kalerkantho

বুধবার । ২৯ বৈশাখ ১৪২৮। ১২ মে ২০২১। ২৯ রমজান ১৪৪২

এতিম শিশুদের খাওয়াল শুভসংঘ

ভাঙ্গুড়া (পাবনা) প্রতিনিধি   

৩১ মার্চ, ২০২১ ১৮:৪৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



এতিম শিশুদের খাওয়াল শুভসংঘ

সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানসহ ব্যক্তিপর্যায়ের আর্থিক সহযোগিতায় ১০২ জন এতিম শিশু প্রতিপালন করা হয় পাবনার ভাঙ্গুড়া উপজেলার পারভাঙ্গুড়া এতিমখানা মাদরাসায়।

উপজেলার পারভাঙ্গুড়া ইউনিয়নের পারভাঙ্গুড়া গ্রামে প্রায় দেড়যুগ আগে কবরস্থানের পাশে এ মাদরাসা প্রতিষ্ঠা করে গ্রামের মানুষ।

উপজেলার মধ্যে এটি সবচেয়ে বেশিসংখ্যক এতিম শিশুদের আবাসস্থল। কিন্তু করোনাকালীন বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তিপর্যায়ে আর্থিক সহযোগিতা কমে যাওয়ায় খাবার খরচসহ অন্যান্য খরচ যোগানো কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে কর্তৃপক্ষের। এ কারণে দীর্ঘদিন ধরে শিশুরা ভালো খাবার খাওয়া থেকে বঞ্চিত রয়েছে। বিষয়টি জানতে পেরে শুভসংঘের ভাঙ্গুড়া উপজেলা শাখার ৩১ জন বন্ধু চাঁদা তুলে ১০২ জন এতিম শিশু ও চার শিক্ষকসহ প্রায় ১২০ জনকে বুধবার ভালো মানের খাবার খাওয়ায়।

এদিন শুভসংঘের সদস্য আহমেদ নিয়াজ মোর্শেদ, রনি আহমেদ, মামুন ও অনিক খাবার খাওয়ানোর সার্বিক কার্যক্রম পরিচালনা করেন।

এতিম শিশু তামিম জানায়, মাঝে মাঝেই ধনী মানুষেরা আমাদের ভালোমন্দ খাওয়াত। কিন্তু করোনা আসার পর থেকে তেমন কেউ আর খাওয়াতে আসে না। হুজুররাও করোনার ভয়ে আমাদের বাইরে কালেকশনে যেতে দেয় না। তাই অনেকদিন ভালো-মন্দ খাইনি। আজ খেতে পেয়ে অনেক ভালো লাগছে।

শিক্ষক আবু সায়ীদ বলেন, মাদরাসায় পড়ুয়া ১০২ জনের মধ্যে অধিকাংশ শিশু এতিম ও অসহায়। সরকারিভাবে এদের মধ্যে ২০ জন শিশুকে খাবারের জোগান দেওয়া হয়। অন্যদের খাবার জোগাতে সমাজের ধনাঢ্য ব্যক্তিদের কাছ থেকে আর্থিক সহযোগিতা নেওয়া হয়। কিন্তু করোনার সময়ে সহযোগিতার পরিমাণ কমে যাওয়ায় দুর্বিপাকে পড়েছি। কিছুদিন ধরে শিশুরা আবদার করেছিল ভালো-মন্দ খাওয়ার জন্য। অবশেষে শুভসংঘের মাধ্যমে সেই আবদার পূরণ হলো।



সাতদিনের সেরা