kalerkantho

রবিবার । ২১ আষাঢ় ১৪২৭। ৫ জুলাই ২০২০। ১৩ জিলকদ  ১৪৪১

প্রকৃতির সঙ্গে বৈরিতা নয়, চাইতে হবে বন্ধুতা

প্রিন্স হাসান সাইমন   

২১ এপ্রিল, ২০২০ ১১:৫৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



প্রকৃতির সঙ্গে বৈরিতা নয়, চাইতে হবে বন্ধুতা

ছবি-সংগৃহীত

পরিবেশ মানুষের জীবনী শক্তির প্রধান উৎস। সবুজ নির্মল পরিবেশ আমাদের এক নিমিষেই চাঙ্গা করে দেয়। এই পরিবেশের ওপরই নির্ভর করছে আমাদের অস্তিত্ব। সৃষ্টি জগতের শ্রেষ্ঠ জীব হলেও সৃষ্টিকুলের সকল কিছুর উপরে আমরা নির্ভরশীল। পরিবেশ প্রতিকূল হলে আমাদের ধ্বংস ও সর্বনাশ অবশ্যম্ভাবী।

তাই প্রকৃতির উপর আধিপত্য বিস্তার না করে মানুষের চেষ্টা করতে হবে জীবনধারাকে সুন্দর স্বাভাবিক করার জন্য প্রকৃতির সঙ্গে মৈত্রীর সম্বন্ধ স্থাপন। প্রাণঘাতী এই করোনাভাইরাস অজস্র প্রাণ কেড়ে নিলেও আমাদেরকে শিক্ষা দিয়ে যাচ্ছে প্রকৃতির কাছে ফিরে যাওয়ার। 

যুগে যুগে মানুষের নির্মম অত্যাচারে প্রকৃতি বিষন্ন আজ। যদিও মানুষ ভুলে গিয়েছ এই পরিবেশ মানব সভ্যতার এক গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে মানুষের বিচরণ কমে যাওয়ার ফলে প্রকৃতি আজ নতুন রূপে, নতুন আঙ্গিকে সেজে উঠেছে। আমাদেরকে পরোক্ষভাবে শিক্ষা দিয়ে যাচ্ছে সৃষ্টি জগতের শ্রেষ্ঠ জীব হলেও তোমরা এই পৃথিবীর সবকিছু নয়। আমাদের উচিত স্বাধীনভাবে বেঁচে থাকার অধিকার আছে। 

তাছাড়া প্রকৃতির সাথে মানুষের সম্পর্কটা গভীর। মানুষকে বেঁচে থাকতে হলে প্রকৃতিকে আগে বাঁচতে হবে। প্রকৃতিকে ধ্বংস করলে মানুষ একদিন পৃথিবী থেকে ডাইনোসরের মতো বিলুপ্ত হয়ে যাবে। যদি পরিবেশ ভালো থাকে তাহলে আমরা ভালো থাকবো। পরিবেশ আবহাওয়া জলবায়ু ঠিক রাখা আমাদের পবিত্র দায়িত্ব। 

তাই আসুন এই অভিশাপ থেকে মুক্ত হতে, নতুন জীবন ফিরে পেতে, প্রকৃতির উপর আধিপত্য নয় বরং প্রকৃতিকে সহযোগিতা করা এখন সময়ের দাবি।

শিক্ষার্থী, ঢাকা কমার্স কলেজ

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা