kalerkantho

রবিবার । ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ২৮ নভেম্বর ২০২১। ২২ রবিউস সানি ১৪৪৩

কুড়িগ্রামে বাল্যবিয়েকে লালকার্ড দেখাল স্কুলছাত্রীরা

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি   

২৬ অক্টোবর, ২০২১ ১৯:০৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কুড়িগ্রামে বাল্যবিয়েকে লালকার্ড দেখাল স্কুলছাত্রীরা

যে স্কুলের নবম শ্রেণির ৯ ছাত্রীর মধ্যে একজন ছাড়া সবার বিয়ে হয়েছে করোনাকালে, সেই স্কুলের ছাত্রীরা বাল্যবিয়ে বিরোধী শপথ গ্রহণ ও বাল্যবিয়েকে লালকার্ড দেখিয়েছে।

আজ মঙ্গলবার কুড়িগ্রাম সদর উপজেলার ধরলা নদী তীরবর্তী সারডোব আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ে কালের কণ্ঠ শুভসংঘ আয়োজিত বাল্যবিয়ে বিরোধী এক অনুষ্ঠানে এই কার্ড দেখায় তারা। এ সময় বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পাওয়া নার্গিস আক্তার ও স্কুলের অন্যান্য শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

কালের কণ্ঠের কুড়িগ্রাম জেলা প্রতনিধি আব্দুল খালেক ফারুক এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন স্কুলের প্রধান শিক্ষক ফজলার রহমান, সহকারী শিক্ষক আব্দুল মজিদ, সারডোবের আলো সংগঠনের সভাপতি এনামুল হক, বাল্য বিয়ে থেকে রক্ষা পাওয়া আলোচিত শিক্ষার্থী নার্গিস আক্তার, তার পিতা আব্দুল খালেক, সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থী অনন্যা আক্তার, শুভসংঘের সদস্য স্কুল শিক্ষক শফিকুল ইসলাম শফি। উপস্থিত ছিলেন শুভসংঘের সদস্য মিনহাজুল ইসলাম ও আল আমিন। 

নার্গিস আক্তার তাঁর বক্তব্যে বলেন, ‘আমাদের স্বপ্ন দেখতে হবে উচ্চ শিক্ষা গ্রহণের। প্রতিকূলতা অতিক্রম করে অসাধ্য সাধন করতে হবে। লেখাপড়ায় আগ্রহ থাকলে অভিভাবকরা বাধ্য হবেন বাল্যবিয়ে না দিতে।’

স্কুলের প্রধান শিক্ষক ফজলার রহমান তাঁর বক্তব্যে বলেন, ‘করোনাকালে এই স্কুলের বেশ কিছু ছাত্রীর বিয়ে হয়েছে। এরকম ঘটনা যাতে আর না ঘটে সেজন্য শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সঙ্গে নিয়ে কাজ করছে শিক্ষকরা। বাল্যবিয়ের যেকোনো উদ্যোগ ঠেকানোর জন্য সর্বপ্রথম শিক্ষার্থীদের এগিয়ে আসতে হবে।

উল্লেখ্য, করোনাকালে গত এক বছরে এই স্কুলের ১৮ জন ছাত্রী বাল্যবিয়ের শিকার হয়। এর মধ্যে নবম শ্রেণির নার্গিস আক্তার ছাড়া অন্য ৮ জন ছাত্রীর বাল্যবিয়ের ঘটনাটি দেশব্যাপী চাঞ্চল্য সৃষ্টি করে। এ নিয়ে কালের কণ্ঠে ‘রইল বাকী এক’ ও ‘চরের নার্গিসের লড়াই’ শীর্ষক দুটি রিপোর্ট প্রকাশিত হয়। নার্গিসের লেখাপড়ার খরচ জোগাতে কালের কণ্ঠ শুভসংঘ থেকে প্রতি মাসে বৃত্তি দেওয়া হচ্ছে।



সাতদিনের সেরা