kalerkantho

শুক্রবার । ২৪ মে ২০১৯। ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৮ রমজান ১৪৪০

বৈশাখের দুই

পহেলা বৈশাখ উৎসবের মৌসুম হলেও নির্বাচনের কারণে ওপার বাংলায় মুক্তি পাচ্ছে মাত্র দুটি ছবি—‘ভিঞ্চি দা’ ও ‘তারিখ’। সিনেমা দুটি নিয়ে লিখেছেন নাসরিন হক

১১ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বৈশাখের দুই

‘ভিঞ্চি দা’য় রুদ্রনীল ঘোষ ও ঋত্বিক চক্রবর্তী

ভিঞ্চি দা

‘২২শে শ্রাবণ’, ‘চতুষ্কোণ’-এর মতো জনপ্রিয় থ্রিলার বানিয়েছেন সৃজিত মুখার্জি। এবার তিনি আসছেন ‘ভিঞ্চি দা’ নিয়ে। এটাও থ্রিলার। সাধারণত নিজের ছবির গল্প নিজে লিখলেও এই গল্পটা অভিনেতা রুদ্রনীল ঘোষের। তবে তা অনেকটাই নিজের মতো করে নিয়েছিন সৃজিত, ‘রুদ্রর গল্পটার একটা অংশ খুব ভালো ছিল, অন্য দিকটা জমছিল না। সে জন্যই সিরিয়াল কিলারের কাহিনিটা নিয়ে আসি। ওর গল্পে প্রেমের অংশটা বেশি ছিল, সেটা বাদ দিয়ে শুধু মেকআপ আর্টিস্টের জীবনীটা নিই।’ ‘ভিঞ্চি দা’য় মূল চরিত্র করেছেন লেখক রুদ্রনীল ঘোষই। কিন্তু তাঁকেই কেন নিতে হলো? পরিচালক বলছেন, ভিঞ্চি দার মধ্যে যে হতাশা আছে সেটা অভিনেতা হিসেবে রুদ্রর মধ্যেও আছে। সে জন্যই তাকে নেওয়া। ছবিতে এ ছাড়া আছেন ঋত্বিক চক্রবর্তী ও সোহিনী সরকার। বিশেষ চরিত্রে আছেন ঋদ্ধি সেনও। ‘ভিঞ্চি দা’ থ্রিলার, তাই গল্প বলতে চাইছেন না পরিচালক।

ছবিতে গান গেয়েছেন বাংলাদেশের মাঈনুল আহসান নোবেল। অনুপম রায়ের কথা ও সুরে তাঁর গাওয়া ‘তোমার মনের ভেতর’ মুক্তি পাওয়ার পর থেকেই দারুণ জনপ্রিয়তা পেয়েছে।

 

তারিখ

চূর্ণী গাঙ্গুলি প্রথম ছবি ‘নির্বাসন’ দিয়েই জাতীয় পুরস্কার পেয়েছিলেন। এরপর তিনি নিজেই কার্যত নির্বাসনে গিয়েছিলেন। পরের ‘তারিখ’ বানাতে বানাতে বছর পাঁচেক লেগে গেল! ‘গল্পটা অনেক আগে লেখা থাকলেও নানা কারণে বানানো যাচ্ছিল না। প্রযোজকের সঙ্গে বনিবনা হচ্ছিল না, নিজেরও অন্য কাজ ছিল। সব মিলিয়ে এই দেরি,’ বলছেন চূর্ণী। ‘তারিখ’-এর দুটি ট্রেলার মুক্তি পেয়েছে, কোনোটাতেই ছবির গল্প সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা পাওয়া যায় না। তবে বোঝা যায়, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের নানা দিক নিয়ে এই ছবি। পরিচালক বলছেন, ঋত্বিক চক্রবর্তী, শাশ্বত চ্যাটার্জি, রাইমা সেন—তিনজন ছবির প্রধান পাত্র-পাত্রী। একজন সোশ্যাল মিডিয়ায় ভীষণ সিরিয়াস সিরিয়াস পোস্ট দেয়, অন্যজন কী খায়, কোথায় যায় সব লিখতে থাকে। অন্যজনও সোশ্যাল মিডিয়া বলতে পাগল। তাদের ঘটনা নানা সূত্রে এসে মিলবে। ছবিতে দিন-তারিখের ভূমিকাও খুব গুরুত্বপূর্ণ, এ জন্যই এমন নাম।

মন্তব্য