kalerkantho

বুধবার । ২৬ জুন ২০১৯। ১২ আষাঢ় ১৪২৬। ২৩ শাওয়াল ১৪৪০

বেত্রাবতী নদী দখল করে মাছ চাষ

ঝিকরগাছা (যশোর) প্রতিনিধি   

২৭ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার বেত্রাবতী (বেতনা) নদী ফের দখল করা হয়েছে। দুই দফা দখলমুক্তের কয়েক মাসের মাথায় আবার এলাকার কিছু প্রভাবশালী জোর করে নদীর প্রায় পাঁচ কিলোমিটার অংশ দখলে নিয়েছে। গত শনিবার নদীতে মাছ ছেড়েছে তারা।

উপজেলার নির্বাসখোলা ইউনিয়নের মির্জাপুর মৌজা হতে পাঁচপোতা বাজার হয়ে খরুসা ঈদগাহ পর্যন্ত প্রায় পাঁচ কিলোমিটার বাঁধ দিয়ে অবৈধভাবে নদীতে মাছ চাষ করছে কিছু প্রভাবশালী ব্যক্তি। এ ঘটনায় এলাকাবাসীর মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, মির্জাপুর এলাকার বুলবুল হোসেন, সুমন কবীর, মুনতাজ আলী, খাইরুল ইসলাম, সেলিম হোসেন, জসিম উদ্দীন, জনি হোসেন, মাসুম আলী, এরশাদ আলী, আব্দুর রাজ্জাক, হবিবার রহমান ও মিলন কবির নদী দখল করে মাছ চাষ করছে।

মির্জাপুর শুকুরের বাড়ি হতে ছাতিয়ানতলা পর্যন্ত দখলে নিয়েছে নির্বাসখোলা ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বর আইনাল হোসেন ও বেড়ারুপানি গ্রামের শুকুর আলী। নদীর বেড়ারুপানি মৌজা হতে পাঁচপোতা সেতু পর্যন্ত দখল করেছে নাভারণ গ্রামের আবুল কালাম ও সাবেক মেম্বর নজরুল ইসলাম। বেড়ারুপানির অন্য অংশ দখল করে মাছ ছেড়েছে মেম্বার আইনাল হোসেন, ওই গ্রামের জারজিত গাজী ও আব্দুর রশিদ মিয়া। দখলকারীরা ক্ষমতাসীন দলের লোক হওয়ায় এলাকাবাসী বাধা দিয়েও কোনো ফল পাচ্ছে না।

জানতে চাইলে নির্বাসখোলা ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য আইনাল হোসেন জানান, তিনি নদী দখল করেননি। দখল ঠেকাতে নদীতে কিছু মাছ ছেড়েছেন।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাহিদুল ইসলাম বলেন, ‘যাই হোক, অবৈধভাবে নদী দখল করে কেউ পার পাবে না। অভিযান অব্যাহত থাকবে।’

গত বছর দুই দফায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাহিদুল ইসলাম ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে দখলমুক্ত করে এই নদী।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা