kalerkantho

বুধবার । ২১ শ্রাবণ ১৪২৭। ৫ আগস্ট  ২০২০। ১৪ জিলহজ ১৪৪১

হৃদিত্য ফরহাতের আগমনে পৃথিবীতে নোঙর ফেললাম : ওবায়দুল আজম

মোশতাক আহমদ   

৩১ জুলাই, ২০২০ ০০:৫৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



হৃদিত্য ফরহাতের আগমনে পৃথিবীতে নোঙর ফেললাম : ওবায়দুল আজম

‘পৃথিবীতে মানুষের জীবন ভাসমান একটা তরী। আর সন্তান বা সন্তানের সন্তান নোঙরের মতো। আমার ছেলের সন্তান হওয়ার মাধ্যমে দাদা হওয়ার সুযোগ লাভ করে আমি যেন পৃথিবীতে নোঙর ফেললাম।’

এভাবেই দাদা হওয়ার অভিজ্ঞতার কথা জানিয়েছেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. ওবায়দুল আজম। 

গত ২৯ জুলাই ওবায়দুল আজমের ছেলে হৃদ্য ফরহাত পুত্র সন্তানের বাবা হন। স্কয়ার হাসপাতালে নাতি ‘হৃদিত্য ফরহাতের’ জন্মের খবর শোনার সঙ্গে সঙ্গেই অন্যরকম এক অনুভুতি সৃষ্টি হয় দাদা ওবায়দুল আজমের মনে। নাতির জন্য দোয়া করে তিনি বলেন, ‘বেঁচে থাক হৃদিত্য তুমি সারা জীবন ভর, দাদা হিসেবে মন থেকে দোয়া করি আমি ওবায়দুল আজম। নিজ দক্ষতায় আলোকিত হবে তুমি পরিবারের তরে, সারা জীবন মনে রাখবে বিশ্ববাসী ভালো মানুষ মনে করে।’

হৃদিত্যের জন্মের খবরে পরিবারে বইছে খুশির বন্যা। আদর করে পরিবারের নতুন এ অতিথির নাম রেখেছেন তার ফুপু হ্রী ফরহাত। বেসরকারি চাকরিজীবী বাবা হৃদ্য ফরহাত ও বিবিএ অধ্যায়নরত মা তাসিন সাদেকী ও দাদি সবিতা ইয়াসমীন সব পরিবারের সবার আনন্দ এখন হৃদিত্য ফরহাতকে নিয়ে। তাকে নিয়েই কাটছে বেশিরভাগ সময়।

শুধু পরিবার নয়, ওবায়দুল আজমের দাদা হওয়ার আনন্দ ছড়িয়ে পড়েছে তার কর্মস্থল সচিবালয়েও। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে নিজ দপ্তর সংশ্লিষ্ট সবাইকে বৃহস্পতিবার মিষ্টিমুখ করিয়েছেন তিনি। সব কর্মকর্তা-কর্মচারীর পক্ষ থেকে সচিব ড. জাফর আহমেদ ওবায়দুল আজমের নাতির জন্য শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

সবার একটাই কামনা, শিশু হৃদিত্য যেন সুস্থভাবে বড় হয়ে মানুষের মতো মানুষ হিসেবে গড়ে উঠে ব্যক্তি, পরিবারের পাশাপাশি দেশ ও জাতির জন্য বিশেষ অবদান রাখতে পারে। নিজ যোগ্যতায় বাপ-দাদাকেও যেন ছাড়িয়ে যায় হৃদিত্য ফরহাত। মহানর আল্লাহর কাছে এই দোয়া করেন সবাই।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা