kalerkantho

শনিবার । ২৫ মে ২০১৯। ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৯ রমজান ১৪৪০

নতুন করে আর্ক

নতুন লাইনআপ নিয়ে মাস দুয়েক ধরে দাপিয়ে কনসার্ট করে বেড়াচ্ছে আর্ক। কেমন চলছে সব? জানতে আর্কের মুখোমুখি পার্থ সরকার

১৮ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



নতুন করে আর্ক

বাঁ থেকে—নমন, হাসান, এস আই সুমন, টিংকু আজিজুর রহমান, জিমি ও এরশাদ আলী

কারওয়ান বাজারের ব্যস্ততম একটি রাস্তা। ঝড় আর হর্নের শব্দে একাকার। পাঁচতলায় উঠতেই ছোট্ট একটা চিলেকোঠা। ভেতরে ঢুকতেই কানে এলো টিংকুর পিয়ানো। চোখ চলে গেল এক কোনায় বসে থাকা হাসানের দিকে। বুকে ঝোলানো সানগ্লাস আর পনিটেইল করে বাঁধা একমাথা চুল নিয়ে বসে আছেন। এটাই ব্যান্ড ‘আর্ক’-এর প্র্যাকটিস প্যাড।

দীর্ঘ ১৩ বছর বিরতি দিয়ে ২০১৩ সালে হাসান আবার ফিরেছিলেন ‘আর্ক’-এ। তার পর থেকে নানাজনকে নিয়ে চেষ্টা করছিলেন ব্যান্ডটাকে একটা জায়গায় থিতু করতে। কিন্তু কোথাও যেন সুরটা লাগছিল না। টিংকু বললেন, ‘হাসান ভাই আবার ক্লিক না করলে তাঁদের সঙ্গে কাজ করতে পারেন না। ধরুন, একজন খুব ভালো মিউজিশিয়ান; কিন্তু মনে মনে মিলল না। হাসান ভাই তাঁর সঙ্গে জীবনেও কাজ করতে পারবেন না। এসব কারণে ব্যান্ডটি দাঁড়াচ্ছিল না।’

গত ফেব্রুয়ারিতে ‘আর্ক’-এ যোগ দিয়েছে দুই সদস্য নমন ও সুমন। ‘দুই দিন বাদে কনসার্ট, এমন সময় দলে ওরা নতুন এলো। দুই দিনের প্র্যাকটিসে পুরো লাইভ কনসার্ট করে ফেলল কোনো ভুল ছাড়াই’ —বলছিলেন হাসান। ‘এমনিতেই তারা সংগীত পরিচালক। কিন্তু ব্যান্ডের জন্য সব ছেড়ে যেভাবে সময় দিচ্ছে তা সাধুবাদ জানানোর মতো।’

অবশ্য সময় না দিয়ে উপায় নেই। এত কর্ড আর রিদমের খেলা আর্কের প্রতিটি গানে, মনে রাখতে গিয়েই হিমশিম খাচ্ছেন নমন ও সুমন। দূর থেকে দেখা ‘আর্ক’, আর এখন নিজেদের সেখানে আবিষ্কারের অনুভূতিটা কেমন?

সুমন বললেন, ‘আর্ক আসলে একটা ইনস্টিটিউট। আমরা দুজন তো রীতিমতো কাগজ-কলম নিয়ে লিখে রাখছি সব নোট। সারা জীবন শুনে শুনে বাজিয়েছি, কিন্তু এখন প্রতিদিন নোট দেখে দেখে প্র্যাকটিস করি।’ নমন বললেন, ‘এখনকার ইউটিউব সেলিব্রিটিরা যদি আমাদের এই নোট দেখে, ভয় পেয়ে যাবে। প্রতিটি গানের কথা, সুর ও কম্পোজিশনে এত বৈচিত্র্য যে অবাক হতে হয়। গানগুলো শুনতে যত সোজা মনে হয়, বাজানো ততটাই কঠিন।’ নমনের কথা শেষ হতেই হাসান বলে উঠলেন, ‘আমি কিন্তু কিছু বুঝে ওঠার আগেই সেলিব্রিটি হয়ে গেছি। সবাই যেটাকে স্ট্রাগলিং পিরিয়ড বলে, আমি সেটা কোনোভাবেই পাইনি। কিছু বুঝে ওঠার আগে কিছু অপ্রয়োজনীয় গানও গেয়ে ফেলেছি।’

টিংকু যোগ করেন, ‘মানুষ হিসেবে হাসান ভাই অসাধারণ। সবাইকে ভালোবাসা দিয়ে আগলে রাখেন। তবে একটু ঘরকুনো, অলসও বলা যায়। না হলে আরো অনেক কাজ করতে পারতেন। হাসান ভাইয়ের কাজ করা মানেই তো আমাদের আরো অনেক গান পাওয়া।’

টিংকু আরো জানান, তেরোটির মতো নতুন গান তৈরি করা আছে ‘আর্ক’-এর। তবে অ্যালবাম আকারে প্রকাশ করতে আরো সময় লাগবে।

পুরনো জনপ্রিয় গানগুলোর বেশির ভাগেরই কথা ও সুর হাসানের। এবারও কি তাই হবে? হাসান বললেন, ‘হ্যাঁ, আমি নিজেই লিখেছি, সুর দিয়েছি। এখন বাকি কাজ বাকিদের।’

আর্কের বর্তমান লাইনআপ—হাসান (লিড ভোকাল), টিংকু আজিজুর রহমান (কি-বোর্ড), নমন (বেজ গিটার), এস আই সুমন (লিড গিটার), জিমি (ড্রামস) এবং এরশাদ আলী (রিদম গিটার)।

মন্তব্য