kalerkantho

রবিবার । ৪ আশ্বিন ১৪২৮। ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১১ সফর ১৪৪৩

করোনায় কর্মহীনদের খাদ্যসামগ্রী দিল গাইবান্ধা শুভসংঘ

গাইবান্ধা প্রতিনিধি   

১ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ২০:৩২ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



করোনায় কর্মহীনদের খাদ্যসামগ্রী দিল গাইবান্ধা শুভসংঘ

গাইবান্ধার ফুলছড়ির কঞ্চিপাড়া ডিগ্রি কলেজ মিলনায়তনে শুভসংঘের দেওয়া খাদ্যসামগ্রী সহায়তা নিতে এসেছিলেন বৃদ্ধ রওজাতুন্নাহার (৬৭)। এসেছেন ব্রহ্মপুত্রের চর উজালডাঙ্গা থেকে।

বললেন, 'বন্যার পানি বাড়তিসে। রাস্তাঘাট, জমিত পা ডুবিয়া চলা লাগে। দু’একের মধ্যে ঘর ডুবি যাওয়ার পারে। এমনিতে করোনায় মানসের বাড়ির কাজ কাম নাই। তাতে ফির বন্যা আসপ্যার নাগেচে। কি যে হোবে। তোমারঘরোক ম্যালা দোয়া করি। কয়েকদিনের খাবার তো দিলেন!' একই ধরনের প্রতিক্রিয়া জহুরুল হক (৫৪), আলিম মিয়াদের।

গানই জীবন জীবিকা হাসেন মিয়ার (ছদ্মনাম)। একটু দূরে দাঁড়িয়ে ছিলেন। বললেন, দোতারা ঢোলক নিয়ে কবে মানুষের সামেনে গান করব জানি না। খুবই কষ্টে আছি। সাহায্য তেমন পাই না। এই চাল, ডাল জিনিস জানা দিয়ে পরিবারের দুটো দিন খুব ভালো কাটবে।

কালের কণ্ঠ শুভসংঘ গাইবান্ধা জেলা শাখা কর্মহীন হয়ে পড়া ৭০ জন ক্ষুদ্র চা দোকানি, বয়স্ক নারী পুরুষ, বাউল, সঙ্গীত শিল্পী, যন্ত্রশিল্পী ও কলা কুশলীদের মধ্যে বুধবার দুপুরে চাল, ডাল, আটা, তেলসহ অন্য নিত্যপণ্য বিতরণ করে।

ফুলছড়ির কঞ্চিপাড়া ডিগ্রি কলেজ মিলনায়তনে বিতরণকালে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কলেজের অধ্যক্ষ এ টি এম রাশেদুজ্জামান রোকন। শুভসংঘের জেলা সভাপতি তৌহিদা মাহমুদের সভাপতিত্বে এ সময় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন কলেজের প্রভাষক ইশরাত জাহান নিশি, শুভসংঘের জেলা সম্পাদক লতা সরকার, সহসম্পাদক সামিউর ইসলাম সাকিব, গাইবান্ধা সরকারি কলেজ শাখার সহসম্পাদক রওজাতুন্নাহার লাবন্য, ফুলছড়ি উপজেলা সভাপতি শিমুল হাওলিদার, চয়নিকা আকক্তার সীমা, জেলা সদস্য স্বজন খন্দকার, জান্নাতুল মাহা, আতিকুর রহমান,ফরহাদ হোসেন ও কালের কণ্ঠের জেলা প্রতিনিধি অমিতাভ দাশ হিমুন।

প্রভাষক ইশরাত জাহান নিশি বলেন, শুভসংঘ এর আগে কেন্দ্রীয়ভাবে সারা জেলায় অসহায় মানুষকে সহায়তা দিয়েছে। জেলা শুভসংঘের কর্মীরা এখন নিজস্ব উদ্যোগে বিভিন্ন পেশার কর্মহীন দুস্থ মানুষকে সহায়তা দিচ্ছে।

ফুলছড়ি উপজেলা সভাপতি শিমুল হাওলাদার বলেন, নদের পানি বৃদ্ধি এই এলাকার মানুষকে আতংকিত করে তুলছে। বন্যাকালীন সময়ে গতবারের মতো এবারও শুভসংঘ বানভাসীদের পাশে থাকবে।

জেলা সম্পাদক লতা সরকার জানান, এসব সামগ্রী শুভসংঘের বন্ধুদের নিজস্ব সংগ্রহ। জেলা শুভসংঘ এর মধ্যে বেশ কিছু এলাকা ঘুরে কিছু কিছু পরিবারকে খাদ্য ও নিত্যপণ্য সহায়তা দিয়েছে।

অনুষ্ঠানের অতিথি অধ্যক্ষ এ টি এম রাশেদুজ্জামান রোকন বলেন, কালের কণ্ঠ শুভসংঘের তরুণ-তরুণীদের উদ্দীপনা তাকে মুগ্ধ করেছে। তিনি তাদের অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, এই প্রজন্মকে সচেতন করতে সংস্কৃতিচর্চার কোনো বিকল্প নেই। করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে শুভসংঘ তাদের প্রতিষ্ঠানে সাহিত্য সংস্কৃতি ও বিতর্ক প্রতিযোগিতার আয়োজন করলে তিনি সর্বাত্মক সহযোগিতা করবেন।



সাতদিনের সেরা