kalerkantho

সোমবার। ১৭ জুন ২০১৯। ৩ আষাঢ় ১৪২৬। ১৩ শাওয়াল ১৪৪০

ধর্ষণ শেষে হত্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক, মৌলভীবাজার   

৬ জুন, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মৌলভীবাজারের রাজনগর উপজেলার মাছুয়া নদী থেকে গত ১ জুন উদ্ধার হওয়া অজ্ঞাতপরিচয় এক নারীর লাশের পরিচয় মিলেছে। তাঁর নাম রাশেদা বেগম (৩০)। তাঁকে গণধর্ষণ শেষে হত্যা করে লাশ নদীতে ফেলে দেওয়া হয়। গত রবিবার পুলিশের হাতে আটক হওয়ার পর আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে এ তথ্য জানায় এক ধর্ষণকারী। সিলেটের উসমানীনগর উপজেলার পূর্বপৈলনপুর ইউনিয়নের অইয়া গ্রামের মৃত ফরাসত মিয়ার মেয়ে রাশেদা বেগম (৩০)। মোবাইল ফোনের সূত্র ধরে পরিচয় হয়েছিল রাজনগর উপজেলার মনসুরনগর ইউনিয়নের ছিককা গ্রামের মজু মিয়ার ছেলে আবারক মিয়া (২২) ও মৌলভীবাজারের আরেক যুবকের সঙ্গে। পরিচয়ের সূত্র ধরে বেশ কয়েকবার তাদের দেখাও হয়েছে। গত ৩০ মে তাদের সঙ্গে দেখা করার জন্য মৌলভীবাজার আসেন রাশেদা বেগম। ওই দিন সন্ধ্যায় মৌলভীবাজারের ওই যুবককে নিয়ে রাজনগর উপজেলা পরিষদের সামনে আসেন রাশেদা। এ সময় ওই যুবক আবারক মিয়াকেও ফোন করে আসতে বলে। পরে তারা রাশেদাকে নিয়ে উপজেলা পরিষদের পার্শ্ববর্তী মাছুয়া নদীর তীরঘেঁষে পশ্চিম দিকে যেতে থাকে। একপর্যায়ে তারা রাশেদাকে কুপ্রস্তাব দেয়। এতে রাজি না হওয়ায় জোর করে রাশেদাকে ধর্ষণ করে তারা। বিষয়টি ফাঁস হয়ে যাওয়ার ভয়ে রাশেদার গলায় ওড়না পেঁচিয়ে তাঁকে হত্যা করে দুই ধর্ষক।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা