kalerkantho

রবিবার । ২৬ মে ২০১৯। ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ২০ রমজান ১৪৪০

বিদায় বিবি

ছয় দশকের ক্যারিয়ারে করেছেন ৬০টির বেশি চলচ্চিত্র ও টিভি সিরিজ। তবু মানুষ তাঁকে চেনে ইঙ্গমার বার্গম্যানের নায়িকা হিসেবেই। ১৪ এপ্রিল প্রয়াত হয়েছেন বিবি অ্যান্ডারসন। তাঁকে নিয়ে লিখেছেন লতিফুল হক

১৮ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বিদায় বিবি

পুরো ক্যারিয়ারে ৬০টির বেশি সিনেমা করেছেন। অনেকগুলোর চিত্রনাট্যই ছিল ভীষণ বাজে। বিভিন্ন সাক্ষাৎকারে যা বিবি অ্যান্ডারসন নিজেই স্বীকার করেছেন। তবে সাধারণ চিত্রনাট্য, সাদামাটা চরিত্রকেও কী এক জাদুবলে অসাধারণ করে তুলতে পারতেন বিবি। এই যেমন ‘পারসোনা’র কথাই বলা যাক। বার্গম্যানের কাছ থেকে এই সিনেমার চিত্রনাট্য পেয়ে ভীষণ বিরক্ত হয়েছিলেন বিবি। মনে হয়েছিল, বকবক করা এক নার্সের ভূমিকায় তাঁকেই কেন ভাবলেন পরিচালক? ১৯৭৭ সালে ‘আমেরিকান ফিল্ম ম্যাগাজিন’কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এ প্রসঙ্গে বলেছিলেন, ‘ওই চরিত্রটি একেবারেই আমার সঙ্গে যায় না। প্রথমবার পড়ে নার্সটিকে [আলমা] খুবই ব্যক্তিত্বহীন মনে হয়েছিল। কিন্তু শুটিংয়ের পর মনে হয়েছিল অদ্ভুত এক আবেগের মধ্যে ডুবে গেছি।’ শুধু ‘পারসোনা’ই নয়, বার্গম্যানের সঙ্গে ১৩টি ছবিতে কাজ করেছেন বিবি। এর মধ্যে ১০টি পূর্ণদৈর্ঘ্য, তিনটি টিভির জন্য। ১০টি চলচ্চিত্রের তিনটি আবার বার্গম্যানের মাস্টারপিস—‘দ্য সেভেন্থ সিল’, ‘ওয়াইল্ড স্ট্রবেরিজ’ ও ‘পারসোনা’।

বিবির জীবনে বার্গম্যান নানা কারণে গুরুত্বপূর্ণ। প্রথম অভিনয় তাঁর হাত ধরেই কি না। বিবি তখন সবে স্কুলের ছাত্রী। সেই কিশোরী বয়সেই বার্গম্যানের তৈরি একটি সাবানের বিজ্ঞাপনে কাজ করেন। সেটা ১৯৫১ সালের ঘটনা। একই বছর ‘মিস জুলি’ দিয়ে বড় পর্দায়ও অভিষেক হয়। বার্গম্যানের প্রথম ইংরেজি ছবি ‘দ্য টাচ’-এর নায়িকাও ছিলেন বিবি। আরো পরের দিকে পরিচালক নব্বইয়ের দশকে যেসব মঞ্চনাটক করেন সেগুলোর কয়েকটিতেও ছিলেন বিবি। অভিনেত্রীকে বৈচিত্র্যময় বিভিন্ন চরিত্র দিয়েছেন বার্গম্যান। ‘দ্য সেভেন্থ সিল’-এ তিনি স্বামী অনুরক্ত এক নারী, ‘ওয়াইল্ড স্ট্রবেরিজ’-এ দ্বৈত চরিত্রে যৌবন আর আশার প্রতীক। ‘আ প্যাশন’-এ আবার অন্য চেহারা। বিবাহিত জীবনে অসুখী এক নারীর চরিত্র করেন তিনি। বার্গম্যান এই ছবিতেই প্রথমবারের মতো বিবিকে আবেদনময়ী হিসেবে তুলে ধরেন। ১৯৭১ সালে ‘দ্য টাচ’-এর পর বার্গম্যানের সঙ্গে বড় পর্দায় কাজ করেননি। পরে অবশ্য ‘সিনস ফ্রম আ ম্যারেজ’ টিভি সিরিজের একটি পর্বে ছোট্ট একটি চরিত্রে দেখা গিয়েছিল। বিবি চোস্ত ইংরেজি বলতে পারতেন, করেছেন বেশ কয়েকটি হলিউড ছবিও। তবে মানুষ স্বভাবতই তাঁকে মনে রেখেছে বার্গম্যানের অভিনেত্রী হিসেবে।

অভিনেত্রী হিসেবে নাম কামালেও আগে বিবির পরিবারের কেউ এই লাইনে ছিলেন না। বাবা ব্যবসায়ী, মা সমাজসেবিকা। বিবি হেঁটেছেন উল্টো পথে। অভিনয় নিয়ে পড়াশোনা করেছেন। ডিগ্রি নিয়েছেন স্টকহোমের বিখ্যাত রয়্যাল ড্রামাটিক থিয়েটার থেকেও। অভিনয়ে তাঁর প্রথম প্রেরণা ছিলেন বড় বোন জার্ড অ্যান্ডারসন। ১৯৫০-এর দশকে বেশ কয়েকটি চলচ্চিত্রে দেখা গেছে জার্ডকে। অভিনয়ের বাইরেও বার্গম্যানের সঙ্গে সম্পর্ক ছিল বিবির। তবে সেটা বেশি দূর যায়নি, শুরুর কিছুদিনের মধ্যেই ভেঙে যায়। ১৯৬০, ১৯৭৯ ও ২০০৪—তিনবার বিয়ে করেছিলেন। সন্তান আছে শুধু প্রথম পক্ষের একটি।

মন্তব্য