kalerkantho

শনিবার । ১৫ মাঘ ১৪২৮। ২৯ জানুয়ারি ২০২২। ২৫ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

পথশিশুদের স্কুলে শুভসংঘের ত্বক-সুরক্ষা সামগ্রী

অনলাইন ডেস্ক   

৪ ডিসেম্বর, ২০২১ ১৬:১০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পথশিশুদের স্কুলে শুভসংঘের ত্বক-সুরক্ষা সামগ্রী

ফারুক ও রাবেয়া দুই ভাই-বোন। তারা দুজনই লেখাপড়া করে মিরপুর-১৪ নম্বরে অবস্থিত একটি পথশিশুদের স্কুলে। তাদের মতোই সেখানে লেখাপড়া করে আরও অর্ধশতাধিক শিশু। স্কুলের অধিকাংশ ছেলেমেয়ের পরিবারেই রয়েছে অভাব-অনটন।

বিজ্ঞাপন

তারপরও অনেকেই প্রবল ইচ্ছাশক্তি নিয়ে অক্ষরজ্ঞান অর্জনে এসেছে সুবিধাবঞ্চিতদের স্কুলে। সেখানকার শিশুরা অন্যের অনুদানে লেখাপড়া চালানোর মতো শিক্ষাসামগ্রী পেলেও শীতের সময় নিজেদের ত্বকের যত্ন নেওয়ার মতো পর্যাপ্ত উপকরণ তাদের সামর্থ্যের বাইরে। ফলে ত্বক ফেটে যাওয়াসহ নানা চর্মরোগে ভুগতে হয় অনেককেই।

শীতের শুরু থেকেই স্কুলের এসব কোমলমতি শিশুদের ত্বক শুষ্ক ও মলিন হতে শুরু করেছে। তাদের এই অবস্থা কালের কণ্ঠ শুভসংঘের মিরপুর-১৪ শাখার সদস্যরা অনুধাবন করেন। সবাই মিলে আলোচনা করে কাজে লেগে পড়েন।

শুভসংঘের মিরপুর-১৪ শাখার আয়োজনে সেই স্কুলের অর্ধশতাধিক শিক্ষার্থীর মাঝে মেরিলের লোশন, লিপজেল ইত্যাদি বিতরণ করেন শুভসংঘ মিরপুর-১৪ শাখার সদস্যরা। শীতে ত্বক সুরক্ষার এসব সামগ্রী পেয়ে শিশুরা আনন্দিত হয়ে ওঠে।  এগুলোর ব্যবহারও তাদের শিখিয়ে দেওয়া হয়।  

এক শিক্ষার্থী বলছিল, ট্যাকার অভাবে বাপ-মায়ে এগুলো কিনা দিবার পারে না। আল্লাহ আপনাগো সবাইরে ভালো রাখুক।  

শাখা শুভসংঘের সাংগঠনিক সম্পাদক মেহরাব আল দীন বলেন, আজকের শিশুরাই আগামী দিনের ভবিষ্যত। তাদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার বিষয়টিতে নজর দেওয়া আমাদের দায়িত্ব ও কর্তব্য। তারা এগিয়ে গেলে আমাদের দেশ এগিয়ে যাবে। আমরা আমাদের দায়িত্বশীলতার জায়গা থেকে কোমলমতি শিশুদের পাশে দাঁড়িয়েছি। ভবিষ্যতেও মিরপুর-১৪ শাখা অসহায় সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের পাশে থাকবে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন কালের কণ্ঠ শুভসংঘ কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক রাফিউল আহমেদ চৌধুরী। আরও উপস্থিত ছিলেন মিরপুর-১৪ শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক মেহরাব আল দিন, নারী বিষয়ক সম্পাদক নাবিলা ইসলাম জেরিন, অনলাইন ও সামাজিক যোগাযোগ বিষয়ক সম্পাদক মাহাজাবিন, সহ-অর্থ সম্পাদক জান্নাতুল ফেরদৌস প্রতিভা, সহ-দপ্তর সম্পাদক বিথি রয়, সহ-অনুষ্ঠান বিষয়ক সম্পাদক মোঞ্জরি মোস্তরি তোয়া, সদস্য বর্ষা রয়, ফারহানা বৈশাখী, মাহাদী মোস্তফা, পলাশ হাসান, দিবা দেবনাথ প্রমুখ।  



সাতদিনের সেরা