kalerkantho

মঙ্গলবার। ১৮ জুন ২০১৯। ৪ আষাঢ় ১৪২৬। ১৪ শাওয়াল ১৪৪০

কুলাউড়ায় শিক্ষা বিভাগের জমি অন্যের দখলে

কুলাউড়া (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি   

২৬ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কুলাউড়ায় শিক্ষা বিভাগের জমি অন্যের দখলে

মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার কটারকোনা বাজারে শিক্ষা বিভাগের ২১ শতাংশ জমি অবৈধ দখলে। ছবি : কালের কণ্ঠ

মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার হাজীপুর ইউনিয়নের কটারকোনা বাজার এলাকায় শিক্ষা বিভাগের ২১ শতাংশ জমি অবৈধ দখলের অভিযোগ পাওয়া গেছে। স্থানীয় বাসিন্দা মুহিবুর রহমান মিমি জমি দখলে নিয়ে সেখানে বিভিন্ন স্থাপনা নির্মাণ করে ভাড়া দিচ্ছেন। এ ব্যাপারে সমরজিৎ দাস নেপাল নামের স্থানীয় এক বাসিন্দা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, কটারকোনা বাজারের কাছে ছয় শতাংশ সরকারি খাস জমির পাশাপাশি ১৯২০ সালে প্রয়াত গোপীনাথ দাসের দান করা ১৫ শতাংশ জমিতে নয়াবাজার প্রাথমিক বিদ্যালয় নামের একটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান স্থাপিত হয়। পরবর্তী সময় একই এলাকার আবদুস সালাম চৌধুরী বিদ্যালয়ের নামে আরো পাঁচ শতাংশ জমি দান করেন। ১৯৬২ সালে সালাম চৌধুরীর দান করা জমিতে সরকারি উদ্যোগে একটি আধাপাকা বিদ্যালয় ভবন নির্মিত হয়। অবশিষ্ট জমি বিদ্যালয়ের খেলার মাঠ হিসেবে ব্যবহৃত হতো। এরপর বিদ্যালয়ে একটি পাকা ভবন নির্মাণের জন্য ৩৩ শতাংশ জমির দরকার পড়ে। এ অবস্থায় একই এলাকার বাসিন্দা মুহিবুর রহমান মিমির বাবা ফজলুর রহমান কটারকোনা বাজারের কাছে অন্য একটি স্থানে ৩৩ শতাংশ জমি দান করেন। ২০০৬ সালে ওই জমিতে পাকা ভবন স্থাপনের পর সেখানে বিদ্যালয়ের কার্যক্রম শুরু হয়। সেটলমেন্ট বিভাগের জরিপে বিদ্যালয়ের বর্তমান ৩৩ শতাংশ ও আগের ২৬ শতাংশসহ মোট ৫৯ শতাংশ জমি শিক্ষা বিভাগের নামে রেকর্ড হয়ে গেছে।

উপজেলার প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আইয়ুব উদ্দিন মুঠোফোনে বলেন, ‘শিক্ষা বিভাগের জমি কেউ দখল করতে পারবে না।’

ইউএনও মুহাম্মদ আবুল লাইছ বলেন, ‘সরেজমিন গিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা