থিত ছিলেন। অন্যান্যদের মধ্যে কর্মসূচি সমন্বয় করেন, জেলা কমিটির যুগ্ম সম্পাদক দেবী সাহা ও জান্নাতুল মীম, সাংগঠনিক সম্পাদক জয় কুমার দাস, সদস্য আহসানিয়া তাসনিম স্নিগ্ধা, তৌফিক মাহমুদ, সাংস্কৃতিক সম্পাদক স্বজন খন্দকার, তথ্য ও যোগাযোগ সম্পাদক ফুয়াদ হাসান, ফুলছড়ির সংগঠক শাকিল আহমেদ, হাসান মাহমুদ, লিয়ন হাউলিদার, সোহান আকন্দ, সাইফুল ইসলাম, আরিফুল ইসলাম, আবু বক্কর সিদ্দিক, সুন্দরগঞ্জের আরমান হোসেন, আমিনুল ইসলাম, রুবেল হোসেন, শামীম আহমেদ, কামরুল হাসান, তানভির হোসেন, সাঘাটার নাজমুল মোল্লা, রায়হান কবীর, কামরুল হাসান, শাকিব মোল্লা, রেজাউল কবীর, সাদুল্যাপুরের আলমগীর কবীর, আদনান হোসেন, সাইফুল খন্দকার, গোবিন্দগঞ্জের মাহফুজ রহমান মুন, দীপ মোহন্তসহ অন্যরা।  

 

 



সাতদিনের সেরা