kalerkantho

রবিবার । ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ২৮ নভেম্বর ২০২১। ২২ রবিউস সানি ১৪৪৩

শুভসংঘের সহযোগিতায় চোখে আলো ফিরে পাচ্ছেন হাজেরা

ঈশ্বরদী (পাবনা) প্রতিনিধি   

৩ অক্টোবর, ২০২১ ১৭:৫৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শুভসংঘের সহযোগিতায় চোখে আলো ফিরে পাচ্ছেন হাজেরা

হাজেরা বেওয়া। বয়স ৮৫ কোঠায়। স্বাধীনতার পরপরই মারা গেছেন স্বামী জাবেদ আলী। সংসারে রেখে গেছেন তিন ছেলে আর দুই মেয়ে। তাদের প্রত্যেককেই বিয়ে দিয়েছেন। মারা গেছেন এক ছেলে। বাকিরা শহরে রিকশা চালান। এক ছেলে থাকেন সরকারি গুচ্ছগ্রামে। আরেক ছেলে শহরের ভাড়া করা ঝুপড়ি ঘরে। আর বৃদ্ধা হাজেরা বেওয়া দীর্ঘ প্রায় পাঁচ বছর ধরে দুই চোখে ছানি পড়ার কারণে চোখে দেখেন না। থাকেন শহরের একটি ঝুপড়ি ঘরে। বয়স্ক ভাতা থেকে মাসিক এক হাজার টাকা দেন বাড়ি ভাড়া। আর রিকশাচালক ছেলে দেন খাবার।

হাজেরা বেগম পাবনার ঈশ্বরদী পৌর শহরের শৈলপাড়া (কাচারিপাড়া) এলাকার বাসিন্দা। তিনি সর্বদা নামাজ পড়ে দোয়া করেন 'কেউ যেন এসে তাঁর চোখ দুটি অপারেশন করে ছানি দূর করে দেন'।

বিষয়টি জানতে পারেন এলাকার সমাজকর্মী হারুন উর রশিদ। তিনি বিষয়টি ঈশ্বরদী শুভসংঘের সভাপতি মাসুম পারভেজ কল্লোল, সাংগঠনিক সম্পাদক নাগিব আহসান আবিরের দৃষ্টি আকর্ষণ করে অপারেশনের জন্য আর্থিক সহযোগিতা কামনা করেন। পরে শুভসংঘের বন্ধুরা মিলে আজ রবিবার অপরাশেনের জন্য চার হাজার এবং ওষুধের জন্য এক হাজার টাকা তুলে দেন হাজেরা বেগমের হাতে।

এ সময় শুভসংঘের ঈশ্বরদী শাখার সভাপতি মাসুম পারভেজ কল্লোল, সাংগঠনিক সম্পাদক নাগিব আহসান আবির, নারী বিষয়ক সম্পাদক ফারজানা ফেরদৌস পুষ্প, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক আরাফাত জামান, ক্রীড়া সম্পাদক মাহিম মেহরাব ও কালের কণ্ঠের ঈশ্বরদী প্রতিনিধি শেখ মেহেদী হাসান উপস্থিত ছিলেন। চোখ অপারেশনের ব্যবস্থা করায় শুভসংঘের বন্ধুদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন হাজেরা বেগম।

প্রতিবেশী হারুন উর রশিদ জানান, সোমবার (৪ অক্টোবর) ঈশ্বরদী আই হাসপাতাল অ্যান্ড ফ্যাকো সেন্টারে বিশেষ ছাড়ে এই অপারেশন করার প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।



সাতদিনের সেরা