kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৯ বৈশাখ ১৪২৮। ২২ এপ্রিল ২০২১। ৯ রমজান ১৪৪২

শুভসংঘ মিরপুর-১৪ শাখার শ্রদ্ধাঞ্জলী

অনলাইন ডেস্ক   

২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২০:৫৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শুভসংঘ মিরপুর-১৪ শাখার শ্রদ্ধাঞ্জলী

মায়ের ভাষা বাংলার অধিকার আদায়ের জন্য সর্বোচ্চ ত্যাগের মহিমায় উদ্ভাসিত হওয়ার দিন ২১ ফেব্রুয়ারি শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। বাংলা মায়ের বীর সন্তানেরা মাতৃভাষার সম্মান রক্ষার্থে আজ থেকে ৬৯ বছর আগে ১৯৫২ সালের এই দিনে বুকের তাজা রক্তে রঞ্জিত করেছিলেন ঢাকার রাজপথ। পৃথিবীর ইতিহাসে সৃষ্টি হয়েছিল মাতৃভাষার জন্য আত্মদানের অভূতপূর্ব নজির। একুশে ফেব্রুয়ারী বাংলাদেশ সহ সমস্ত বাংলা ভাষা ব্যবহারকারী জনগণের গৌরবোজ্জ্বল একটি দিন। আজ শহীদদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা ও সম্মান জানালেন শুভসংঘ মিরপুর-১৪ শাখার বন্ধুরা।

এসময় উপস্থিত ছিলেন মিরপুর-১৪ শাখার উপদেষ্টা শাহ্ মোঃ হাসিবুর রহমান হাসিব, তাহসিন মাজেদ রামিম। উপস্থিত ছিলেন আহ্বায়ক শেখ সুহাইল আহমেদ, যুগ্ম আহবায়ক মাহফুজুর রহমান, সারা মেহজাবিন, হুমায়রা হক ইফতু, শেখ তাইরিন এহসান, নূরজাহান বিনতে তানজীম, সদস্য সচিব মেহেদী হাসান রাব্বী। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন ওয়াফী হাসান, লামিয়া শেখ, শায়লা নুসমা, সূচী রানী সরকার, মেফতাহুল জান্নাত মৌমিতি শাহানুর আলম, মেহরাব আলদীন, হাবিবা বিনতে হাবিব, সানজিদা রিমি, সাদ্দাম হোসেন, সাকিবুল ইসলাম নিলয়, শাফিস আহমেদ তামিম, রাবীবুর রহমান মিয়া।

শ্রদ্ধাঞ্জলীর শেষে শুভসংঘ মিরপুর-১৪ শাখার পক্ষে শায়লা নুসমা বলেন, আমাদের মাতৃভাষার দাবিতে আত্মহুতি দানকারী শহীদদের মিলেছে আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি। অবশ্য এর আগে এমন অনেক আত্নত্যাগের আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি মিলেছে। কারণ সেগুলো ছিল উন্নত দেশগুলোর ঘটনা। আর মাতৃভাষার জন্য আমাদের সংগ্রাম ত্যাগ এর স্বীকৃতি মিলতে মিলতে পার হয়ে গেল ৪৮ বছরেরও বেশি সময়। হোক তবুও আমরা তা পেয়েছি। সর্বোচ্চ অঙ্গীকার ও নিরলস সংগ্রামের মধ্য দিয়ে আমরা আমাদের মাতৃভাষাকে রক্ষা করেছি। স্বাধীনতা অর্জন করেছি এবং সর্বশেষ আমরা আমাদের মাতৃভাষা ও তার জন্য যে আত্মোৎসর্গ তার স্বীকৃতি পেয়েছি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা