kalerkantho

শনিবার । ১৩ আগস্ট ২০২২ । ২৯ শ্রাবণ ১৪২৯ । ১৪ মহররম ১৪৪৪  

বিচ্ছিন্ন দ্বীপ চরবিশ্বাসে মাদক ও বাল্যবিবাহের বিরুদ্ধে শপথ

আমাদের বাবা-মা এবং সামাজিক বিভিন্ন সমস্যার কারণে চরবিশ্বাসে বাল্যবিবাহ বেশি হয়। আমরা পড়তে চাই, আমরাও স্বাবলম্বী হতে চাই। বাল্যবিবাহ দিয়ে আমাদের শিক্ষার পথ বন্ধ করা হয়। শুভসংঘের ব্যতিক্রমধর্মী এই আয়োজনটি আমাদের অসুস্থ সমাজের জন্য বার্তা তাহরিমা মীম, শিক্ষার্থী

সাইমুন রহমান   

২১ মে, ২০২২ ১০:৩১ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



বিচ্ছিন্ন দ্বীপ চরবিশ্বাসে মাদক ও বাল্যবিবাহের বিরুদ্ধে শপথ

গলাচিপা উপজেলার বিচ্ছিন্ন দ্বীপ চরবিশ্বাস ইউনিয়নে জনতা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ইভ টিজিং, বাল্যবিবাহ ও মাদকের বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীদের শপথবাক্য পাঠ করানো হয়।

বিচ্ছিন্ন দ্বীপ চরবিশ্বাস ইউনিয়নের জনতা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের তিন শতাধিক শিক্ষার্থীর কণ্ঠ ধ্বনিত হলো মাদক, বাল্যবিবাহ ও ইভ টিজিংয়ের বিরুদ্ধে। ‘মাদককে না বলুন’, ‘ইভ টিজিং বন্ধ করুন’, ‘বাল্যবিবাহ বন্ধ করুন’—এমন প্ল্যাকার্ড হাতে প্রতিবাদ জানায় ষষ্ঠ শ্রেণির শাওন, অষ্টম শ্রেণির মো. ইকফা, ষষ্ঠ শ্রেণির তানজিলা আক্তার বৃষ্টিসহ অনেকেই। সম্প্রতি জনতা মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে ও শ্রেণিকক্ষের সামনে দাঁড়িয়ে মাদক, বাল্যবিবাহ এবং যৌন নিপীড়ন প্রতিরোধ করতে গর্জে ওঠে শিক্ষার্থীরা। এ সময় ছাত্র-শিক্ষক ও অভিভাবকদের নিয়ে মাদক ও বাল্যবিবাহের বিরুদ্ধে শপথবাক্য পাঠ করানো হয়।

বিজ্ঞাপন

শপথবাক্য পাঠ করান শুভসংঘ চরবিশ্বাস ইউনিয়ন শাখার সাধারণ সম্পাদক মো. জুয়েল হাওলাদার। শপথবাক্য পাঠের সময় মাঠের পাশে অবস্থানরত পথচারীরাও শামিল হয় শিক্ষার্থীদের সঙ্গে। শুভসংঘের ব্যতিক্রমী এই উদ্যোগকে স্বাগত জানায় স্থানীয় জনতা।

সম্প্রতি শুভসংঘ গলাচিপা উপজেলার চরবিশ্বাস ইউনিয়ন শাখার উদ্যোগে জনতা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে এক শপথ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। আয়োজিত অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের  আওয়াজে প্রকম্পিত হয়ে ওঠে পুরো এলাকা। এ কার্যক্রমে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জনতা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক (ভারপ্রাপ্ত) মো. ইব্রাহিম খলিল। পুরো আয়োজনটির সমন্বয় করেন শুভসংঘ চরবিশ্বাস ইউনিয়ন শাখার সহসভাপতি অসীম মল্লিক। ব্যতিক্রমী এই আয়োজনটি দারুণ উপভোগ করে শিক্ষার্থীরা। উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে শিক্ষার্থী তাহরিমা মীম বলে, ‘আমরা বিচ্ছিন্ন দ্বীপ ইউনিয়নে বসবাস করি। উপজেলার অন্য এলাকাগুলোর চেয়ে আমাদের এলাকা অনেক অনগ্রসর। আমাদের বাবা-মা এবং সামাজিক বিভিন্ন সমস্যার কারণে এখানে বাল্যবিবাহ বেশি হয়। আমরা পড়তে চাই, আমরাও স্বাবলম্বী হতে চাই। বাল্যবিবাহ দিয়ে আমাদের শিক্ষার পথ বন্ধ করা হয়। শুভসংঘের ব্যতিক্রমধর্মী এই আয়োজনটি আমাদের অসুস্থ সমাজের জন্য বার্তা। আমরা মেয়েরা এখন আরো সচেতন হব। আমরা এসব অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করব। শুভসংঘকে অনেক ধন্যবাদ এ ধরনের ব্যতিক্রমী আয়োজন করার জন্য। ’

আরেক শিক্ষার্থী ফারজানা ফারিন বলে, ‘যাঁরা ইভ টিজ করছেন, তাঁদের প্রত্যেকেরই মা-বোন রয়েছে। একবার চিন্তা করে দেখুন, ইভ টিজিংয়ের কারণে কত মেয়ে পড়াশোনা বন্ধ করতে বাধ্য হচ্ছে! কত মেয়ে রাস্তায় নামতে পারে না। শুভসংঘ আজ আমাদের চোখ খুলে দিয়েছে। আমাদের প্রতিবাদ করতে শিখিয়েছে। তাই আসুন, আমরা একসঙ্গে মিলে এ দেশকে করি ইভ টিজিং, বাল্যবিবাহ ও মাদকমুক্ত। ’

প্রধান অতিথির বক্তব্যে চরবিশ্বাস জনতা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. ইব্রাহিম খলিল বলেন, ‘শুধু শিক্ষা গ্রহণ করলেই একজন মানুষ পরিপূর্ণতা পায় না। সমাজকে সুস্থ রাখার জন্যও তাকে কাজ করতে হয়। সবাই মিলে আমরা ভালো থাকতে চাই। আর আমাদের ভালো কাজের অনুপ্রেরণা দিয়ে যাচ্ছে শুভসংঘ। বিগত দিনেও আমরা শুভসংঘের পাশে ছিলাম, ভবিষ্যতেও থাকব। আমরা আজ দৃঢ়কণ্ঠে বলতে চাই, আমাদের জ্ঞাতসারে এ এলাকায় বাল্যবিবাহ, ইভ টিজ করতে দেব না। যদি কোথাও আমরা এ ধরনের ঘটনার খবর শুনতে পাই, অবশ্যই আমরা তার প্রতিবাদ করব। শুভসংঘের জন্য অনেক শুভ কামনা রইল। শুভসংঘ এই সমাজ উন্নয়নে দারুণ ভূমিকা রাখবে বলে আমার বিশ্বাস। ’

পুরো কার্যক্রমটির সহযোগিতায় ছিলেন শুভসংঘ চরবিশ্বাস ইউনিয়ন শাখার সাধারণ সম্পাদক মো. জুয়েল হাওলাদার, সিনিয়র শিক্ষক মো. মাইনুদ্দিন, মো. জাকির হোসেন, মোসা. তাসলিমা, নারীবিষয়ক সম্পাদক আফিফা আক্তার প্রমুখ। শুভসংঘ চরকাজল ইউনিয়ন শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক মেহেদী হাসান বলেন, ‘আমরা মাদকমুক্ত সমাজে থাকতে চাই। তাই আজ আমরা শপথ নিলাম মাদকের বিরুদ্ধে একসঙ্গে হওয়ার। কারণ একটি মাদকমুক্ত সমাজই একটি সুশৃঙ্খল জাতি উপহার দিতে পারে। চরবিশ্বাস ইউনিয়ন একটি মাদকমুক্ত ইউনিয়ন হবে। আর তা বাস্তবায়িত হবে শুভসংঘের হাত ধরেই। সমাজের সব অশুভকে দূর করে শুভসংঘ দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাবে। আমরা কাজ করছি সে লক্ষ্যেই। ’



সাতদিনের সেরা