kalerkantho

সোমবার। ১৭ জুন ২০১৯। ৩ আষাঢ় ১৪২৬। ১৩ শাওয়াল ১৪৪০

রূপকথার রাজকুমারী

অভিনয় ও গানে সমান পারদর্শীদের একজন নাওমি স্কট। আগামীকাল মুক্তি পাচ্ছে ব্রিটিশ এই অভিনেত্রীর ছবি ‘আলাদিন’। তাঁকে নিয়ে লিখেছেন হাসনাইন মাহমুদ

২৩ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



রূপকথার রাজকুমারী

‘টমবয়’ পরিচয়টা যেন গায়ে এঁটে গিয়েছিল নাওমি স্কটের। ‘পাওয়ার রেঞ্জারস’-এ অভিনয়ের সময় তো নাকই ফাটিয়ে বসলেন এক স্ট্যান্টম্যানের। আলাদিনের স্বপ্নের রাজকন্যা জেসমিনকে তো আর মারদাঙ্গা হলে চলে না। চরিত্রটির জন্য বিবেচিত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই তাই তুলে রাখলেন টি-শার্ট, কেডস। কিনে নিয়ে এলেন বাজারের সবচেয়ে ফুলেল জামাটি। চলচ্চিত্রে অভিনয় নিশ্চিত না হওয়ার আগ পর্যন্ত নাওমি স্কট যেন বাস্তবেই অভিনয় করলেন রাজকন্যা হিসেবে! নাওমি ব্রিটিশ বাবা এবং গুজরাটি মায়ের সন্তান। মাত্র ৯ বছর বয়সে স্থানীয় কমিউনিটির জন্য নাটক নির্মাণ করে প্রতিভার কথা জানান দেন। তিনিই ছিলেন সে নাটকের পরিচালক, সংগীত পরিচালক, মেকআপ শিল্পী ও অভিনেত্রী। তবে পর্দায় নাওমির শুরু অভিনয় নয়, সংগীত দিয়ে। অ্যালিসিয়া কিসের মিউজিক ভিডিও ‘ইফ আইন্ট গট ইউ’-এ সহকারী গায়িকা হিসেবে কাজ করেন। ছোটপর্দায় অভিষেক হয় ডিজনির ‘লাইফ বাইটস’ টেলিভিশন সিরিজ দিয়ে। এরপর পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি। স্টিফেন স্পিলবার্গের আলোচিত সায়েন্স ফিকশন টেলিভিশন সিরিজ ‘টেরা নোভা’তে ম্যাডি শ্যাননের ভূমিকায় অভিনয় তাঁকে এনে দেয় বিশ্বজোড়া পরিচিতি। ২০১০ সালে চিলির স্বর্ণখনিতে দুর্ঘটনার কাহিনি অবলম্বনে নির্মিত ‘দ্য থার্টি থ্রি’র মাধ্যমে প্রথমবারের মতো বড় পর্দায় আসেন। রিডলি স্কটের ‘দ্য মার্শিয়ান’-এও স্বল্প সময়ের জন্য দেখা যায়। তবে সিনেমার কথা বললে বলতে হয় ২০১৭ সালে মুক্তি পাওয়া ‘পাওয়ার রেঞ্জারস’-এর কথা। এখানে তাঁর সাবলীল অভিনয় প্রশংসা কুড়ায় সর্বত্র। এত অল্প সময়ে খ্যাতি পাওয়া সম্পর্কে এই অভিনেত্রী বলেন, ‘ভাগ্যদেবী আমাকে অনেক ভালোবাসে। ভালো ভালো চরিত্রে অভিনয়ের সুযোগ পেয়েছি। আমার লক্ষ্য এখন নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করা।’

সংগীতজগতেও সমানভাবে পরিচিত নাওমি। ইতিমধ্যেই বের হয়েছে তাঁর দুটি অ্যালবাম। ইউএস, ইউকে টপ চার্টেও ছিল বেশ কয়েকটি গান। ভারতীয় রান্নার পাঁড় ভক্ত নাওমি একুশেই সেরে ফেলেছেন বিয়ে। চার বছর চুটিয়ে প্রেম করার পর ব্রিটিশ ফুটবলার জর্ডান স্পেন্সের সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধেন।

এবার অভিনেত্রীকে দেখা যাবে জনপ্রিয় রূপকথার গল্প অবলম্বনে নির্মিত ‘আলাদিন’-এ। এখানে প্রধান নারী চরিত্র জেসমিন করেছেন তিনি। তিনি বলেন, ‘জেসমিন যেভাবে নিজেকে ফুটিয়ে তুলেছেন তা বিশ্বজুড়ে নারী জাগরণেরই এক প্রতিচ্ছবি। জেসমিন শুধু সৌন্দর্যেই নয়, কর্মেও প্রকৃত রাজকন্যা। ছোটবেলা থেকেই প্রিন্সেস জেসমিন আমার অন্যতম প্রিয় চরিত্র। এখন আমি নিজেই চরিত্রটি করছি, এটা ভাবতেই দারুণ লাগছে।’ গাই রিচির পরিচালনায় ‘আলাদিন’-এ নাম ভূমিকায় দেখা যাবে মীনা মাসুদকে। আলাদিনের সেই জিনের ভূমিকায় আছেন উইল স্মিথ।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা